Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ২৩ বৈশাখ ১৪২৮, ২৩ রমজান ১৪৪২ হিজরী

কেন্দ্রীয় পুলিশের গুলিতে ৪ তৃণমূল কর্মীর মৃত্যু

পশ্চিমবঙ্গে ভোটকেন্দ্রে সহিংসতা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০০ এএম

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহারে রাজ্য বিধানসভার চতুর্থ দফার নির্বাচনে কেন্দ্রীয় পুলিশের গুলিতে ৪ তৃণমূল কর্মীর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল সকালে কোচবিহারের শীতলকুচির জোড়পাটকির ১২৬ নম্বর বুথের সামনে তৃণমূল এবং বিজেপি সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় সিএপিএফের (সেন্ট্রাল আর্মড পুলিশ ফোর্স) গুলিতে চার ব্যক্তির প্রাণ হারান।
এ ঘটনায় রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছে নির্বাচন কমিশন। কমিশন জানিয়েছে, সিআরপিএফ নয়, গুলি চালিয়েছে সিএপিএফ (সেন্ট্রাল আর্মড পুলিশ ফোর্স)। এর আগে সকালে পাঠানটুলি শালবাড়ির ২৮৫ বুথে ভোট দিতে গিয়ে আনন্দ বর্মণ নামের এক ১৮ বছরের কিশোরের মৃত্যু হয়। তার পরিবারের লোকজন নিজেদের বিজেপি সমর্থক বলে দাবি করে। অন্যদিকে, আনন্দ তাদের সমর্থক বলে দাবি করেছে তৃণমূল।
এদিকে শীতলকুচিতে চারজন নিহতের ঘটনায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর ভ‚মিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। স্থানীয় তৃণমূল কর্মীদের অভিযোগ, কেন্দ্রীয়বাহিনী বিজেপির হয়ে কাজ করছে। রাতভর মদ-মাংস খেয়ে সকালে নির্বিচারে গুলি চালিয়েছে। সুষ্ঠ নির্বাচন করানোর ভার যাদের কাঁধে, তাদের নির্বিচারে গুলি চালানোর অধিকার কে দিয়েছে, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে তৃণমূল। স্থানীয় এক তৃণমূল কর্মী বলেন, দলে দলে মানুষ ভোট দিতে যাচ্ছিলেন। সেই সময় বিনা প্ররোচনায় গুলি চালায় কেন্দ্রীয় বাহিনী।’ বুথের ভেতরে যে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন ছিল, তারাই এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে তৃণমূল।
এদিকে, কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে ৪ মুসলমানের মৃত্যুতে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি এ ঘটনায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকেই দায়ী করে তার পদত্যাগের দাবি জানান। মমতা বলেন, ‘আমি প্রথম দিন থেকে বলে আসছি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর চক্রান্তে কাজ করছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। আর আজকে প্রমাণ হয়ে গিয়েছে শীতলকুচির ঘটনায়। আমাদের কর্মীদের গুলি করে মারছে। সাধারণ মানুষকে মারছে। কী অন্যায় করেছিল ওই চারজন? কেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাধারণ মানুষের ওপর অত্যাচার নামিয়ে আনার নির্দেশ দিচ্ছেন?’
সূত্র : আনন্দবাজার।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন