Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ২৪ বৈশাখ ১৪২৮, ২৪ রমজান ১৪৪২ হিজরী

সখিপুরে ন্যায় বিচার ও প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

টাঙ্গাইল জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৩ এপ্রিল, ২০২১, ১০:০৭ পিএম

টাঙ্গাইলের সখিপুর উপজেলার হাতিবান্ধা ইউনিয়নের হাতীবান্ধা দক্ষিণ পাড়া, জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে বড় ভাই আ.হাকিম (৫০) পিতা মৃত মুন্সি আব্দুর রশিদ।আ. হাকিমের স্ত্রী , দুই মেয়ে ও মেয়ের জামাইর হামলায়, ছোট ভাই আব্দুল আজিজ, (৪৬) আজিজের আন্তসত্বা স্ত্রী সোনিয়া (৩২) মেয়ে নাফিসা(১৩)ফাউজিয়া (৭) ও ২ বছরের শিশু মেয়ে ফাতিহা গুরুতর আহত হয়। আহতদের ডাক চিৎকারে অভিযুক্ত আ.হাকিমের ছোট ভাই মুফতি আব্দুল মালেক(৪৮) তার স্ত্রী সাহিদা বেগম (৪০) মেয়ে নাসরিন (১৭) মাওলানা আব্দুল আলীম(৪৫) এরা আহতদের উদ্ধারে এগিয়ে গেলে তাদের উপরেও উপর্যুপরি হামলা চালায়। এই হামলায় তারাও গুরুতর আহত হয়। আহতদের মধ্যে অভয় পক্ষের পাঁচজন কে সখিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে এদের মধ্যে আব্দুল আজিজের অবস্থা আশঙ্কা জনক।

উল্লেখ্য:-মারাত্মক আহত আজিজ কে সখিপুর হাসপাতালে আনার সময় আ.হাকিম গংরা পথিমধ্যে ব্যারিকেড সৃষ্টি করে আজিজ কে প্রাণে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে পুনরায় হামলা চালায়। এ সময় স্থানীয় বাবুল ও আশে-পাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায় এবং বাকি আহতদেরও হাসপাতালে পাঠাতে সহায়তা করে। এ সময় আ. আজিজের মাথা ও শরীর থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণের কারণে তার অবস্থা সঙ্কটাপন্ন হয়ে পরে।

অপর দিকে মেরেও জিতেছে আবার মামলা করেও জিতার আশায় অভিযুক্ত আ.হাকিম গংরা একটি অনলাইন পত্রিকায় সখিপুরে ছোট ভাইদের হামলায় ভাই ভাবী ভাতিজী আহত শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশ করে।

এই মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদে ভুক্তভোগী ও আহতদের পরিবার সখিপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির কার্যালয়ে এসে ২৩ এপ্রিল শুক্রবার সকাল ১১ ঘটিকায় সংবাদ সম্মেলন করেন।
সংবাদ সম্মেলনে গুরুতর আহত আ.আজিজের আন্তসত্বা স্ত্রী সোনিয়া আক্তার প্রকাশিত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জ্ঞাপন করে প্রকৃত ঘটনার বর্ণনা করেন এবং প্রশাসনের কাছে তদন্ত পূর্বক ন্যায় বিচার কামনা করেন। তিনি বলেন প্রতিবেদনে যা উল্লেখ করা হয়েছে,তা সবই মিথ্যা,ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। আমি ওই প্রতিবেদকের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবী করছি।

ভুক্তভোগী আ.মালেকের স্ত্রী সাহিদা বেগম (৪০) ও মেয়ে নাসরিন(১৭) কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন আ.হাকিমের পরিবার দ্বারা আমরা বহুবার শারীরিক ভাবে লাঞ্ছিত হয়েও তার কোনো এক আত্মীয় ডিবি পুলিশে আছে এই হুমকিতে ও মানসম্মানের ভয়ে নীরবে কেঁদেছি ও মহান আল্লাহর কাছে বিচার প্রার্থনা করেছি। নাসরিন আরও উল্লেখ করেন তার ছোট চাচা মওলানা আ.আলীমের স্ত্রীকেও এ পর্যন্ত আ.হাকিম গংরা চারবার শারীরিক নির্যাতন করেছে। তিনিও মানসম্মানের ভয়ে সব কষ্ট এতদিন নীরবে হজম করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনের পরে সখিপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির কয়েকজন সাংবাদিক ঘটনাস্থলে যান। সেখানে গিয়ে এলাকা বাসী ও স্থানীয় চারবারের নির্বাচিত ইউপি সদস্য মো.আমির হোসেন বলেন,এই জমি সংক্রান্ত বিরোধের বিষয়ে এ যাবৎ কম পক্ষে বিশ বার মীমাংসা করা হয়েছে কিন্তু এই সন্ত্রাসী আ.হাকিম গংরা বিষয় টি খাম খেয়ালী ভাবে অমান্য করেছে।
আ.হাকিমের স্বামী পরিত্যক্তা বড় মেয়ে মাহমুদা ও ঘর জামাই সহ ছোট মেয়ে মাজেদা বারবার প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে।
তারা আ.হাকিম গংদের উপযুক্ত বিচারের দাবী জানান।

জানতে চাইলে সখিপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ওমর ফারুক বলেন,দুই পক্ষের দুইটি অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: টাঙ্গাইল


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ