Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ২৫ বৈশাখ ১৪২৮, ২৫ রমজান ১৪৪২ হিজরী

রমজানের মধ্যে মসজিদই হলো কোভিড হাসপাতাল

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০০ এএম

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কায় ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণের গ্রাফ। এ পরিস্থিতিতে হাসপাতালগুলোতে বেড ও অক্সিজেন দুই-ই অমিল হওয়ায় প্রবল সঙ্কটের মুখে পড়তে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। এমন পরিস্থিতিতে অভিনব পদক্ষেপ করল বরোদার এক মসজিদ। রাতারাতি মসজিদটিকে ৩০ শয্যার কোভিড হাসপাতালে পরিণত করা হয়েছে।

সংবাদ সংস্থা এএনআইকে মসজিদের ট্রাস্টি জানিয়েছেন, ‘হাসপাতালগুলিতে অক্সিজেন ও বেড নেই। পরিস্থিতি দেখে আমরা সিদ্ধান্ত নিই মসজিদটিকেই কোভিড হাসপাতাল হিসেবে গড়ে তোলার। রমজানের মাসে এর চেয়ে ভাল উদ্যোগ আর কী হতে পারে?’

গুজরাটের কোভিড পরিস্থিতি ক্রমশই খারাপ হচ্ছে। হাসপাতালের বাইরে অ্যাম্বুল্যান্সের লাইন যেন এক চেনা ছবিতে পরিণত হয়েছে। স¤প্রতি এক মামলার রায়দানের সময় গুজরাটের হাইকোর্ট জানায়, একটি হাসপাতালের বাইরে রীতিমতো ৪০টি অ্যাম্বুল্যান্সও দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। যদিও রাজ্যের বিজেপি সরকারের দাবি, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে হাসপাতালের ব্যর্থতা হিসেবে চিহ্নিত করা ঠিক নয়। কেননা বর্তমান পরিস্থিতিতে রোগীদের ভর্তি নেওয়ার জন্য নির্দিষ্ট প্রোটোকল মানতে হচ্ছে। তাতেই সময় লাগছে। তাছাড়া যেহারে সংক্রমণ বাড়ছে, তাতে এর মোকাবিলা করাও চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এই মুহূর্তে ভারতের করোনা পরিস্থিতিতে উদ্বেগ ক্রমেই বাড়ছে। নিজেদের মতো করে মারণ ভাইরাসকে রুখতে পদক্ষেপ করেছে অনেকেই। একদিকে যেমন গুজরাটের মসজিদের এই পদক্ষেপ চোখে পড়ছে, অন্যদিকে ছত্তিশগড়ের এক মহিলা ডেপুটি পুলিশ সুপারিনটেন্ডেন্টকে দেখা গেছে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থাতেই ব্যস্ত সড়কে সকলকে কোভিড বিধি মেনে চলার আরজি জানাতে।

ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে গেছে সেই ভিডিও। তাতে দেখা গিয়েছে, ডিএসপি শিল্পা সাহু রাস্তায় দাঁড়িয়ে সকলকে আরজি জানাচ্ছেন কোভিড বিধি মেনে চলার জন্য। তার হাতে লাঠি। মুখে ফেস শিল্ড। গ্রীষ্মের গনগনে রোদে দাঁড়িয়ে মানুষকে সচেতন করার এই প্রয়াস দেখে মুগ্ধ নেটিজেনরা। অতিমারীর সময়ে করোনা যোদ্ধারা কতটা সংগ্রাম করছেন, তার এক চমৎকার নিদর্শন শিল্পা সাহুর এই ভিডিও। যা দেখে অনেকেই মন্তব্য করেছেন, এই ভাবে দেশের সবাই কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই করলে করোনাকে হারানো নিশ্চয়ই সম্ভব হবে। সূত্র : এএনআই।



 

Show all comments
  • কাওসার আহমেদ ২১ এপ্রিল, ২০২১, ২:০১ এএম says : 0
    তবুও মানুষের জীবন বাঁচুক
    Total Reply(0) Reply
  • Mydul Islam ২১ এপ্রিল, ২০২১, ১:৫৮ এএম says : 0
    শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো তো কাজে আসছে না, ঐগুলা ও ব্যাবহার করেন৷
    Total Reply(0) Reply
  • নাজিম ২১ এপ্রিল, ২০২১, ১:৫৯ এএম says : 0
    অন্য প্রতিষ্ঠানগুলোতে করা যেতো
    Total Reply(0) Reply
  • গোলাম মোস্তফা ২১ এপ্রিল, ২০২১, ১:৫৯ এএম says : 0
    রমজান মাসে এটা না করে অন্য কোথাও করলে ভালো হতো
    Total Reply(0) Reply
  • পলাশ ২১ এপ্রিল, ২০২১, ২:০০ এএম says : 0
    মন্দিরগুলোকেও করা যেতে পারে
    Total Reply(0) Reply
  • Talukdar ২১ এপ্রিল, ২০২১, ৩:৩৪ এএম says : 0
    School, mondir ar khola matheo kora jai. Dukko holo covid shesh hole ei hindurai abar mosjid vangte shuru korbe.
    Total Reply(0) Reply
  • Md. Altaf Mondol ২১ এপ্রিল, ২০২১, ১:০৯ পিএম says : 0
    দুঃখজনক নিন্দা জানাচ্ছি
    Total Reply(0) Reply
  • MD Billal hossain ২১ এপ্রিল, ২০২১, ১:১০ পিএম says : 0
    স্কুল কলেজ বন্ধ, সেখানে করোনা হাসপাতাল করতে পারত। ইসলাম পরিপন্থীরা চাইতেছে মুসলমানদের নামাজ পড়া বন্ধ করতে।
    Total Reply(0) Reply
  • বিদ্যুৎ মিয়া ২১ এপ্রিল, ২০২১, ১:১৩ পিএম says : 0
    করোনা চলে গেলে আবার যেন মসজিদের ডেকরেশ ঠিক করে দেয়া হয়
    Total Reply(0) Reply
  • হাসান সোহাগ ২১ এপ্রিল, ২০২১, ১:১৩ পিএম says : 0
    এত জায় থাকতে মসজিদকেই হাসপাতাল বানাতে হলো, তাও আবার রমজান মাসে
    Total Reply(0) Reply
  • মেঘদূত পারভেজ ২১ এপ্রিল, ২০২১, ৫:৩৬ পিএম says : 0
    ভারতের বিপদে মুসলমান আর ইসলামি স্থাপনাগুলোই বেশি কাজে আসে। তবুও তারা মুসলমানদের নির্যাতন করে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ