Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৬ মে ২০২১, ০২ জৈষ্ঠ্য ১৪২৮, ০৩ শাওয়াল ১৪৪২ হিজরী

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে পরকীয়ার ঘটনায় গৃহবধূ ও গণপিটুনিতে ঘাতকসহ নিহত ২

লক্ষ্মীপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ এপ্রিল, ২০২১, ৩:১০ পিএম | আপডেট : ৩:২৬ পিএম, ১৮ এপ্রিল, ২০২১

লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার জাফরনগর গ্রামে পরকীয়ার ঘটনায় ছুরিকাঘাতে গৃহবধূ ও গণপিটুনিতে ঘাতক সহ দুইজন নিহত হয়েছে।পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্বার করে মর্গে প্রেরণ করে। পুলিশ সুপার এ এইচ এম কামরুজ্জামান, থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

সূত্র জানান, জাফরনগর গ্রামের ভূঁইয়া বাড়িতে রোববার সকাল ৯টার দিকে প্রবাসি সফিকুল ইসলাম আবুর স্ত্রী নাছরিন আক্তার মৌসুমি (৪০)কে ছুরিদিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করে একই গ্রামের রাছেল নামের এক যুবক। মাকে বাচাতে গিয়ে নাছরিনের একমাত্র ছেলে নাঈমুল ইসলাম গুরুতর আহত হয়। রক্তাক্ত অবস্থা তাকে রামগঞ্জ সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এ ঘটনায় এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে গণপিটুনি দিয়ে
ঘাতক রাছেলকে হত্যা করেন। নিহত রাছেল বলি মোল্যা বাড়ির ছিদ্দিকুর রহমানের ছেলে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয়রা জানায়, রাছেলের সাথে নাছরিন আক্তার পরকিয়া সম্পর্ক চলে আসছিলো, তাদের কিছু আপত্তিকর ছবি রাসেলের মোবাইলে সংরক্ষিত ছিলো। কয়েক মাস পূর্বে রাছেল তার ব্যবহৃত মোবাইলটি অন্যত্র বিক্রি করে দেয়। সেখান থেকে আপত্তিকর কিছু ছবি বয়েক মাস পূর্বে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ ছলে আসছে। এ ঘটনা জের ধরে হত্যার ঘটনা ঘটতে পারে বলে স্থানীয়দের ধারণা।

নিহত নাছরিনের মেয়ে উম্মে হাবীবা ছিনতিয়া ও সৌরভী জানান, রাছেল মাকে টেলিফোনে বিরক্তি করতে। আমাদের নতুন বাড়িতে চুরির ঘটনায় রাছেলকে অভিযুক্ত করায় আমার মাকে বসত ঘরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেন। ওই সময় ঘাতকে গণপিটুনি দেন গ্রামবাসি।

রামগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত কার্তিক জানান লাশ উদ্বার করে ময়না তদন্ত জন্য জেলামর্গে প্রেরণ করেছি। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ