Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ০৪ জৈষ্ঠ্য ১৪২৮, ০৫ শাওয়াল ১৪৪২ হিজরী

দুই দিনেই ইউরোপিয়ান সুপার লিগের সমাধি

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ এপ্রিল, ২০২১, ৮:১৪ পিএম

অর্থের ঝনঝনানিকে একপাশে সরিয়ে জয় হলো ফুটবলের প্রতি ভালোবাসার। সুপার লিগে বড় বড় ইউরোপিয়ান ক্লাবের অংশ নেওয়ার ঘোষণার পর যে আলোড়ন উঠেছিল তা স্তব্ধ হলো ৪৮ ঘণ্টা পার হতেই। একে একে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ছয়টি ক্লাব সরে দাঁড়ালো এই বিতর্কিত পরিকল্পনা থেকে। তাতে যে আর এই ‘বিদ্রোহী লিগ’ মাঠে গড়ানো সম্ভব না স্বীকার করলেন এর প্রতিষ্ঠাতা ও জুভেন্টাসের প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেয়া আগনেল্লি।

সুপার লিগ খেললে ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক ফুটবলে নিষিদ্ধ করার হুমকি দেয় শীর্ষ সংস্থাগুলো। খেলোয়াড়রা ইউরো ও বিশ্বকাপে খেলতে পারবেন না হুঁশিয়ারি দেন উয়েফা প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্দার সেফেরিন। ফিফা প্রেসিডেন্ট জিয়ান্নি ইনফান্তিনো প্রত্যেককে সতর্কতার সঙ্গে সিদ্ধান্ত নিতে বলেন এবং পরিণতির জন্য দায়ী থাকবে ক্লাব ও তাদের খেলোয়াড়রা। প্রিমিয়ার লিগও তাদের ছয় ক্লাবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দেয়।

এমন টালমাটাল পরিস্থিতিতে ছয় ক্লাবই আনুষ্ঠানিকভাবে সুপার লিগ থেকে নাম প্রত্যাহার করে নেয়। প্রথমে ম্যানসিটি ও চেলসি, পরে লিভারপুল, ম্যানইউ, আর্সেনাল ও টটেনহ্যাম। আর্সেনাল তাদের কৃতকর্মের জন্য ভক্তদের কাছে ক্ষমাও চেয়েছে।

ছয় ক্লাবের নাম প্রত্যাহারের পরই কার্যত শেষ হয়ে যায় সুপার লিগ মাঠে গড়ানোর শেষ সম্ভাবনা। যদিও বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদ, অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ, এসি মিলান, ইন্টার মিলান ও জুভেন্টাস তখনও ছিল তাদের সঙ্গে। প্রিমিয়ার লিগ ক্লাবগুলো সরে দাঁড়ানোর পরও টুর্নামেন্ট আয়োজন সম্ভব কি না জানতে চাইলে আগনেল্লি আজ (বুধবার) বলেছেন, ‘খোলামেলা ও সত্যি কথা বলতে গেলে, স্পষ্টতই আর সম্ভব না।’

তার এই বক্তব্যের কিছুক্ষণ পরই এসি মিলান, ইন্টার মিলান ও অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ আনুষ্ঠানিকভাবে সরে দাঁড়ায়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন