Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ০৪ জৈষ্ঠ্য ১৪২৮, ০৫ শাওয়াল ১৪৪২ হিজরী

ইনকিলাবে সংবাদ প্রকাশের জেরে ‘অভিন্ন পরিচয়পত্র’ পাচ্ছেন সারাদেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা

মোহাম্মদ আবদুল অদুদ | প্রকাশের সময় : ২১ এপ্রিল, ২০২১, ৭:৪৯ পিএম

ইনকিলাবে সংবাদ প্রকাশের জেরে সারাদেশের প্রাথমিক শিক্ষকরা পাচ্ছেন অভিন্ন পরিচয়পত্র। গতকাল মঙ্গলবার দৈনিক ইনকিলাব অনলাইনে ‘অভিন্ন পরিচয়পত্র চান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষকরা’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশের প্রেক্ষিতে আজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জন্য অভিন্ন পরিচয়পত্র করার নমুনা কপিসহ আদেশ জারি করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

ইনকিলাবের প্রতিবেদনটি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলমকে দেখিয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করেন বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির মহাসম্পাদক রোটারিয়ান কামরুল হাসান। মহাপরিচালক সাথে সাথে বিষয়টিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। কামরুল হাসান আজ ইনকিলাবের এই প্রতিবেদককে জানান, করোনা বিধিনিষেধের কারণে আমি আজকে সকালে ইনকিলাবের প্রতিবেদনটির কথা উল্লেখ করে ডিজি স্যারকে ফোন করে বিষয়টি বলেছি। তখন তিনি তাৎক্ষণিকভাবে রেসপন্স করেছেন এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছেন। তিনি ইনকিলাব কতৃপক্ষকে এজন্য শিক্ষকদের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

গতকাল ইনকিলাবে প্রকাশিত প্রতিবেদন:-

সরকারি বিভিন্ন পেশাজীবীদের অভিন্ন পরিচয়পত্র বা আইডি কার্ড থাকলেও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের একইরূপ আইডি কার্ড নেই। দেশের কিছু জেলার শিক্ষকদের জেলা শিক্ষা অফিসারের মাধ্যমে স্থানীয়ভাবে ভিন্ন ভিন্ন আইডি কার্ড ইস্যু করা হলেও দেশের বেশিরভাগ জেলায় তাও করা হয়নি। এই পরিস্থিতিতে দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সব শিক্ষক অভিন্ন পরিচয়পত্রের দাবি তুলেছেন।

চলমান লকডাউনে ভুক্তভোগী একাধিক শিক্ষক তাদের অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরে বলেন, এসময় আইডি কার্ড না থাকায় হয়রানির শিকার এবং পুলিশের কাছে হাসির পাত্র হয়েছেন তারা। আসলে সবারই কর্ম পরিচয় প্রয়োজন। পরিচয়পত্র শিক্ষকদের এখন সময়ের দাবি। এবিষয়ে বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির মহাসম্পাদক রোটারিয়ান কামরুল হাসান এই প্রতিবেদককে বলেন, পুলিশের যেমন অভিন্ন আইডি কার্ড আছে আমাদেরও থাকা দরকার। দেশের প্রায় সাড়ে চার লাখ শিক্ষক শিক্ষিকার জন্য অধিদপ্তর যদি আইডি কার্ডেএকসাথে করে দিতে না পারে, তাহলে একটি নমুনা কপি করে দিলে এবং জেলাভিত্তিক কার্ড তৈরি হলে বিষয়টি সহজ হবে। প্রয়োজনীয় বার কোট বা আইডি নাম্বার নিয়ন্ত্রণ করেও এটা করা যায়।

এদিকে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি একাংশের সাধারণ সম্পাদক মো. আবুল কাসেম বলেন, শিক্ষকদের উপবৃত্তির তথ্য সংগ্রহসহ পেশাগত বিভিন্ন জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হতে হয়। এসময় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা শিক্ষক কিনা তা যাচাই করতে পরিচয়পত্র চাচ্ছেন। যদিও পুলিশ তাদের বাধা দিচ্ছেন না। কিন্তু কখনও কখনও হাসির পাত্র হচ্ছেন শিক্ষকরা।' বাংলাদেশ সহকারী শিক্ষক সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ শামছুদ্দীন মাসুদ বলেন, লকডাউনে উপবৃত্তির তথ্য সংগ্রহসহ পেশাগত বিভিন্ন জরুরি কাজে বাইরে বের হলে পরিচয়পত্র দেখতে চায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। পরিচয়পত্র না দিতে পারলে অনেক ক্ষেত্রে শিক্ষকদের বিড়ম্বনায় পড়তে হয়।



 

Show all comments

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন