Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ০৪ আষাঢ় ১৪২৮, ০৬ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

স্ত্রীর দাবি হুইপপুত্র ও এক পুলিশ কর্মকর্তার শাস্তি

ব্যাংকার আবদুল মোরশেদ চৌধুরীর আত্মহত্যা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ এপ্রিল, ২০২১, ১২:০১ এএম

চট্টগ্রাম-১২ আসনের সাংসদ ও হুইপ সামশুল হক চৌধুরীর ছেলে শারুন চৌধুরীসহ অন্য অপরাধীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন ব্যাংক কর্মকর্তা আবদুল মোরশেদ চৌধুরীর স্ত্রী ইশরাত জাহান চৌধুরী।
গতকাল ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ইশরাত বলেন, হুইপপুত্র শারুন চৌধুরী ও সাবেক ছাত্রনেতা আরশাদুল আলম বাচ্চুর অব্যাহত চাপ, হুমকি ও হামলার কারণে নিরুপায় হয়ে ব্যাংকার আবদুল মোরশেদ চৌধুরী আত্মহত্যার পথ বেছে নেন। ২০১০ সাল থেকে মোরশেদ তার আপন ফুফাতো ভাইদের সঙ্গে ব্যবসা করছিলেন। কোনো নথিপত্র ছাড়া তারা মোরশেদকে ২৫ কোটি টাকা ঋণ দেন। তিনিও তাদের ৩৫ কোটি টাকা শোধ করেন। ২০১৮ সালের দিকে এসে তিনি ওই ব্যবসার কথা পরিবারের অন্যদের জানান এবং বলেন, তিনি আর ব্যবসাটা করতে চান না।

গত ৭ এপ্রিল ব্যাংকার আবদুল মোরশেদ চৌধুরী আত্মহত্যা করেন। মৃত্যুর আগে তিনি চার পৃষ্ঠার একটি সুইসাইড নোট রেখে যান। এর একটি অংশে লেখা ছিল, ‘আল্লাহ আমাকে রক্ষা করবে, আরেকটু দেখি, আরেকটু দেখি করতে করতে দেনার গর্তটা অনেক বেশি বড় হয়ে যাচ্ছে। যারা কোনো টাকাই পেত না, তাদের দিতে গিয়ে এখন সত্যিকারের দেনায় জর্জরিত। বেঁচে থাকলে এই দেনা আরও বাড়বে। তা ছাড়া পরিচিতগুলোই এখন চেপে ধরেছে বেশি। এই লোড আমি আর নিতে পারছি না, সত্যি পারছি না।

এই ঘটনায় শারুন চৌধুরীর আবির্ভাব ২০১৯ সালের মে মাসে বলে উল্লেখ করেন ইশরাত জাহান। মে মাসের একদিন শারুন তার স্বামীকে (মোরশেদ চৌধুরী) ফোন করে রেডিসন হোটেলে দেখা করতে বলেন। মোরশেদ এতে আপত্তি করেন। তিনি বলেন, তার (শারুন চৌধুরীর) সঙ্গে কোনো ব্যবসায়িক লেনদেন নেই। তারপরও কেন তিনি দেখা করতে বলছেন। জবাবে শারুন চৌধুরী বলেন, লেনদেন নেই, এখন হবে। এর কিছুক্ষণ পরেই শারুন আরও ১০-১২ জন যুবককে নিয়ে তাদের বাসায় যান। ভিডিও ফুটেজে শারুনকে দেখা না গেলেও, মোরশেদের ফুফাতো ভাই পারভেজকে দেখা যায়। তাদের ভবনের নিরাপত্তারক্ষীদের আটকে রেখে ওই যুবকেরা বলে, গাড়ির ভেতরে শারুন চৌধুরী বসে আছেন। ওই সময় মোরশেদ চৌধুরী বাসায় ছিলেন না। তিনি তার আত্মীয় আজম খানের বাসায় ছিলেন। আজম খানই লেনদেনের বিষয়টি দেখভাল করছিলেন। কিছুক্ষণ পরে শারুন চৌধুরীও হাজির হন আজম খানের বাসায়।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, মোরশেদ চৌধুরীর সঙ্গে শারুন চৌধুরীর সরাসরি কোনো ব্যবসায়িক লেনদেন না থাকলেও পারভেজ ইকবাল ও জাবেদ ইকবালের মাধ্যমে শারুন চৌধুরী ব্যবসার অর্থ বিনিয়োগ করেন বলে তিনি শুনেছেন। দেশজুড়ে ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান শুরু হলে শারুন আত্মগোপনে যান, এরপর থেকে তিনি আর সরাসরি কোনো বৈঠকে হাজির হননি।

সংবাদ সম্মেলনে ইশরাত জাহান চৌধুরী যে পুলিশ কর্মকর্তার সম্পৃক্ততার কথা বলেন, তার নাম বিজয় বসাক। ওই সময় তিনি চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ উত্তরের উপকমিশনার ছিলেন। মোরশেদের মৃত্যুর আগ পর্যন্ত বিজয় বসাক টাকা আদায়ের কাজ তত্ত্বাবধান করেছেন।

ইশরাত বলেন, ২০১৮ সালে মোরশেদকে তার ফুফাতো ভাইয়েরা এম এম প্যালেসে আটকে রাখেন। তার মাথায় পিস্তল ঠেকান, পাসপোর্ট কেড়ে নেন এবং তাকেও নানাভাবে হেনস্তা করেন। ওই সময় পাঁচলাইশ থানায় মামলা করতে গেলেও পুলিশ মামলা নেয়নি। এক বছর পর বাসায় হামলা হলে তারা সরাসরি উপকমিশনার বিজয় বসাকের সঙ্গে দেখা করেন। তার নির্দেশে পাঁচলাইশ থানায় মামলা হয়। ওই ঘটনায় মোরশেদের ফুফাতো ভাই জাবেদ ইকবাল গ্রেফতার হন। তিনি জামিনে বেরিয়ে আসার পর বিজয় বসাকের সঙ্গে দেখা করেন। বিজয় বসাক তার কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে একটি চুক্তিপত্রে সই করান। ওই চুক্তিপত্র অনুযায়ী মোরশেদকে ১২ কোটি টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিতে হয়। যদিও কেন এই টাকা দিতে হবে তা-ই বুঝতে পারছিলেন না মোরশেদ ও তার পরিবার।

ইশরাত সংবাদ সম্মেলনে বলেন, একজন আইনের লোক হয়ে তিনি (বিজয় বসাক) কি এ কাজ করতে পারেন? তিনি আদালতে যেতে বলতে পারতেন। দোষী হলে মোরশেদের শাস্তি হতো।

 



 

Show all comments
  • Rafiqul Islam ২৫ এপ্রিল, ২০২১, ১২:৫৯ এএম says : 0
    সব সমাধান হয়তোবা এই পুলিশই করতে পাড়তো তা না করে সে আরো উস্কায় দিছে, এই পুলিশের বিচার হওয়া উচিত ।
    Total Reply(0) Reply
  • Ripon Ripon ২৫ এপ্রিল, ২০২১, ১:০১ এএম says : 0
    লাভ নাই বিচার হবেনা তার চাইতে ভালো আল্লাহর কাছে বিঁচার দেন আল্লাহ তুমি বিঁচার করো আমিন
    Total Reply(0) Reply
  • Alam Navik ২৫ এপ্রিল, ২০২১, ১:০২ এএম says : 0
    আওয়ামী লীগ ... খায় নাই, যে হুইপ পুত্র কে গ্রেফতার করবে।হাজি সেলিমের পুত্র ইরফান সেলিম কান্ড জনগণ দেখেছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Amir Uddin ২৫ এপ্রিল, ২০২১, ১:০৩ এএম says : 0
    দেশে আইনের শাসন নেই আওয়ামী শাসন চলছে ধৈর্য দারণ করা ছাড়া আপনার কোনো উপায় নাই
    Total Reply(0) Reply
  • Azizur Shafiq ২৫ এপ্রিল, ২০২১, ১:০৩ এএম says : 0
    এই সরকারের আমলে দলীয় লোকদের বিরুদ্ধে আইন হয়ে যায় দলীয়।
    Total Reply(0) Reply
  • এস. এ. মিলন ২৫ এপ্রিল, ২০২১, ১:০৩ এএম says : 0
    গ্রেফতার করলে লাভটা কি আগে এইটা জানতে হবে বদরুল,মোয়াজ্জেম,প্রদীপ,পাপিয়া,সাবরিনা,শামীম,রানা আরো কতোজনেই তো গ্রেফতার হইছিলো
    Total Reply(0) Reply
  • MD Shahin Alam ২৫ এপ্রিল, ২০২১, ১:০৪ এএম says : 0
    তারা ক্ষমতাওয়ালা তাদের গ্রেফতার এর কথা বলতে মানা?
    Total Reply(0) Reply
  • Kawsar Shah ২৫ এপ্রিল, ২০২১, ১:০৪ এএম says : 0
    বোন দু:খিত! আদালতে আপাতত বিএনপি, জামাত,হেফাজতের বিচার(অবিচার)ছাড়া বাকি সব বিচার বন্ধ বা স্তগিত!! তাই বিচার চাহিয়া লজ্জা দিবেন না!
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Faruk Patwary ২৫ এপ্রিল, ২০২১, ১:০৪ এএম says : 0
    আপু অপেক্ষা করেন হেফাজতের নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের পর আপনার সিডিউল।
    Total Reply(0) Reply
  • ম নাছিরউদ্দীন শাহ ২৫ এপ্রিল, ২০২১, ১:৩৩ এএম says : 0
    ব‍্যাংকার মোর্শেদ চৌধুরীর সোছাইট নোট। পছিশ কোটি টাকা লেনদেনের হিসাব। পুলিশের গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তা পকৃত ঘটনা জানেন। যাদের সাথে টাকা লেনদেনের হয়েছে সবাই আছেন। লেনদেন বিভিন্ন বৈঠক হুমকি ইত্যাদির কারণে মামলা হয়েছে এটি গবেষণায় বিষয় নয়? তদন্তের বিষয় কে অপরাধীদের পক্ষ নিয়েছেন। একটি বিষয় পরিস্কার রাজনৈতিক চাপ প্রশাসনিক চাপ ছিল মোর্শেদ চৌধুরীর উপরে শেষ পযর্ন্ত কাপুরূষের মত আত্মহত্যা করলেন। মৃত্যুর আগে সংবাদ সম্মেলন করতে পারতেন। নিজ কে হত্যা করার মাধ্যমে কি প্রমাণিত হলো। ঘটনা আরও জটিল হলো। আমি নিরাপেক্ষ একটি বিষয় লক্ষ করলাম চট্টগ্রামের সহ জাতীয় পত্রিকায় সংসদীয় দলের হুইপ শামসুল হক চৌধুরী কখন কি ছিল কোথায় কিভাবে ব‍্যবসা করছেন মান ইজ্জতের ধ্বংসযজ্ঞ চালাতে যত রকমের শব্দ প্রয়োজন এই পটিয়ার এমপির বিরুদ্ধে বিভিন্ন পত্রিকায় সোশ্যাল মিডিয়াই প্রচন্ড প্রচারণা হচ্ছে। এখানে শামসুল হক চৌধুরীর অপরাধ কি?? ব‍্যাক্তিগত আক্রমণগুলো সাজিয়ে পকৃত ঘটনার পরিবর্তনের চিত্রনাট্য কারা সাজানোর দায়িত্ব?এই ঘটনায় আইন শৃংখলা বাহিনীর শুরু থেকে শেষ পযর্ন্ত জানা আছে মনে হয়। কে অপরাধী কে টাকা দিয়েছেন কে টাকা নিয়েছেন। এমপির সন্তান কে ঘটনার মুল প্রতিপক্ষ বানিয়ে বানাচ্ছেন কারা? অপরাধগুলো চিহ্নিত কারা করবেন। এই ঘটনা লেনদেন সংক্রান্ত পুলিশের নিকট সত্য ঘটনা জানা আছে। যে অপরাধী আইন তাহাকে আইনের আওতায় আনবেন। এটি নিয়ম। এরি মাঝেই একজন জাতীয় সংসদের হুইপ সম্মানিত রাজনৈতিক ব‍্যাক্তির সম্মান মর্যাদা ভূলুণ্ঠিত করার মাধ্যমে আমরাকি শিক্ষা নিচ্ছি? পকৃত অপরাধীর শাস্তি হউক সরকারের প্রশাসনের দায়িত্ব আবদুল মোর্শেদ চৌধুরীর আত্মহত্যা ঘটনায় যারাই জড়িত নির্মোহ ভাবে চিহ্নিত করে বিচার করুন।
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ+দুলাল+মিয়া ২৫ এপ্রিল, ২০২১, ২:৩৭ এএম says : 0
    কিছু হবে না,যে পযন্ত এই দেশ সংবিধান বদলি করে রাষ্ট্র পতি পদ্ধতি চালু না করবে,সংসদীয় পদ্ধতি দলীয় এই পদ্ধতিতে বিচার আইন কানুন ইনসাফ জনগণের অধিকার কিছু নাই আর হবে ও না,এইটা 500জনের দেশ তাহারা যাই করবে সেটাই হবে ,যদি জ্ঞানী বুদ্ধি জীবি বিশেষজ্ঞরা এই দেশে থাকে তবে যদি তাদের মাথায় আসে,তবে সংবিধান বদলি করে রাষ্ট্র পতি পদ্ধতি চালু করতে পারে,তবেই জনগণ সব কিছু আবার ফিরে পাবে,অন্যথায় কিছু করার নাই,শুধু 500জনের বেলায় সব কিছু হবে,
    Total Reply(0) Reply
  • JESMIN ANOWARA ২৫ এপ্রিল, ২০২১, ৪:২১ এএম says : 0
    if you speak against prime minister and her father you will be arrested in second , so be careful
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আত্মহত্যা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ