Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১১ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

না’গঞ্জের মেঘনা নদীতে নৌযানে ব্যাপক চাঁদাবাজি

প্রকাশের সময় : ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

নারায়ণগঞ্জ থেকে স্টাফ রিপোর্টার : নারায়ণগঞ্জের মেঘনা নদীতে বিভিন্ন নৌযান থেকে প্রতিদিন লক্ষাধিক টাকা চাঁদা উত্তোলন করার অভিযোগ উঠেছে চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে। গত এক সপ্তাহের কমপক্ষে ২৫ জন নৌযান শ্রমিককে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাদের থেকে নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন নিয়ে যায় চাঁদাবাজরা সোনারগাঁ উপজেলায় আইনশৃঙ্খলার সভায় চাঁদাবাজদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য দাবী জানানো হয়। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে চাঁদা উত্তোলন বন্ধ না হলে শ্রমিকদের সঙ্গে নিয়ে নৌযান ধর্মঘটসহ কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচী ঘোষণার কথা জানান নেতারা।
নৌযান মালিক ও শ্রমিকরা জানায়, মেঘনা নদী দিয়ে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা বালুবাহী বাল্কহেড সিলেট, সুনামগঞ্জ, ছাতক, টেকেরহাটসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে ছেড়ে আসা পাথরবাহী ও কয়লাবাহী জাহাজ ও নৌযান থেকে স্পীট বোড, ট্রলার দিয়ে নদীর মাঝখানে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে প্রতি নৌযান থেকে অবৈধভাবে জোরপূর্বক ১৫শ’ থেকে ২ হাজার টাকা পর্যন্ত চাঁদা আদায় করে থাকে। মেঘনা সেতু এলাকায় জাকির মিয়া ও তার ভাগিনা তিন হত্যা মামলার আসামি মোহাম্মদ আলী, আল আমিন ও শম্ভুপুরা এলাকায় নাছির বাহিনীর সদস্য এ সকল চাঁদা উত্তোলন করছেন। নৌপুলিশ ও বিআইডবিøউটি এর কতিপয় দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা ও কর্মচারীর যোগসাজশে অবৈধ চাঁদা উত্তোলন করছে চাঁদাবাজরা। গত ১৯ আগস্ট মেঘনা ঘাট এলাকার জাকির বাহিনীর সদস্যরা অনামিকা সাদিয়া বালুবাহী বাল্কহেডের সুকানী নিজাম উদ্দীন খানকে পিটিয়ে আহত করে, তার সঙ্গে থাকা ৭ হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায়। গত ২৩ আগস্ট পাঁচ ভাই বাল্কহেডের চালক জাফর মিয়া ও শ্রমিক কামাল হোসেনকে মারধর করে ৫ হাজার টাকা। ২৪ আগস্ট এমবি আরজু পাথরবাহী জাহাজের লষ্কর রফিক মিয়াকে পিটিয়ে আহত করে ৬ হাজার ২ শত টাকা, মোবাইল ফোন ও মালামাল নিয়ে যায়। গত ২৫ আগস্ট রোস্তম আলী বাল্কহেডের চালক জাকির মিয়াকে পিটিয়ে আহত করে তার কাছে থাকা ১৬ হাজার ২ শত টাকা নিয়ে যায়।
মেঘনা নদীর শম্ভুপুরা এলাকার আওয়ামী লীগ নেতা নাছির উদ্দীন মেম্বারের নেতৃত্বে তার সহযোগী জুবে আলম খোকন, জানে আলম, হানিফ মিয়া ও বাদশা মিয়া গত ২৭ আগস্ট এমভি ডেমরা কার্গোর সুকানী খাইরুল ইসলামকে পিটিয়ে আহত করে তার সঙ্গে থাকা সাড়ে ৪ হাজার টাকা মালামাল নিয়ে যায়। গত ২৮ আগস্ট মায়ের দোয়া কার্গোর সুকানী রফিকুল ইসলামকে পিটিয়ে সাড়ে ৩ হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন, গত ৩০ আগস্ট শাহীন ও তামিম নামে একটি বাল্কহেডের চালক রুহুল আলমকে দুইদিন আটকে রেখে ২০ হাজার টাকা নিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। গত এক সপ্তাহে ২৫ জন শ্রমিক ও চালককে মারধর করে তাদের কাছ থেকে সর্বস্ব লুট করে নিয়ে যায় চাঁদাবাজরা।
এলাকার লোকজন জানান মেঘনা সেতুর পূর্ব পাশে বিআইডবিøউটিএ থেকে ঘাটের ইজারা নেয় স্থানীয় যুবলীগ কর্মী জাকির হোসেন। তিনি ঘাটের ইজারা নিয়ে তার ১৫/২০ জন সহযোগিদের নিয়ে স্পীড বোর্ড ট্রলার দিয়ে নদীর মাঝখানে নৌযান শ্রমিকদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে জোরপূর্বক অবৈধভাবে নগদ টাকা মোবাইল ফোন ও মালামালসহ সর্বস্ব লুট করে নিয়ে যাচ্ছে। কেউ চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকার করলে তাদের মারধর করে নদীতে ফেলে দেওয়া হচ্ছে। সোনারগাঁ উপজেলার শম্ভুপুরা এলাকায় বন্দর উপজেলার জাতীয় পার্টি নেতা নান্নু মিয়া মেসার্স রিফাত এন্টারপ্রাইজের নামে বালু মহাল ইজারা নেন। তিনি বালু মহাল ইজারা নিয়ে শম্ভুপুরা ইউনিয়ন ৯নং ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের সভাপতি ও শম্ভুপুরা ইউনিয়নের নাছির উদ্দীন মেম্বারের নেতৃত্বে তার ১৫/২০ জন সহযোগিদের দিয়ে নৌযান শ্রমিকদের সব কিছু লুটে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ করেছে নৌ শ্রমিকরা। নাছির উদ্দীন মেম্বার জামাল হোসেন হত্যা মামলার প্রধান আসামি হয়ে কিছুদিন পলাতক থাকলেও ফের এলাকায় আগের মতো চাঁদাবাজিতে মেতে উঠেছে। আহত শ্রমিক জাফর মিয়া জানান, মেঘনা সেতু এলাকায় জাকির হোসেন ও শম্ভুপুরা এলাকায় নাছির উদ্দীন মেম্বারের লোকজন আমাদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে টাকা পয়সাসহ সক কিছু লুট করে নিয়ে যায়। জীবনের মায়ায় প্রতিবাদ করার সাহস পাই না। আমরা তাদের কাছে এক প্রকার জিম্মি হয়ে আছি। চাঁদা উত্তোলনের বিষয়ে জানতে চাইলে নাছির উদ্দীন মেম্বার ও জাকির হোসেন জানান, তারা নৌযানের চাঁদাবাজির সাথে জড়িত নয়।
পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম গত সপ্তাহে আইনশৃঙ্খলার সভায় বলেন, মেঘনা নদীতে চাঁদাবাজদের দৌরাত্য দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাদের প্রতিহত করে চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে দ্রæত ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য প্রশাসনের কাছে দাবী জানান।
বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সবুজ শিকদার ও ডেমরা শাখার সভাপতি জাকির হোসেন বলেন, মেঘনা নদীতে জাকির ও নাছির বাহিনী ফ্লিমি স্টাইলে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সর্বস্ব লুট করে নিয়ে যাচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পাওয়া যাচ্ছে না। চাঁদাবাজ ও পুলিশ মিলেই এ চাঁদার টাকা ভাগ করে নিচ্ছে। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে চাঁদা উত্তোলন বন্ধ না হলে শ্রমিকদের সঙ্গে নিয়ে নৌযান ধর্মঘটসহ কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচী ঘোষণা করা হবে।
বিআইডবিøউটিএ নারায়ণগঞ্জের যুগ্ম পরিচালক আরিফুল ইসলাম জানান, সোনারগাঁ যুবকল্যাণ বহুমুখী সমবায় সমিতির নামে জসিম উদ্দিনকে নদীর ইজারা দেওয়া হয়েছে। নদীতে নৌযানে চাঁদাবাজির সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: না’গঞ্জের মেঘনা নদীতে নৌযানে ব্যাপক চাঁদাবাজি
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ