Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২০ জানুয়ারি ২০২১, ০৬ মাঘ ১৪২৭, ০৬ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

চেচনিয়ায় প্রচন্ড দমননীতিতে পরিস্থিতির ভয়াবহ অবনতি

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের রিপোর্ট

প্রকাশের সময় : ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : শীর্ষস্থানীয় মানবাধিকার গ্রুপ হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ) চেচনিয়ায় ভিন্ন মতাবলম্বীদের উপর প্রচন্ড দমন নীতি চলার অভিযোগ করে বলেছে, সেখানে পরিস্থিতির ভীষণ অবনতি ঘটা অব্যাহত রয়েছে। ক্রেমলিনের নিয়োগকৃত আঞ্চলিক চেচেন নেতা রমজান কাদিরভ রাশিয়ার উত্তর ককেশাস অঞ্চলের এ প্রজাতন্ত্রটি লৌহমুষ্টিতে শাসন করছেন।
১ সেপ্টেম্বর ‘মাইন ক্ষেত্রের মধ্য দিয়ে হাঁটার মতো রাশিয়ার চেচেন প্রজাতন্ত্রে সমালোচকদের উপর চলছে নির্মম দমন’ নামে প্রকাশিত ৫৬ পৃষ্ঠার রিপোর্টে এইচআরডব্লিউ বর্ণনা করেছে কীভাবে কেউ চেচেন নেতৃত্ব ও তার রাজনীতির প্রতি অসন্তোষ ব্যক্ত করলে বা প্রশংসা করতে অনীহা প্রকাশ করলে তাদের শাস্তি দেয়া হয় ও লাঞ্ছিত করা হয়। সেখানে সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মীদের উপর হুমকি, হামলার পাশাপাশি তাদের আটকের ঘটনাও ঘটছে।
ক্রেমলিন চেচনিয়া শাসনের জন্য রমজান কাদিরভকে নিয়োগ ও পুনর্নিয়োগ করেছে। ১৮ সেপ্টেম্বর চেচনিয়ার শীর্ষ পদে প্রথমবারের জন্য সরাসরি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কাদিরভ তাতে প্রার্থী।
রিপোর্টে বলা হয়, চেচনিয়া যে কাদিরভ সম্পূর্ণরূপে নিয়ন্ত্রণ করেন সে কথা মনে করিয়ে দেয়ার জন্যই চেচেন জনগণের উপর ক্রমবর্ধমানভাবে দমন-নির্যাতন চালানো হচ্ছে। একই সাথে চেচনিয়া থেকে কাদিরভ বিরোধী কোনো খবর বেরিয়ে গিয়ে তার প্রতি ক্রেমলিনের সমর্থন যেন হ্রাস না পায়, সে পথ বন্ধ করাও এ দমনের লক্ষ্য।
দমনের শিকার চেচেন নাগরিক, মানবাধিকার কর্মী, সাংবাদিক, আইনজীবীসহ ৪০ জনেরও বেশি মানুষ ও বিশেষজ্ঞের সাক্ষাতকারের ভিত্তিতে এইচআরডব্লিউর এ রিপোর্ট প্রণীত হয়েছে।
রিপোর্টে গ্রোজনি স্টেট ওয়েল টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটির অর্থনীতির অধ্যাপক খিজির এজিয়েভের কথা বলা হয়েছে। একটি রুশ সামাজিক মিডিয়া সাইটে রুদ্ধ আলোচনায় তিনি কাদিরভ সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করায় গত ডিসেম্বরে অজ্ঞাত পরিচয় বন্দুকধারীরা তাকে অপহরণ করে। এ বছর প্রথম দিনে গ্রোজনি থেকে প্রায় ৪০ কিমি দূরে একটি বনের মধ্যে তার ক্ষতবিক্ষত লাশ পাওয়া যায়।
চেচনিয়া বিষয়ক রিপোর্টটি তৈরি করেছেন এইচআরডব্লিউর রাশিয়া প্রোগ্রাম ডিরেক্টর ও মস্কো ভিত্তিক সিনিয়র গবেষক তানিয়া লকসিনা। তিনি ভয়েস অব আমেরিকার রুশ সার্ভিসকে বলেন যে চেচেন কর্তৃপক্ষ তাদের জনগণের উপর মারাত্মক নিপীড়ন চালাচ্ছে।
তিনি বলেন, এটা বলা জরুরি যে গত ছয় বছরেরও বেশি সময় চেচনিয়া পরিস্থিতির সামান্যতম সমালোচনা করলেও সে নির্মম দমনের শিকার হচ্ছে। আমরা সবাই জানি যে কাদিরভ রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিকভাবে ক্রেমলিনের উপর নির্ভরশীল। সে সাথে তিনি উদ্বেগের মধ্যেও থাকেন, কারণ তিনি জানেন যে ক্রেমলিন নেতৃত্বের একটি অংশ তার উপর সন্তুষ্ট নয়। কাদিরভ তাই চেচনিয়া থেকে কোনো সংবাদ বের হতে দেন না। তিনি নিশ্চিত যে চেচনিয়া থেকে কোনো নেতিবাচক সংবাদ যদি বেরিয়ে না যায় তাহলে তিনি নিরাপদ। তার নীতি হচ্ছে, কোনো নেতিবাচক সংবাদ বাইরে যাবে না, কোনো সমস্যা হবে না।
লকসিনার মতে, গত ছয়মাস ধরে কেন্দ্রীয় কর্তৃপক্ষ কাদিরভের প্রতি কিছু অসন্তোষ প্রকাশ করে আসছে। তাকে উপেক্ষা করা যায় না। কারণ, কাদিরভের শাসনামলে এবারই প্রথম এ রকম ঘটছে।
প্রায়ই চেচনিয়া সফরকারী লকসিনা বলেন, চেচনিয়া নেতৃত্বের ন্যূনতম সমালোচনার জন্য যে নিপীড়ন করা হয় তা বহু মানুষের জন্য এক দুঃসহ পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। এ অবস্থা রাশিয়ার সাথে চেচনিয়ার দু’টি যুদ্ধের সময়কালের চেয়েও ভয়াবহ। তখন হাজার হাজার চেচেন নিহত হয়।
তিনি বলেন, আমি ক্রমবর্ধমানভাবে মানুষের নিকট থেকে অভিযোগের পর অভিযোগ শোনার পর এ রিপোর্ট তৈরির কাজ শুরু করি। সবারই একই অভিযোগ। যুদ্ধ ছিল ভয়াবহ, বোমাবর্ষণ, গোলাবর্ষণ, অপহরণ ও নিখোঁজ। রুশ সেনাবাহিনীর নির্মম হামলা ছিল দুঃস্বপ্ন। তারপরও আমরা কোনো ভাবে প্রাণে রক্ষা পেয়ে সম্মান নিয়ে বেঁচেছিলাম। কিন্তু এখন পরিস্থিতি এমন শ্বাসরুদ্ধকর যে আমাদের কিছু করার নেই, আমাদের সম্মান কেড়ে নেয়া হয়েছে। আমাদের এখন কোনো মর্যাদা নেই। সূত্র ঃ ভয়েস অব আমেরিকা নিউজ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চেচনিয়ায় প্রচন্ড দমননীতিতে পরিস্থিতির ভয়াবহ অবনতি
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ