Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১২ জুন ২০২১, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ৩০ শাওয়াল ১৪৪২ হিজরী

পাহাড়ের পাদদেশে ভাঙাচোরা ঘরে পাতলা মাদুরে দিন কাটছে সু চির দলের আইন প্রণেতাদের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ এপ্রিল, ২০২১, ২:৩৮ পিএম

গত ১ লা ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী। এর পরপরই গ্রেফতার আর সেনা হয়রানি থেকে বাঁচতে প্রায় ১২ জন আইনপ্রণেতা ভারতের মিজোরামে পালিয়ে যান। সেখানে সীমান্তবর্তী পাহাড়ের পাদদেশে ভাঙাচোরা একটি ঘরে তারা এখন অবস্থান করছেন। ভেতরে আসবাব বলতে ঘুমানোর জন্য একটি পাতলা মাদুর। তাতেই দিনযাপন করতে হচ্ছে তাদের।

উক্ত আইনপ্রণেতারা নিজ দেশের সামরিক শাসকের বিরুদ্ধে অন্তর্বর্তীকালীন বেসামরিক সরকার গঠন করায় ইতোমধ্যে সামরিক জান্তা এই সরকারের সদস্যদের দেশদ্রোহী আখ্যা দিয়েছে। ভারতে আশ্রয় নেওয়া আইনপ্রণেতাদের অধিকাংশই গৃহবন্দি নেতা অং সান সু চির দলের সদস্য। সম্প্রতি বার্তা সংস্থা রয়টার্স এদের মধ্যে তিনজনের সঙ্গে কথা বলেছে।

দুই আইনপ্রণেতা জানিয়েছেন, গ্রেপ্তারের ভয় এবং ইন্টারনেট সংযোগ সেনারা বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ায় ভারতে থেকে তারা কাজ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এদের একজন বলেছেন, ‘আর সময় নেই। আমাদের দেশে মানুষ মরছে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা চীন, থাইল্যান্ড ও প্রতিবেশী দেশগুলোর ওপর আস্থা রাখতে পারি না। ভারতই হচ্ছে একমাত্র দেশ যেখানে শরণার্থীদের স্বাগত জানানো হয়েছে।’
আরেক আইনপ্রণেতা জানান, চলতি সপ্তাহে অনলাইন বৈঠকে যোগ দেওয়ার জন্য মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে ক্ষমতাচ্যুত দল এনএলডির ৪৯ জন আইনপ্রণেতাদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু মাত্র ২৬ জনের সন্ধান পাওয়া গেছে।

তিনি বলেন, ‘আমরা জানি না অন্যরা কোথায় আছে। দলের কর্মকর্তারা নিখোঁজ আইনপ্রণেতাদের খোঁজার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।’ সূত্র : রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মিয়ানমার


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ