Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯, ০৭ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

বর্জ্যরে অভাবে চালু হচ্ছে না কেন্দ্রীয় শোধনাগার পবা

প্রকাশের সময় : ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

অর্থনৈতিক রিপোর্টার : সাভার চামড়া শিল্পনগরীতে কেন্দ্রীয় বর্জ্য শোধনাগার (সিইটিপির) বর্জ্যরে অভাবে চালু হচ্ছে না বলে জানিয়েছে পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন (পবা)। গতকাল বৃহস্পতিবার পবা কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। পাশাপাশি ট্যানারি স্থানান্তরে ব্যর্থ শিল্প মালিকদের প্লট বাতিলসহ গ্যাস, পানি, বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করা এবং বিদ্যমান আইনে সংশ্লিষ্ট মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছে পবা।
পবার পরিদর্শন ও পর্যবেক্ষণ দলের দেয়া তথ্যানুযায়ী, সিইটিপির দু’টি মডিউলের নির্মাণকাজ সম্পন্ন হয়েছে। সিইটিপির বাকি দু’টি মডিউলের নির্মাণকাজ ধীরগতিতে চলছে। এদিকে ট্যানারির বর্জ্য তিনটি ইপিএসের (বর্জ্য পাম্পিং স্টেশন) মাধ্যমে সিইপিটিতে যাবে। বর্জ্য ইপিএস হয়ে সিইটিপিতে যাওয়ার পাইপ স্থাপন করা হয়েছে। তবে ২ নম্বর ইপিএসের নির্মাণকাজ সম্পন্ন হলেও ১ নম্বর ইপিএসের নির্মাণকাজ চলছে এবং ৩ নম্বর ইপিএসের নির্মাণকাজ অত্যন্ত ধীরগতিতে চলছে।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ৩৯টি ট্যানারিতে ট্যানিং ড্রাম স্থাপনের কাজ চলছে। ছয়টি প্রতিষ্ঠানে উৎপাদন শুরু হয়েছে। সিসিআরইউ চালু না হওয়ায় ক্রোমিয়াম মিশ্রিত বর্জ্য শিল্প প্রতিষ্ঠানে সংরক্ষণ করা হচ্ছে। ইপিএস-১ সম্পন্ন না হওয়ায় পাইপের মাধ্যমে বর্জ্য ইপিএস-২ এ নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এছাড়া বিদ্যুৎ সংযোগের ক্ষেত্রে শিল্প প্রতিষ্ঠানে সাবস্টেশন নির্মাণ এবং পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিতে ১৪২টি ট্যানারি আবেদন করেছে। ১৩২টি প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ডিমান্ড নোট ইস্যুর পর ২৬টি প্রয়োজনীয় অর্থ জমা দিয়েছে। ১৭টি প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুৎ সাবস্টেশনের মধ্যে কিছু সংখ্যক নির্মাণ করা হয়েছে এবং কিছু নির্মাণাধীন।
এদিকে উৎপাদন কার্যক্রম পরিচালিত ট্যানারির তরল বর্জ্য পাইপের মাধ্যমে সিইটিপিতে ফেলা হলেও কঠিন বর্জ্য ধলেশ্বরী নদীর পাড়ে, প্রকল্প কার্যালয়ের রাস্তার দু’পাশে ও আবাদি জমিতে ফেলা হচ্ছে। এর ফলে এলাকার পরিবেশ এবং ধলেশ্বরী নদী দূষণ ও ভরাট হচ্ছে। অন্যদিকে যে ৩৯টি শিল্প প্রতিষ্ঠানে ট্যানিং ড্রাম স্থাপনের কাজ চলছে তার প্রায় সবগুলোতেই বিদ্যুৎ সাবস্টেশনের নির্মাণকাজ শুরু হয়নি। ফলে সবকিছু প্রস্তুত হলেও বিদ্যুতের অভাবে শিল্প প্রতিষ্ঠান চালু করা সম্ভব হবে না বলে জানিয়েছে পবা।
পবার চেয়ারম্যান আবু নাসের খানের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পবার সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মো: আবদুস সোবহান। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন পবার সহ-সম্পাদক মো: নজরুল ইসলাম, স্থপতি শাহীন আজিজ, সমন্বয়কারী আতিক মোরশেদ প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বর্জ্যরে অভাবে চালু হচ্ছে না কেন্দ্রীয় শোধনাগার পবা
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ