Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ০১ জৈষ্ঠ্য ১৪২৮, ০২ শাওয়াল ১৪৪২ হিজরী

যুক্তরাষ্ট্রে নতুন সংক্রমণের অর্ধেকই ৫ রাজ্যে

১৯ এপ্রিলের মধ্যে প্রাপ্তবয়স্ক সব মার্কিন নাগরিক ভ্যাকসিন পাবে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০৪ এএম

যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রায় অর্ধেকই ঘটছে দেশটির মাত্র পাঁচটি রাজ্যে। জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটির ডাটা উদ্ধৃত করে মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম এপি। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে করোনার হটস্পটগুলোতে ভ্যাকসিনেশন কর্মসূচি আরও জোরদার করতে সরকারের ওপর চাপ বাড়ছে। যে পাঁচ রাজ্যে সর্বোচ্চ সংখ্যক রোগী শনাক্ত হয়েছে সেগুলো হলো নিউ ইয়র্ক, মিশিগান, ফ্লোরিডা, পেনসিলভানিয়া ও নিউ জার্সি। গত এক সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রে চার লাখ ৫২ হাজারেরও বেশি মানুষের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে শুধু এই পাঁচ রাজ্যেই এক লাখ ৯৭ হাজারেরও বেশি মানুষের শরীরে এ ভাইরাস ধরা পড়েছে। অর্থাৎ, গত এক সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে যত মানুষের করোনা শনাক্ত হয়েছে তার ৪৪ শতাংশই হয়েছে এই পাঁচ রাজ্যে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আগামী ১৯ এপ্রিলের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সব প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিকের জন্য ভ্যাকসিন সরবরাহ নিশ্চিতের ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। মঙ্গলবার ওয়াশিংটনের অদূরে ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যের শহরতলী এলাকায় একটি টিকাদান কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে হোয়াইট হাউসে ফিরে এই ঘোষণা দেন তিনি। জো বাইডেন জানান, ১৯ এপ্রিলের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যেক প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিক টিকা পাওয়ার জন্য উপযুক্ত হিসেবে বিবেচিত হবেন। এর আগে এই সময়সীমা ছিল ১ মে। তবে মঙ্গলবার বাইডেন এটি আরও দুই সপ্তাহ এগিয়ে আনার ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, ‘আর কোনও বিভ্রান্তিকর নিয়ম নয়। আর কোনও বিভ্রান্তিকর বিধিনিষেধ নয়। ১৯ এপ্রিলের মধ্যে ১৮ বছর কিংবা তদুর্ধ্ব বয়সের সবাই ভ্যাকসিন পাওয়ার উপযুক্ত হিসেবে বিবেচিত হবেন। গত সপ্তাহেই বাইডেন জানিয়েছিলেন, যুক্তরাষ্ট্রে প্রাপ্তবয়স্কদের ৯০ শতাংশই ১৯ এপ্রিলের মধ্যে টিকা পাওয়ার উপযোগী হিসেবে বিবেচিত হবেন। তবে মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে শতভাগ প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিকদের জন্য এটি উন্মুক্ত করে দেওয়ার কথা জানান তিনি। জো বাইডেন জানান, ১৯ এপ্রিলের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যেক প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিক টিকা পাওয়ার জন্য উপযুক্ত হিসেবে বিবেচিত হবেন। এর আগে এই সময়সীমা ছিল ১ মে। তবে মঙ্গলবার বাইডেন এটি আরও দুই সপ্তাহ এগিয়ে আনার ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, ‘আর কোনও বিভ্রান্তিকর নিয়ম নয়। আর কোনও বিভ্রান্তিকর বিধিনিষেধ নয়। ১৯ এপ্রিলের মধ্যে ১৮ বছর কিংবা তদূর্ধ্ব বয়সের সবাই ভ্যাকসিন পাওয়ার উপযুক্ত হিসেবে বিবেচিত হবেন। গত সপ্তাহেই বাইডেন জানিয়েছিলেন, যুক্তরাষ্ট্রে প্রাপ্তবয়স্কদের ৯০ শতাংশই ১৯ এপ্রিলের মধ্যে টিকা পাওয়ার উপযোগী হিসেবে বিবেচিত হবেন। তবে মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে শতভাগ প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিকদের জন্য এটি উন্মুক্ত করে দেওয়ার কথা জানান তিনি। জরিপে অবশ্য দেখা গেছে যে, ২০ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ নানা কারণে ভ্যাকসিন নিতে অস্বীকৃতি জানাচ্ছেন। কেউ কেউ বলছেন এটা অপ্রয়োজনীয়। কেউ বলছেন এটি ক্ষতিকর হতে পারে। আবার কেউ সরকার পরিচালিত এই কর্মস‚চির ওপর আস্থা রাখতে পারছেন না। যারা টিকা নিয়েছেন তাদের অধিকাংশই উল্লেখযোগ্য রকমের কোনও প্রতিক্রিয়ার কথা জানাননি। অনেকে আবার দুই একদিনের জন্য খুব সাময়িক প্রতিক্রিয়ার কথা জানিয়েছেন। তবে ভ্যাকসিন বিরোধীরা বহুদিন ধরেই টিকা নেওয়ার বিরোধিতা করে আসছেন। ২০২১ সালের ২০ জানুয়ারি মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথগ্রহণ করেন জো বাইডেন। দায়িত্ব গ্রহণের আগেই ভ্যাকসিন নেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রে ভ্যাকসিনেশন কর্মস‚চির প্রথম দিকে শুধু বয়স্ক লোকজন এবং ফ্রন্টলাইন স্বাস্থ্যকর্মীদের টিকা দেওয়া হতো। তবে সরকারের নতুন সিদ্ধান্তের ফলে সেই সীমাবদ্ধতা আর থাকছে না। বরং প্রাপ্তবয়স্ক প্রত্যেক নাগরিকের ভ্যাকসিন নেওয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছে। সিএনএন, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাষ্ট্র


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ