Inqilab Logo

সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ০২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৪ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

উত্তর কোরিয়া পরমাণু পরীক্ষা চালিয়েছে বলে দক্ষিণের সন্দেহ

প্রকাশের সময় : ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

পারমাণবিক স্থাপনার কাছাকাছি এলাকায় ৫ দশমিক ৩ মাত্রার ভূমিকম্প অনুভূত
ইনকিলাব ডেস্ক : উত্তর কোরিয়া এ যাবতকালের সবচেয়ে বড় পারমাণবিক পরীক্ষা চালিয়েছে বলে দক্ষিণ কোরিয়ার পক্ষ থেকে সন্দেহ প্রকাশ করা হয়েছে। একই সাথে এটি উত্তর কোরিয়ার পঞ্চম পারমাণবিক পরীক্ষা বলেও দাবি করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার ৫.৩ মাত্রার ভূকম্পন অনুভূত হওয়ার পর দক্ষিণ কোরিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর প্রধানদের পক্ষ থেকে এ দাবি করা হয়। অবশ্য, উত্তর কোরিয়া এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে মন্তব্য করেনি। এদিকে উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক পরীক্ষা নিয়ে তাৎক্ষণিক নিন্দা জানিয়েছে জাপান। আর যুক্তরাষ্ট্র বলছে, তারা বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। খবরে বলা হয়, উত্তর কোরিয়ায় একটি পারমাণবিক স্থাপনার কাছে ৫ দশমিক ৩ মাত্রার ভূমিকম্প হয়েছে। পারমাণবিক বোমার বিস্ফোরণেই এই ভূকম্পন হয়েছে বলে সন্দেহ করছে দক্ষিণ কোরিয়া। উত্তর কোরিয়ার পানজি-রি পারমাণবিক স্থাপনার কাছে ভূকম্পন হয়। দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদ সংস্থা ইয়োনহাপ বলছে, এটি কৃত্রিম ভূকম্পন। আর পরিচয় প্রকাশে অনিচ্ছুক দক্ষিণ কোরিয়ার একটি সূত্র বলছে, পারমাণবিক বোমার বিস্ফোরণের কারণেই এমন ভূমিকম্প হয়েছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। এর আগেও উত্তর কোরিয়া নিজেদের সামরিক সক্ষমতা প্রদর্শনে পারমাণবিক বোমার বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। তবে আজকের ভূমিকম্প পারমাণবিক বোমার কারণেই কি না, তা নিশ্চিত করেনি উত্তর কোরিয়া। অবশ্য এর আগে পানজি-রি পারমাণবিক স্থাপনার কাছে যত ভূকম্পন দেখা গেছে, এর সবকটিই বোমার বিস্ফোরণের কারণে হয়েছে। উত্তর কোরিয়া আগের পারমাণবিক বোমাগুলোর পরীক্ষা চালিয়েছে পানজি-রি স্থাপনার কাছে। আর সম্প্রতি স্যাটেলাইটে তোলা স্থাপনার ছবিতে সেখানে বেশ কার্যক্রম চলতে দেখা যায়। যুক্তরাষ্ট্রের ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা ইউএসজিএস বলছে, কোনো বিস্ফোরণে’র কারণেই এমন ভূকম্পন দেখা গেছে। তবে বিস্ফোরণ ও বোমার ধরন সম্পর্কে তারা নিশ্চিত নয়। ভূমিকম্পটি পারমাণবিক বোমার বিস্ফোরণের হতে পারে। আর তা বাস্তব হলে এটি হবে উত্তর কোরিয়ার পঞ্চম পারমাণবিক বোমার বিস্ফোরণ। যুক্তরাষ্ট্রের মিডলবুরি ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজের উত্তর কোরিয়া বিশ্লেষক জেফরি লুইস বলেন, ধরন দেখে বোঝা যায়, আজ অন্তত ২০ থেকে ৩০ কিলোটন বোমার বিস্ফোরণ ঘটানো হয়ে থাকতে পারে। পারমাণবিক বোমার কথা নিশ্চিত করা হলে এটিই হবে উত্তর কোরিয়ার ইতিহাসে সবচেয়ে বড় আণবিক বোমার বিস্ফোরণ। পারমাণবিক বোমা ও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার পরিপ্রেক্ষিতে উত্তর কোরিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে জাতিসংঘ। তবে এই নিষেধাজ্ঞার পরও এমন পরীক্ষা অব্যাহত রেখেছে উত্তর কোরিয়া। সর্বশেষ চলতি বছরের জানুয়ারিতে হাইড্রোজেন বোমার বিস্ফোরণ ঘটায় উত্তর কোরিয়া। এদিকে উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক পরীক্ষার নিন্দা জানিয়ে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে বলেন, উত্তর কোরিয়া যদি পারমাণবিক পরীক্ষা চালিয়ে থাকে তবে আমরা তা একেবারেই উপেক্ষা করতে পারি না। আমাদেরকে কঠোরভাবে প্রতিবাদ করতে হবে। আর যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, তারা খবরটি খতিয়ে দেখছে। রয়টার্স, বিবিসি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উত্তর কোরিয়া পরমাণু পরীক্ষা চালিয়েছে বলে দক্ষিণের সন্দেহ
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ