Inqilab Logo

রোববার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

শ্রীলঙ্কা সিরিজে খেলবেন সাকিব!

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০১ এএম

জাতীয় দল থেকে সাকিব আল হাসানের বিরতি নানা আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। কারও কারও মতে, জাতীয় দলের চেয়েও সাকিব বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন আইপিএলকে। তবে মে মাসেই জাতীয় দলের জার্সিতে ফিরবেন বলে জানিয়েছেন খোদ সাকিব।
আগামী ৯ এপ্রিল থেকে শুরু হবে আইপিএলের চতুর্দশ আসর, যেখানে সাকিব খেলবেন কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে। এই আসরে খেলার জন্য শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ থেকে ছুটি নিয়েছেন সাকিব। এর আগে সাকিব পিতৃত্বকালীন ছুটি নিয়েছিলেন নিউজিল্যান্ড সফর থেকেও। এরই মধ্যে ভারতে ৭ দিনের কোয়ারেন্টিন চলছে দেশসেরা অলরাউন্ডারের। এ মাসেই লঙ্কানদের মাটিতে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অন্তর্গত দুটি টেস্ট খেলবে টাইগাররা। আগামী ১২ এপ্রিল শ্রীলঙ্কায় পৌঁছাবে বাংলাদেশ দল। কলম্বোয় টিম হোটেলে ৩ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে তাদের। এরপর জৈব-সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে চলবে সিরিজ।
আইপিএল শেষ হবে মে মাসের শেষদিকে। তার মাঝে ঐ মাসেই ফিরতি সফরে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসবার কথা শ্রীলঙ্কা দলের। সাকিব জানিয়েছেন, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে এই সিরিজে খেলবেন তিনি। অর্থাৎ, দল শেষপর্যন্ত খেললেও পুরো আসরে কলকাতার সাথে থাকা হবে না সাকিবের। একটি বিপণন প্রতিষ্ঠানের ফেসবুক লাইভে ‘কবে জাতীয় দলের জার্সিতে আবারো দেখা যাবে’ এমন প্রশ্নের জবাবে সাকিব বলেন, ‘আশা করি মে মাসে। যদি করোনা পরিস্থিতি ভালো থাকে, যেভাবে সিরিজগুলোর পরিকল্পনা আছে সেগুলো যদি সময় অনুযায়ী হয় তাহলে ইনশাআল্লাহ মে মাসে।’
শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ থেকে সাকিব ছুটি নিয়েছেন ম‚লত আইপিএলের কারণে। এ বছরই ভারতে বসবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর। সেই বিশ্বকাপের প্রস্তুতির জন্য সাকিব আইপিএলকেই বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন। এছাড়া আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে জয়হীন বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আহামরি সাফল্য পেলেও পয়েন্ট টেবিলে অবস্থার তেমন উন্নতি হবে না। এসব দিক বিবেচনা করেই টেস্ট সিরিজ থেকে ছুটি নিয়েছিলেন সাকিব, যা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার শিকার হতে হয়েছে তাকে।
কিছু দিন আগে একই প্রতিষ্ঠানের ফেসবুক লাইভের অনুষ্ঠানে সাকিব সমালোচনা করেছিলেন ক্রিকেট বোর্ড থেকে শুরু করে ক্রিকেটারদের। সেখানে সাকিব সরাসরিই বলেছিলেন যে, তরুণ ক্রিকেটারদের স্বপ্ন কেবল প্রতিষ্ঠিত ও তারকা ক্রিকেটারদের সাথে খেলার, তাদের সাথে চলার পর্যন্ত না হয়ে তাদের থেকেও ভালো করে নিজেদের গড়ে তোলার হওয়া উচিত। বোর্ড ও বোর্ডের বিভিন্ন অংশের নির্দিষ্ট কাজের সফলতা-ব্যর্থতা নিয়েও কথা বলেছিলেন সাকিব।
এদিন প্রসঙ্গক্রমে উঠে আসে সেই প্রশ্নটিও। তাকে জিজ্ঞাস করা হয়েছিল, সুযোগ পেলে তিনি বলেন বাংলাদেশ দলের কোন জিনিসটি পরিবর্তন করতে চান। সাকিব অকপটেই জানিয়ে দেন, বাংলাদেশ দলের মানসিকতার পরিবর্তন আনতে চান বিশ্বসেরা ওয়ানডে অলরাউন্ডার, ‘(সুযোগ পেলে) বাংলাদেশ দলের মানসিকতা পরিবর্তন করতে চাই। এ নিয়ে কিছু ব্যাখ্যা করতে চাই না।’
সাকিব এই লাইভে আসার কয়েক ঘণ্টা আগেই বাংলাদেশ দল বাজে ভাবে নিউজিল্যান্ডে হারের ষোলকলা পূর্ণ করেছে। ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি উভয় সিরিজেই হোয়াইটওয়াশ হয়েছে সফরকারীরা। মাত্র ১০ ওভারও টিকতে না পেরে শেষ ম্যাচটিতে তো অলআউট হয়েছে ৭৪ রানে! এমন হারের দিনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেই এক জয়ের স্মৃতিচারণ করেছেন সাকিব। তিনি জানান, তার কাছে সবচেয়ে স্মরণীয় জয় হলো ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শ্রীলঙ্কা সিরিজ

৩১ জুলাই, ২০১৯
৩১ জুলাই, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন