Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৪ মাঘ ১৪২৮, ১৪ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

সু চির বিরুদ্ধে এবার ঘুষ নেয়ার অভিযোগ

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ মার্চ, ২০২১, ৫:৫৪ পিএম

মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চির বিরুদ্ধে নতুন আরেকটি অভিযোগ তুলেছে দেশটির সেনাসরকার। আল-জাজিরা জানিয়েছে, এবার তার বিরুদ্ধে ঘুষ নেয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। তারা জানিয়েছে, ঘুষ হিসেবে ছয় লাখ ডলার ও স্বর্ণ নিয়েছেন উৎখাত হওয়া এই নেত্রী। ১ ফেব্রুয়ারি সামরিক অভ্যুত্থানের পর সু চির বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলোর মধ্যে এটিই সবচেয়ে গুরুতর।
৭৫ বছর বয়সী এই বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ এখন সেনা হেফাজতে রয়েছেন। তার বিরুদ্ধে আগে অবৈধভাবে ওয়াকিটকি কেনার অভিযোগ আনা হয়। করোনাভাইরাস প্রতিরোধ বিষয়ক বিধিনিষেধ ভাঙায়ও অভিযুক্ত করা হয়েছে তাকে।
মিয়ানমারের সামরিক জান্তার মুখপাত্র জেনারেল জ মিন তুন বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) সংবাদ সম্মেলনে বলেন, সরকারে থাকা অবস্থায় অং সান সু চি বিধি বিধি বহির্ভূতভাবে স্বর্ণ এবং ৬ লাখ ডলার আত্মসাত করেছে। ইয়াঙ্গুনের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফিয়ো মিয়েন থিয়েন এর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সেনাবাহিনী এমন অভিযোগ তোলে। এসময় তিনি বলেন, ‘আমরা কয়েকবার এসব তথ্য যাচাই করেছি। এখন দুর্নীতি বিরোধী কমিশন বিষয়টি তদন্ত করছে।’ এছাড়া তিনি মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ত এবং কয়েকজন মন্ত্রী পরিষদ সদস্যও দুর্নীনিতে যুক্ত ছিলেন বলে অভিযোগ তোলেন। প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নিয়ে সেনাবাহিনীর অভিযোগ আমলে না নেয়ার জন্য নির্বাচন কমিশনকে চাপ প্রয়োগ করেন বলেও সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়।
গত ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের নির্বাচিত নেতাদের গ্রেপ্তারের পর জরুরি অবস্থা জারি করে সেনাবাহিনী। গত নভেম্বরে মিয়ানমারে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপি হয়েছে অভিযোগ তুলে সেনাবাহিনী তাদের ক্ষমতাগ্রহণ বৈধ করার চেষ্টা করছে। যদিও নির্বাচন কমিশন সেনাবাহিনীর অভিযোগ প্রত্যাখান করেছে।
সংবাদ সম্মেলনে সেনাবাহিনীর মুখপাত্র জ মিন তুন সাময়িক সময়ের জন্য সেনাবাহিনী ক্ষমতা গ্রহণ করেছে বলে পুনর্ব্যক্ত করেন। জান্তা এর আগে এক বছরের মধ্যে পুনরায় নির্বাচন দেয়ার ঘোষণা দেয়। যদিও সেই নির্বাচন কবে অনুষ্ঠিত হবে তার কোনো দিন-তারিখ জানায়নি। সূত্র : রয়টার্স, আল জাজিরা, বিবিসি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সু চি

১১ জানুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ