Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ০৭ আষাঢ় ১৪২৮, ০৯ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

টঙ্গীবাড়ীতে ত্রাণ চাওয়ায় বৃদ্ধার কান ফাটালেন ইউপি সদস্য

টঙ্গিবাড়ী (মুন্সীগঞ্জ) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৬ এপ্রিল, ২০২১, ৬:৫৪ পিএম

সরকারী ত্রাণ চাওয়ায় এক বৃদ্ধার কানের মধ্যে থাপ্পড় দিয়ে কানের পদ্মা ফাটিয়ে দিয়েছেন এক ইউপি সদস্য। এছাড়াও ওই বৃদ্ধাকে পিঠের মধ্যে চর থাপ্পড় মারারও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সরেজমিনে আজ সোমবার (২৬ এপ্রিল) টঙ্গিবাড়ী উপজেলার আউটশাহী গ্রামে গিয়ে জানাযায় ওই গ্রামের হত-দরিদ্র লোকমান সেখের স্ত্রী তাসলিমা বেগম রবিবার দুপুরে আউটশাহী ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ওয়ার্ডের সদস্য নুরুল ইসলাম মোল্লার কাছে সরকারী ত্রাণ চাইতে যান। আউটশাহী গ্রামের সবজল মেম্বার এর বাড়ির সামনে ওই ইউপি সদস্যকে পেয়ে সরকারী ত্রাণ চেয়ে তাসলিমা তার ভোটার আইডি কার্ড ও ছবি দিতে চাইলে ওই ইউপি সদস্য নুরুল ইসলাম বৃদ্ধা তাসলিমা বেগমের বাম গালে থাপ্পড় মারে। এ সময় ওই বৃদ্ধা মাটিতে পরে গেলে নুরুল ইসলাম তার পিঠে একাধিক থাপ্পড় মারেন।

বৃদ্ধা তাসলিমা বেগম জানান, আমি সরকারী সাহায্য আসছে শুনে আমি নুরুল ইসলাম মেম্বারের কাছে গিয়ে তাকে আমার ছবি ও ভোটার কার্ড দিয়ে আমাকে কিছু সাহায্য দিতে বলি। এ কথা বলার সাথে সাথে মেম্বার আমার বাম গালে জোড়ে একটি থাপ্পড় মারে। এ সময় আমি মাটিতে পরে গেলে আমার পিঠেও কয়েকটি চর থাপ্পড় মারে মেম্বার।

পরে এলাকাবাসী এগিয়ে এসে আমাকে উদ্ধার করে। মেম্বারের থাপ্পড়ের পর আমার কান ও গলা দিয়ে রক্ত বের হয়। এখন আমি বাম কানে কিছু শুনতে পাইনা। কালকে রোজা রেখে আমি মেম্বারের কাছে গিয়েছিলাম আজ ব্যথায় রোজও রাখতে পারিনি।

ওই বৃদ্ধা কানতে কানতে আরো জানায়, আগে অনেকদিন আমি নুরুল ইসলাম মেম্বারের বাড়িতে কাজ করে দিয়েছি। সে আমাকে কাজের কোন টাকা দেয়নি। কাজ করে দিলে সে সরকারী ত্রাণ আমায় দিতো। এখন আমার বয়স হয়েছে কাজ করতে পারিনা বলে সে আমায় ত্রাণও দেয়না। সেদিন আমি ত্রাণ চাইতে যাওয়ার সাথে সাথে আমার গালে থাপ্পড় মারে।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত নুরুল ইসলাম এর মেঠো ফোনে যোগাযোগ করলে সে জানায়, আমি বেশ কয়েক বার ওকে ত্রাণ দিয়েছি। বার বার ত্রাণ চেয়ে আমাকে বিরক্ত করে। ত্রাণ দেই আমি আর ও বলে বেরায় ওকে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য লাইলি বেগম ত্রাণ দিয়েছে। ওইদিন ও ত্রাণ চেয়ে আমাকে বিরক্ত করছিলো। অন্য কারণে আমার মাথাটা একটু গরম ছিলো আমি আস্তে একটা থাপ্পড় লাগিয়ে দিয়েছি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মুন্সীগঞ্জ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ