Inqilab Logo

শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯ আশ্বিন ১৪২৮, ১৬ সফর ১৪৪৩ হিজরী

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ভারত

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ মার্চ, ২০২১, ১২:০০ এএম

আহমেদবাদের তৃতীয় টেস্ট শেষ হয়েছিল দুই দিনে। একই মাঠে হওয়া সিরিজের চতুর্থ ও শেষ টেস্টের দৈর্ঘ্য একদিন বাড়লো বটে, তবে জয়ের হাসি থাকলো একই। সেই ভারতই ইনিংস ও ২৫ রানে জিতে নিয়েছে ম্যাচটি। তাতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৩-১ ব্যবধানে শুধু সিরিজই জিতলো না ভারত, একই সঙ্গে জায়গা করে নিলো টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে। আগামী জুনে টেস্টের শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে বিরাট কোহলিরা লড়বে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে।

অথচ চার ম্যাচের এই সিরিজে ভারতকে তাদের মাটিতে হারিয়ে দারুণ শুরু পেয়েছিল ইংল্যান্ড। যে কারণে ভারতের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের পথ কঠিন হয়ে পড়ে। কিন্তু স্বাগতিকরা পরের টেস্টে ঘুরে দাঁড়িয়ে ইংল্যান্ডকে গুঁড়িয়ে দিয়ে সিরিজের সঙ্গে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের টিকিট পেলো। আরেকবার ভারতীয় স্পিনারদের সামনে কুপোকাত ইংলিশরা।

আগের দুই টেস্টে আলো ছড়ানো অক্ষর প্যাটেল ও রবিচন্দ্রন অশ্বিনের ঘূর্ণিতে আহমেদাবাদের চতুর্থ টেস্ট ইংনিংস ব্যবধানে জিতেছে ভারত। দ্বিতীয় ইনিংসে দুই স্পিনারই নিয়েছেন ৫টি করে উইকেট। তাদের ভাগাভাগি করে নেওয়া সাফল্যে ইংলিশরা অলআউট হয়েছে ১৩৫ রানে। প্রথম ইনিংসে স্বাগতিকরা করেছিল ২০৫ রান।

গতকাল তৃতীয় দিনের শুরুটা হয়েছিল ভারতের ব্যাটিং দিয়ে। আগের দিন ৬০ রানে অপরাজিত থাকা ওয়াশিংটন সুন্দর দিন শুরু করেছিল ১১ রান নিয়ে মাঠে নামা অক্ষরের সঙ্গে। দারুণ খেলতে থাকা এই জুটি ভাঙে অক্ষরের দুঃখজনক রান আউটে। ৯৭ বলে ৪৩ রান করেন এই সিরিজেই অভিষেক হওয়া এই বোলিং অলরাউন্ডার। সুন্দরের দুঃখটা আরও বেশি। টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরির কাছে গিয়েও পাননি। বেন স্টোকস শ‚ন্য রানে ইশান্ত শর্মা ও মোহাম্মদ সিরাজকে ফেরালে ৯৬ রানে অপরাজিত থাকা সুন্দরকে সঙ্গীর অভাবে ফিরতে হয় প্যাভিলিয়নে। তাতে ভারতের প্রথম ইনিংস শেষ হয় ৩৬৫ রানে।

১৬০ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামা ইংল্যান্ডের শক্ত শুরু দরকার ছিল। কিন্তু অশ্বিনের ঘ‚র্ণিতে শুরুতেই এলোমেলো ইংলিশরা। এই স্পিনার ফেরান ওপেনার জ্যাক ক্রাউলি (৫) ও জনি বেয়ারস্টোকে (০)। একটু পর তার উইকেট উৎসবে যোগ দেন অক্ষর। বাঁহাতি স্পিনার ডম সিবলি (৩) ও বেন স্টোকসকে (২) আউট করলে ৩০ রান তুলতে ৪ উইকেট হারায় সফরকারীরা।

ওই জায়গা থেকে অধিনায়ক জো রুট দলকে টেনে তোলার চেষ্টা করলেও পারেননি। ৩০ রানে আউট হন তিনি। এরপর শুধু আসা-যাওয়ার পালা। ব্যাটিং ব্যর্থতার মাঝে যা প্রতিরোধ গড়েছিলেন ড্যান লরেন্স। তিনি করেন ৫০ রান। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে জ্যাক লেচ আউট হলে ৫৪.৪ ওভারে শেষ ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় ইনিংস। সমান্তরালে মাত্র তিন দিনে ম্যাচ জিতে টেস্ট চ্যাম্পিয়শিপের ফাইনালে ভারত।


তিন দিনেই ইংল্যান্ডের হার
আহমেদাবাদ টেস্ট
সংক্ষিপ্ত স্কোর
ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস : ২০৫ ও দ্বিতীয় ইনিংস ৫৪.৫ ওভার ১৩৫ (লরেন্স ৫০, রুট ৩০, পোপ ১৩, ফকস ১৩; অশ্বিন ৫/৪৭, অক্ষর ৫/৪৮)।
ভারত ১ম ইনিংস : প্রথম ইনিংসে ১১৪.৪ ওভারে ৩৬৫ (পান্ত ১০১, সুন্দর ৯৬, রোহিত ৪৯, অক্ষর ৪৩, রাহানে ২৭; স্টোকস ৪/৮৯, অ্যান্ডারসন ৩/৪৪, লেচ ২/৮৯)।
ফল : ভারত ইনিংস ও ২৫ রানে জয়ী।
সিরিজ : চার ম্যাচের সিরিজে ভারত ৩-১ ব্যবধানে জয়ী।
ম্যাচসেরা : ঋষভ পান্ত।
সিরিজসেরা : রবিচন্দ্রন অশ্বিন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফাইনালে-ভারত
আরও পড়ুন