Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ০৯ মে ২০২১, ২৬ বৈশাখ ১৪২৮, ২৬ রমজান ১৪৪২ হিজরী

সঙ্গীত শেখান আবার ধর্ষণ চর্চাও করেন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০২ এএম

ভারতের গুন্ডেচা ব্রাদার্স, শাস্ত্রীয় সংগীতশিল্পী হিসেবে বেশ নামডাক রয়েছে এদের। সুখ্যাতির কারণে অনেক শিক্ষার্থী ছিল রমাকান্ত, অখিলেশ, উমাকান্ত অর্থাৎ গুন্ডেচা ব্রাদার্সের। কিন্তু যৌন নিপীড়নের দেশ ভারতে কোথাও সুরক্ষিত নয় মেয়েরা। আর তারই ধারাবাহিকতায় ধর্ষণ, যৌন হেনস্থা, অশ্লীল অঙ্গভঙ্গিসহ একাধিক অভিযোগ উঠল গুন্ডেচা ভাইদের বিরুদ্ধে। তারা শিক্ষক হয়েও ভক্ষকের কাজ করেছেন। ছাড়েননি নিজেদের শিক্ষার্থীদেরও। সম্প্রতি পাঁচ নারী ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে জানান, তারা এই গুরুদের (গুন্ডেচা) প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানে যৌন নির্যাতন ও হয়রানির মুখোমুখি হয়েছেন। ভারতের মধ্যপ্রদেশে ‘ধ্রুপদী সংস্থান’ নামে ওই সঙ্গীত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের আরও অনেক নারী ওই ভাইদের বিরুদ্ধে একই অভিযোগ তুলেছেন। প্রয়াত শিল্পী রমাকান্তর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেছেন তারই এক শিক্ষার্থী। পাশাপাশি অন্য ২ ভাইয়ের বিরুদ্ধেও যৌন হেনস্থাসহ ধর্ষণের অভিযোগ করেছে আরও কয়েকজন শিক্ষার্থী। বিবিসিকে ধ্রুপদী সংস্থানে ধর্ষণের শিকার মনিকা (ছদ্মনাম) নামে এক শিক্ষার্থী জানান, রমাকান্ত গুন্ডেচা গাড়ির পেছনের সিটে বসে যৌন হেনস্থা করেন তাকে। তার জামা খোলার চেষ্টা করেন। প্রতিবাদ করার পরেও তাকে চুম্বন করেন রমাকান্ত। তার ৩ মাস পর তাকে (মনিকা) ধর্ষণ করেন রমাকান্ত। মনিকা জানিয়েছেন, তিনি ঘটনার স্মৃতি মুছে ফেলতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তিনি তখনই স্কুল ছেড়ে যাননি, কারণ তিনি সংগীত পছন্দ করেন। এ ছাড়াও তিনি নিজের সঞ্চিত সব অর্থ ওখানে শিক্ষার জন্য বিনিয়োগ করেছিলেন। এদিকে ভাইয়ের মতো একই স্বভাব অখিলেশ ও উমাকান্ত গুন্ডেচারও। তারাও লোলুপ দৃষ্টিতে চাইতেন মেয়ে শিক্ষার্থীদের দিকে। প্রায়শই অশ্লীল মেসেজ পাঠাতেন নিজেদের শিক্ষার্থীদের ফোনে। জোর করে শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেওয়ার চেষ্টা আর কুরূচিপূর্ণ অঙ্গভঙ্গি তো নিত্যনৈমিত্তিক কাজ ছিল তাদের। যদিও ওই ভাইয়েরা স্বভাবতই এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। ওই নারী শিক্ষার্থীদের এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে ‘লম্পট’ তিন গুন্ডেচার বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। তবে ২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে মারা যান রমাকান্ত। অথচ এই যৌন নিপীড়ক রমাকান্ত ও উমাকান্ত দুই ভাইকে ২০১২ সালে পদ্মশ্রী উপাধী দেয় ভারত। তবে এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসার ভারতের অনেক তারকা সঙ্গীতশিল্পী গুন্ডেচাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানান। বিভিন্ন অনুষ্ঠান থেকে বয়কট করা হয় ‘লম্পট’ গুন্ডেচাদের। বিবিসি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ধর্ষণ


আরও
আরও পড়ুন