Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪ আশ্বিন ১৪২৭, ১১ সফর ১৪৪২ হিজরী

প্রেসিডেন্ট ওবামা ও মিশেল ওবামার ঈদ শুভেচ্ছা

শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জন কেরি এবং ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসনও

প্রকাশের সময় : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

কূটনৈতিক সংবাদদাতা : পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও ফাস্ট লেডি মিশেল ওবামা বিশ্বের মুসলমানদের ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এছাড়া মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি এবং ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসনও মুসলমানদের পবিত্র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
গতকাল ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাস থেকে প্রেরিত এক শুভেচ্ছা বার্তায় বারাক ওবামা ও তার স্ত্রী হজযাত্রীদেরও অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, হজ হচ্ছে বিভিন্ন দেশ ও সংস্কৃতির লাখো মানুষের একত্রে প্রার্থনা এবং গভীর বিশ্বাস প্রকাশের মাধ্যমে সৃষ্টিকর্তার নৈকট্য ও সন্তুষ্টি লাভ করা।
প্রেসিডেন্ট ওবামা ও মিশেল ওবামার
ওবামা বলেন, ঈদুল আযহা ধর্মীয় উৎসবের পাশাপাশি এমন এক সেবামূলক কর্তব্য, যা মুসলিম উম্মাহ তাদের আদি পিতা ইব্রাহিম (আ.) এর আত্মত্যাগের আদর্শের প্রতি সম্মান প্রদর্শন ও তা অনুসরণ করেন এবং ইসলামের নির্দেশিত পথে জান ও মালের কোরবানি দিয়ে নিজেরাও পরম করুণাময় আল্লাহতায়ালার সন্তুষ্টি লাভ করেন।
তিনি বলেন, এজন্য তিনি অনুপ্রাণিত হন এবং বিনয়ীবোধ করেন আমেরিকাসহ বিশ্বের লাখো মুসলমানদের প্রতি, যারা এ মুহূর্তে কম সৌভাগ্যবানদের জন্য মানবিকতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।
আমেরিকার জনগণের পক্ষ থেকে বিশ্বের মুসলিম সমাজকে শান্তিপূর্ণ ও আনন্দঘন ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে ওবামা বলেন, যখন লাখ লাখ মানুষ নতুন ঘরবাড়ি আর আত্মীয়দের খুঁজে পাওয়ার সংগ্রাম করে চলেছে, যা তারা হারিয়েছে যুদ্ধ-বিগ্রহ আর প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কারণে, এ অবস্থায় আমরা বারবার আমাদের নৈতিকতার কাছে দায়বদ্ধ হই তাদের এই ক্ষতিপূরণের জন্য। তাই তিনি বলেন, সেবা, ত্যাগ এবং শান্তি প্রতিষ্ঠা নির্ভর করে সকল বিশ্বাসের পারস্পরিক মূল্যবোধ ভাগ করে নেয়ার মধ্য দিয়ে।
যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরিও বিশ্বের মুসলমানদের ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এক শুভেচ্ছা বার্তায় তিনি বলেন, ঈদুল আজহা হলো একটি বিশেষ মুহূর্ত, যা সকল বিশ্বাসের মধ্যে সেবা, নিঃস্বার্থপরায়ণতা এবং সহমর্মিতা ও অপরের প্রতি সেবার মূল্যবোধ সৃষ্টি করে। এ সকল মূল্যবোধ চর্চা ও এর প্রতিফলনের চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আর কিছু হতে পারে না। হজ হলো এমন একটা সময় যখন বিভিন্ন দেশ, শ্রেণী এবং সংস্কৃতির মুসলিমরা একত্রিত হয়ে প্রার্থনা করেন, যা প্রকৃতপক্ষে মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে একতা ও বৈচিত্র্যকে মনে করিয়ে দেয়।   
তিনি আরো বলেন, আমেরিকার সরকারের পক্ষ থেকে আমি সকল মুসলিমদের একটি সুন্দর ও আনন্দঘনপূর্ণভাবে ঈদুল আযহা উৎযাপনের জন্য আশাবাদ ব্যক্ত করছি।
এদিকে, ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন ঈদুল আযহা উপলক্ষ্যে বিশ্ব মুসলিমদের ঈদ মোবারক জানিয়ে বলেন, আমি আশা করি ব্রিটেনে এবং বিশ্বের অপরাপর দেশে মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষেরা পরিবারের সাথে থেকে ঈদুল আযহা উদ্যাপন করবে। সেই সাথে তিনি হজ পালনকারীদেরও শুভেচ্ছা জানান। তিনি বলেন, আমরা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্রিটিশ মুসলিমদের অবদানকে খুবই গুরুত্ব দিয়ে থাকি। সেই সাথে একটি বহুজাতিক সমাজের গভীর সামাজিক বন্ধনের জন্য আমরা গর্ববোধও করি। সেই সাথে আমরা সিরিয়া এবং ইয়েমেনে সংঘাত বন্ধ করে শান্তি স্থাপনের জন্য আমাদের সহযোগীদের সাথে কাজ করে যাচ্ছি। এ বছর যারা এসব সংঘাতের কারণে ঈদের আনন্দ উদ্যাপন থেকে বঞ্চিত হচ্ছে আমার হৃদয় তাদের সাথে রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রেসিডেন্ট ওবামা ও মিশেল ওবামার ঈদ শুভেচ্ছা
আরও পড়ুন