Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ০৯ বৈশাখ ১৪২৮, ০৯ রমজান ১৪৪২ হিজরী

বাংলাদেশেও দাঙ্গা বাধিয়ে এসেছেন মোদি

অভিযোগ মমতা ব্যানার্জির

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০১ এএম

বাংলাদেশে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সা¤প্রতিক সফরকে ঘিরে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য রাজনীতিতে তর্কবিতর্ক চরমে উঠেছে। সে রাজ্যে নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর সময় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি অভিযোগ করেছেন, অল্প সময়ের জন্য বাংলাদেশে গিয়েও ‘নরেন্দ্র মোদি সেখানে দাঙ্গা বাধিয়ে দিয়ে এসেছেন’। ওই সফরে গিয়ে মি. মোদি আসলে পশ্চিমবঙ্গে ভোটের প্রচারই চালিয়েছেন, মিস ব্যানার্জি এর আগেও এ অভিযোগ করেছিলেন। বিজেপি অবশ্য যথারীতি এ অভিযোগ নস্যাৎ করছে এবং প্রকাশ্যেই বলছে, বাংলাদেশের অত্যাচারিত হিন্দুদের জন্য সহমর্মিতা দেখানোতে কোনো অন্যায় নেই।

মাত্র দু’দিনের রাষ্ট্রীয় সফর সেরে নরেন্দ্র মোদি বাংলাদেশ থেকে ফিরে এসেছেন তাও প্রায় দু’সপ্তাহ হতে চলল - কিন্তু ওই সফরকে ঘিরে এখনও আলোড়িত হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনী রাজনীতি। মি. মোদির সফরের সময় বাংলাদেশের নানা প্রান্তে যে সহিংস বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ হয়েছে, তার প্রতি ইঙ্গিত করে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেসের নেত্রী মমতা ব্যানার্জি রোববার বিকেলে হুগলী জেলার খানাকুলে এক জনসভায় প্রধানমন্ত্রীকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করেন। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আপনি আগে দিল্লি গিয়ে দিল্লিটা সামলান তো! দিল্লির তো সর্বনাশ করে দিয়ে এসেছেন’! ‘তিনদিনের জন্য বাংলাদেশ গিয়েছিলেন। ওখানে গিয়েও দাঙ্গা লাগিয়ে দিয়ে এসেছেন। আগে নিজেকে সামলান’! ‘আর আপনি নিজেকে কী ভাবেন? অতিমানব না কি ঈশ্বর? দাঙ্গা করে, খুন করেই আবার আপনাদের চোখ দিয়ে জল পড়ে! ভালো নাটকও করতে জানেন আপনারা’! বলেন মিস ব্যানার্জি।

এর আগেও মমতা ব্যানার্জি অভিযোগ করেছিলেন, বাংলাদেশ সফরে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদি আসলে পশ্চিমবঙ্গের ভোটের প্রচার চালাচ্ছেন - তাই তার সে দেশের ভিসা বাতিল করা উচিত। যশোর ও গোপালগঞ্জে হিন্দুদের দুটি মন্দিরে মি. মোদির সফরের পটভ‚মিতেই তিনি ওই মন্তব্য করেন।

পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির সিনিয়র নেতা ও মুখপাত্র ও শমীক ভট্টাচার্য অবশ্য দাবি করছেন, বিদেশ সফরে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী অভ্যন্তরীণ রাজনীতির তাস খেলেছেন, মানুষ সে কথা বিশ্বাস করবেন না। মি. ভট্টাচার্য বিবিসি বাংলাকে বলছিলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গের মানুষের ডিএনএ-তে রাজনীতি আছে। তারা খুব ভালই জানেন দেশের প্রধানমন্ত্রী বা পররাষ্ট্রমন্ত্রী যখন কোনও বিদেশ সফরে থাকেন, তখন তাদের কোনও পদক্ষেপ নিয়ে দেশের ভেতরে প্রশ্ন তোলা বা বিবৃতি দেয়া যায় না’। ‘কিন্তু তৃণমূল এসব রাজনৈতিক শিষ্টাচারের কোনও ধার ধারে না’।
বিজেপি নেতৃত্ব হিন্দুদের প্রতি সংহতির কথা বললেও কলকাতার দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা কিন্তু তাদের সম্পাদকীয়তে সরাসরি লিখেছে, তার ‘কোভিডকালীন প্রথম বিদেশ সফরকে নরেন্দ্র মোদি যে ঘরোয়া রাজনীতির স্বার্থেই› ব্যবহার করেছেন - তা একেবারে স্পষ্ট।

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক অভীপ্সু হালদারও বিবিসিকে বলছিলেন, বিজেপি যে দেশের ভেতরে এই সফরের রাজনৈতিক ফায়দা তোলার চেষ্টা করছে তাতে কোনও ভুল নেই। অধ্যাপক হালদারের কথায়, ‘পশ্চিমবঙ্গের যে কেন্দ্রগুলোতে মতুয়া হিন্দুদের ভোট আছে, প্রধানমন্ত্রীর মতুয়া তীর্থদর্শন সেগুলোতে তাদের ভাবাবেগ বা সেন্টিমেন্ট কাছে টেনে বিজেপিকে সুফল এনে দেবে, এমনটা ভাবা যেতেই পারে’। ‘দ্বিতীয়ত হল ভারতের ইমিগ্রেশন পলিসি বা অভিবাসন নীতি। দেশের শাসক দল যে এ নীতি নিয়ে নতুন করে চিন্তাভাবনা করছে এবং এর নৈতিকতা খতিয়ে দেখছে সেটাও আমরা জানি’।

‘সেই ভাবনারই প্রতিফলন হল ভারতের নতুন নাগরিকত্ব আইন। সেটারই সূত্রে কিন্তু সার্বিকভাবে বাংলাদেশ নিয়ে বা মতুয়াদের নিয়ে ভোটে এত মাতামাতি হচ্ছে বলে আমার ধারণা’। ‘জাতপাত ও ধর্ম নিয়ে একটা রাজনৈতিক মেরুকরণ যে চলছে, তারও একটা ব্যাখ্যা আমরা এখানে পেতে পারি’, বলছিলেন অভীপ্সু হালদার। মূলত এ ধর্মভিত্তিক রাজনীতি আর অভিবাসন বিতর্কের কারণেই পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে এবারে বাংলাদেশ প্রসঙ্গ এত প্রবলভাবে আলোচিত হচ্ছে।

রাজ্য প্রথম পর্বের ভোটগ্রহণের দিনে মি. মোদি সশরীরে বাংলাদেশে থাকায় সে আলোচনা যথারীতি আরও ইন্ধন পেয়েছে। সূত্র : বিবিসি বাংলা।



 

Show all comments
  • Md Rakib Islam ৮ এপ্রিল, ২০২১, ১২:৩৪ এএম says : 0
    বিষয়টাতো আসলে তেমনই হয়েছে।বাংলাদেশে বেশ একটা খুশীর আমেজ ছিল, চার দেশের চারজন রাষ্ট্র ও সরকার প্রধান এলেন, দেশবাসীও তাঁদের পেয়ে খুশী হলো।সুন্দর ও আনন্দমূখর পরিবেশে তাঁরা সফর শেষ করে ভালোভাবে ফিরেও গেলেন।কিন্তু উনি আসার পরেই আমাদের শান্ত পরিবেশটা সহিংস হয়ে গেলো! যার জের এখনও শেষ হয়নি।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Abir Ahmed ৮ এপ্রিল, ২০২১, ১২:৩৫ এএম says : 0
    ঠিক কথা বলছেন
    Total Reply(0) Reply
  • Îttesaf Ar Mahmud ৮ এপ্রিল, ২০২১, ১২:৩৫ এএম says : 1
    শুধু দাঙ্গাই নয় বাংলাদেশি আলেম ওলামাদের মুখে চুন কালি লাগিয়ে ছেড়ে দিতেছেন সরকারকে ব্যাবহার করে৷
    Total Reply(0) Reply
  • Al-Amin Mohammad ৮ এপ্রিল, ২০২১, ১২:৩৫ এএম says : 0
    ইন্ডিয়ান রা বুঝলেও দেশিও কিছু বিশেষ প্রজাতির প্রাণীরা বুঝতে চায় না।
    Total Reply(0) Reply
  • Muhammed Washim ৮ এপ্রিল, ২০২১, ১২:৩৬ এএম says : 0
    সাথে কিছু বীজ বুনে দিয়ে গেছেন,,,, সেগুলো দুদিনে বাচ্চা ফুটে হেলমেট পড়া শিখে গেছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Pritam Datta ৮ এপ্রিল, ২০২১, ১২:৩৬ এএম says : 0
    পুরোপুরি সত্য বলেছেন।
    Total Reply(0) Reply
  • Tofazzal Hossain ৮ এপ্রিল, ২০২১, ১২:৩৬ এএম says : 0
    মমতা ভারতীয় হয়ে সত্য কথা বললো কিন্তু দেশের লোক
    Total Reply(0) Reply
  • অচেনা মানুষ তুমি ৮ এপ্রিল, ২০২১, ১২:৩৭ এএম says : 0
    মিছিলে, সমাবেশে গুলি করা এটা সরকারের ফ্যাশনে / শিল্পে পরিনিত হয়েছে।জাস্ট কসাই মোদি শিল্পটাকে একটু তরান্বিত করেছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Alamin ৮ এপ্রিল, ২০২১, ১২:৩২ পিএম says : 0
    ভারতে মুসলমানদের রক্ত চুসে এবার বাংলাদেশের দিক নজর দিয়েছে যার বাস্তব নজির মিললো তার এর সফরে।।।।
    Total Reply(0) Reply
  • Alamin ৮ এপ্রিল, ২০২১, ১২:৩৩ পিএম says : 0
    ঠিক
    Total Reply(0) Reply
  • habib ৮ এপ্রিল, ২০২১, ১:৪৪ পিএম says : 0
    Egulo Awamleuge bujhe na
    Total Reply(0) Reply
  • Aziz ৮ এপ্রিল, ২০২১, ৫:০৫ পিএম says : 0
    Kosai modi ekta nirlojjo behaia. Modir karone deshe danga lagse ar moi etai chai jeno desher manush nijera bibad kor more. Ekhon porjonto khuni modir ja obostha tate to bujha jai she je agune purbe.tokhon khela bujbe
    Total Reply(0) Reply
  • Jalal sheikh ৮ এপ্রিল, ২০২১, ৬:০৫ পিএম says : 0
    Modir to dari rakse ar panjabi pore . Modi oto jongi karon dari tupi panjabi manei to jongi.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত

২২ এপ্রিল, ২০২১
২১ এপ্রিল, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ