Inqilab Logo

বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮, ২২ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

বিশ্ব কিডনি দিবস আজ

দুই কোটি মানুষ আক্রান্ত

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১১ মার্চ, ২০২১, ১২:০০ এএম

বিশ্ব কিডনি দিবস আজ। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘কিডনি রোগে সুস্থ থাকুন’। কিডনি রোগ একটি ‘নীরব ঘাতক’। তথ্য মতে, কিডনি রোগ একটি ‘নীরব ঘাতক’। দেশের ২ কোটি মানুষ কোন না কোনভাবে কিডনি সংক্রান্ত রোগে আক্রান্ত। প্রতিবছর প্রায় ৪ লাখ মানুষ নতুনকরে এই রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। এদের মধ্যে প্রায় ৩০ হাজার রোগী কিডনি বিকল হয়ে মৃত্যুবরণ করছে। যাদের মধ্যে প্রায় ৪০ শতাংশই শিশু। একই সঙ্গে প্রায় ৪০-৫০ হাজার মানুষ ডায়ালাইসিস এর মাধ্যমে জীবনধারণ করছে। প্রতিদিনই বাড়ছে এই কিডনি রোগীর সংখ্যা। কিডনি রোগ সম্পর্কিত বিভিন্ন পরিসংখ্যানে এ তথ্য উঠে এসেছে। অপর এক পরিসংখ্যানে দেখা যায়, বাংলাদেশের প্রতি সাতজনে একজন কিডনি রোগে আক্রান্ত। ২৫ লাখ রোগীর জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক একজন। বাংলাদেশে প্রতিবছর ৪০ হাজার মানুষ মারা যায় কিডনি রোগে।
চিকিৎসা বিশেষজ্ঞদের মতে, এ রোগ সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে পারলে এবং সময়মতো চিকিৎসা সম্ভব হলে ঘাতকব্যাধি অনেকাংশেই রোধ করা সম্ভ¢ব। একই সঙ্গে প্রাথমিক পর্যায়ে নীরব ঘাতক এই রোগ সনাক্ত ও চিকিৎসা নিলে কিডনি ডায়ালাইসিস ও ট্রান্সপ্লান্টের মতো ব্যয় বহুল চিকিৎসা থেকে মুক্তি পাওয়া এবং অনেকদিন বেঁচে থাকা সম্ভব। এছাড়া ওষুধের যথেচ্ছা ব্যবহার ও ভেজাল খাবারের জন্য কিডনি বিকল অনেকাংশেই দায়ী বলে উল্লেখ করেন। তাদের মতে, জ্বর বা ব্যাথা হলে যে কোন ওষুধ খাওয়ার পূর্বে অন্তত সিরাম ক্রিয়েটিনিন পরীক্ষাটি করে তার মাত্রা দেখে ওষুধ সেবন করা উচিত। পাশাপাশি ভেজাল খাবার সম্পূর্নভাবে পরিহার করতে হবে। প্রসবকালীন জটিলতা যাতে না হয় সেজন্যও আগে থেকেই সতর্ক থাকতে হবে।
দিবসটি উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাণী দিয়েছেন। বাণীতে তিনি বলেছেন, সরকার স্বাস্থ্য খাতে যুগান্তকারী সাফল্য অর্জন করেছে। যা বিশ্বব্যাপী সমাদৃত হচ্ছে। কিডনি রোগের প্রতিরোধ ও চিকিৎসার বিষয়ে সরকার যথাযথ গুরুত্ব দিচ্ছে এবং এ বিষয়ে প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে। এবারের দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘কিডনি রোগে সুস্থ থাকুন’ যথার্থ হয়েছে বলেও তিনি মনে করেন।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ডা. শাহজাদা সেলিম বলেন, শতকরা ৮৫ ভাগ রোগীরা কিডনি নষ্ট হওয়ার আগে বুঝতে পারে না যে তারা কিডনিজনিত রোগে আক্রান্ত। নেফ্রাইটিস, ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ এবং প্রসাবজনীত সমস্যায় আমাদের দেশে শতকরা ৮০ থেকে ৯০ ভাগ লোকের কিডনি ধীরে ধীরে বিকল হয়ে যাচ্ছে।
সেচ্ছাসেবী সংগঠন কিডনি অ্যাওয়ারনেস মনিটরিং এন্ড প্রিভেনশন সোসাইটি (ক্যাম্পস) সভপাতি ও কিডনি বিশেষজ্ঞ ডা. এম এ সামাদ বলেন, কিডনি রোগ অত্যন্ত ভয়াবহ। এ রোগের চিকিৎসা এতই ব্যয়বহুল যে এ দেশের শতকরা ৫ ভাগ মানুষেরও এ রোগের চিকিৎসা চালানো সম্ভব নয়। তিনি বলেন, তিনি কিডনি সচল ও সুস্থ রাখতে তিনি অধিক পানি পান ও ব্যায়াম করার উপর গুরুত্বারোপ করেন।
একই সঙ্গে এ রোগ প্রতিরোধে ডা. এম এ সামাদ ৮ টি বিষয় মেনে চলার পরামর্শ দেন। সেগুলো হলো- কায়িক পরিশ্রম ও নিয়মিত ব্যায়াম, উচ্চ রক্তচাপ ও ডায়েবেটিকস নিয়ন্ত্রণ, সুপ্ত উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে নিয়মিত রক্তচাপ পরীক্ষা, স্বাস্থ্যসম্মত খাবার গ্রহণ ও ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা, পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান, ধূমপান থেকে বিরত থাকা, ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া কোন ওষুধ সেবন না করা এবং নিয়মিত কিডনির কার্যকারিতা পরীক্ষা করা।
এদিকে বিশ্ব কিডনি দিবস উপলক্ষে আজ কিডনি ইনস্টিটিউট, কিডনি ফাউন্ডেশন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ), ইউনাইটেড হসপিটাল, আয়েশা মেমোরিয়াল হসপিটাল, ইনসাফ বারাকাহ কিডনি এন্ড জেনারেল হাসপাতালসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী ও সামাজিক সংগঠন র‌্যালি, আলোচনা সভা, সেমিনারসহ বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করেছে।
ইউনাইটেড হসপাতালে গতকাল রেনাল কেয়ার সেন্টার কিডনি রোগীদের নিয়ে ‘কিডনি রোগ নিয়ে ভালো থাকা’- শিরোনামে পেশেন্ট ফোরাম আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে কিডনি রোগী ও তাদের পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিশ্ব কিডনি দিবস আজ

১১ মার্চ, ২০২১
আরও পড়ুন