Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ০৯ আষাঢ় ১৪২৮, ১১ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

এমন দুর্দশায় শেষ কবে পড়েছিল লিভারপুল!

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ মার্চ, ২০২১, ১২:০০ এএম

ইতিহাসে প্রথমবারের মতো নিজেদের মাঠে টানা ছয় ম্যাচে হারের কবলে পড়েছে লিভারপুল। যার শেষটি এসেছে অবনমন অঞ্চলের দল ফুলহ্যামের বিপক্ষে, অল রেডরা হেরেছে ১-০ গোলে। এই একটা বছর আগেও যদি কেউ বলতেন কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপের লিভারপুল টানা হারবে অ্যানফিল্ডে, নিশ্চিতভাবেই তা অবিশ্বাস্য ঠেকত। কিন্তু সে অচিন্তনীয় ব্যাপারটাই তিক্ত বাস্তবতা হয়ে দাঁড়িয়েছে মোহামেদ সালাহদের।
নিজেদের মাঠে বার্নলি, ব্রাইটন, ম্যানচেস্টার সিটি, এভারটন আর চেলসির কাছে হেরে এ ম্যাচে পা রেখেছিল দলটি। প্রতিপক্ষ অবনমন অঞ্চলের দল ফুলহ্যাম ছিল বলেই হয়তো খরা কাটানোর আশা ছিল ক্লপের দলের। ইতিহাসও কথা বলছিল লিভারপুলের পক্ষে। ফুলহ্যামের বিপক্ষে নিজেদের মাঠে ২৩টি ম্যাচের একটিতে হেরেছিল দল, সেটাও সেই ২০১২ সালে কেনি ডালগ্লিশের অধীনে। আর প্রিমিয়ার লিগ শিরোপাধারী দলের মাঠে ২৬ ম্যাচ খেলে তাদের জয়ের কীর্তিও কেবল দুটো, ১৯৬৩ সালে ইপসউইচ টাউনের বিপক্ষে প্রথমবার, শেষটা এসেছিল ২০০৩ সালে ম্যান ইউনাইটেডের বিপক্ষে। তবে খেলাটা তো দিনশেষে হয় মাঠেই। সে লড়াইয়েই হেরে বসল লিভারপুল। ৪৫ মিনিটে মারিও লেমিনার গোলটিই গড়ে দেয় ম্যাচের ফলাফল। তাতে ঘরের মাঠে টানা ষষ্ঠ হারের কবলে পড়ে দলটি।
গেল মৌসুমেই দলটা শিরোপা জিতেছিল ১৮ পয়েন্টের ব্যবধানে। এই অ্যানফিল্ডেই টানা ৬৮টি লিগ ম্যাচ হারেনি অল রেডরা! সেসবকে যেন এখন সুদূর অতীত বলেই মনে হয়। সর্বশেষ হারের পর ২৮ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ দাঁড়িয়েছে ৪৩ পয়েন্ট। নেমে গেছে টেবিলের অষ্টম অবস্থানে। এভাবে চলতে থাকলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ তো বটেই, আগামী মৌসুমে ইউরোপার নাগালও পাবে না ক্লপের দল।
২০ বছরের কোচিং ক্যারিয়ারে বুন্ডেসলিগা, চ্যাম্পিয়ন্স লিগ আর প্রিমিয়ার লিগের দেখা পেয়েছেন ক্লপ। তবে টানা ছয় হার, এ যেন তিনি কখনো দেখেননি ঘোরতর কোনো দুঃস্বপ্নেও। জার্মান কোচের মতে তাই এটাই তার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বাজে সময়, ‘সবসময় যে সেরা সময় চলবে ব্যাপারটা তেমনও নয়। কিন্তু সবচেয়ে বাজে সময়? না বলতে পারলে খুশি হতাম, কিন্তু উত্তরটা হচ্ছে হ্যাঁ।’ দারুণ সাফল্যের পর এমন দুঃসহ যাত্রা অবশ্য ক্লপের জন্য নতুন কিছু নয়। ২০১০-১১, ২০১১-১২ মৌসুমে টানা দুই বুন্দেসলিগা জয়ের পরের মৌসুমে তার দল লিগজয়ী বায়ার্ন মিউনিখ থেকে ২৫ পয়েন্টে পিছিয়ে থেকে লিগ শেষ করেছিল। যেমনটা ঘটছে এবারো।
লিভারপুলের এই টানা ছয় হার ইতিহাস থেকে বয়ে এনেছে কিছু শঙ্কাও। নিজেদের ইতিহাসে সর্বশেষ ১৯৫৩-৫৪ মৌসুমে ঘরের মাঠে ছয়টি হারের কবলে পড়েছিল দলটি। সেবার তারা লিগ শেষ করেছিল সবার নিচে থেকে। এদিকে প্রিমিয়ার লিগের সর্বশেষ নজিরটি ২০১৮-১৯ মৌসুমের, সেবার ঘরের মাঠে টানা ছয় ম্যাচ হারা দল হাডার্সফিল্ড টাউন অবনমিতই হয়ে গিয়েছিল। তবে কোচ ক্লপের বিশ্বাস, তার দল এখান থেকে ঠিকই ফিরে আসবে, ‘এটা একটা দারুণ দল। আমরা দারুণ সফল ছিলাম, আর এখন কঠিন এক মুহূর্তে আছি। কিন্তু আমরা লড়াই চালিয়ে যাব। তবে রাতারাতি একে বদলে দিতে হলে আমাদেরকে দারুণ কিছুই করতে হবে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: লিভারপুল

১০ জানুয়ারি, ২০২১
২৯ ডিসেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন