Inqilab Logo

বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

প্রথমবারের মতো বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বিনিয়োগ হবে পায়রা বন্দর প্রকল্পে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ মার্চ, ২০২১, ৬:২৯ পিএম

প্রথমবারের মতো বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ থেকে পায়রা গভীর সমুদ্র বন্দর প্রকল্পে বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে সরকার। এই বিনিয়োগের জন্য একটি তহবিল গঠন এবং সেই তহবিল থেকে সোনালী ব্যাংকের মাধ্যমে পায়রা কর্তৃপক্ষকে ঋণ প্রদান করা হবে। সোমবার (১৫ মার্চ) ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাংলাদেশ অবকাঠামো উন্নয়ন তহবিলের উদ্বোধন এবং তহবিল থেকে পায়রা বন্দরের রাবনাবাদ চ্যানেলের ক্যাপিটাল ও মেইনটেনেন্স ড্রেজিং শীর্ষক স্কিমে অর্থায়নের লক্ষ্যে ত্রিপক্ষীয় ঋণচুক্তি সই অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী বলেন, উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে আমাদেরকে নিজের পায়ে চলতে হবে। নিজেদের অর্থায়নে কাজ করতে হবে। আমরা আমাদের দেশকে উন্নত করব, এটাই আমাদের লক্ষ্য। আর সে লক্ষ্য বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে আমাদের অনেক কাজ করার দরকার আছে।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে আমাদের জীবনযাত্রা স্থবির হয়ে পড়ে। তবে এখানে অনেককে আমরা হারিয়েছি। তাদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করি। সঙ্গে সঙ্গে এই কারোনায় আরেকটি ঘটনা যেটা আমরা দেখতে পাচ্ছি, আমাদের রিজার্ভ বৃদ্ধি পেয়েছে, রেমিট্যান্স বৃদ্ধি পেয়েছে। এই রিজার্ভের টাকা দেশের উন্নয়নে কীভাবে নিজেরা ব্যয় করতে পারি, সেটাই চিন্তা করছি। একই সঙ্গে বার বার অন্যের কাছে হাত পাতা, আর ধার না করে আমরা আমাদের নিজেদের অর্থ দিয়ে নিজেদের অবকাঠোমো উন্নয়ন এবং সেখান থেকেই যারা আমাদের এখানে বিনিয়োগ করতে আসবেন, তাদের ঋণ নেওয়ার বিষয়টি আমরা নিজেদের অর্থ থেকে ব্যয় করতে পারি। তাতে দেশেরও লাভ, আমাদেরও আত্মবিশ্বাস জন্মাবে। আমরা যে পারি, বিশ্বের কাছে দেখাতে পারব বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের রিজার্ভে ছয় মাসের আমদানির টাকাটা রাখতে হবে। কারণ প্রাকৃতিক দুর্যোগের দেশ বাংলাদেশ। যেকোনো সংকটে যেন খাদ্য ক্রয় করতে পারি। ছয় মাসের টাকা রিজার্ভে রেখে বাকি টাকা কীভাবে বিনিয়োগ করতে পারি সেটাই আমাদের প্রচেষ্টা। এজন্য আমরা নিজস্ব তহবিল গঠন করার চিন্তা করেছি। এখান থেকে বিনিয়োগকারীরা ঋণ নিতে পারবে।

বর্তমানে বাংলাদেশে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ রয়েছে ৪৪ দশমিক শূন্য তিন বিলিয়ন ডলার। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল, নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ও বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে এছাড়াও ছিলেন অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার; অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব মিজ্ ফাতিমা ইয়াসমিন, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী, সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের চেয়রম্যান জিয়াউল হাসান সিদ্দিকী; পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কমোডর হুমায়ুন কল্লোল ও অন্যান্য উর্ধতন সরকারি কর্মকর্তারা। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ