Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ১১ আষাঢ় ১৪২৮, ১৩ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

বুড়িচংয়ে স্ব-উদ্যোগে পূর্ণমতি-আছাদনগরের ৩ কি.মি. রাস্তা সংস্কার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ এপ্রিল, ২০২১, ৯:০৩ পিএম

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার পূর্ণমতি ডিসি রোড হতে কোরিয়ান সড়কের জগতপুর–আছাদ নগর পর্যন্ত প্রায় ৩ কিঃ মিঃ সড়ক জুড়ে ভাঙ্গাচুরা এবং খানাখন্দের সৃষ্টি হওয়ায় সড়কটি নিজ উদ্যোগে সংস্কারের ব্যবস্থা নিয়েছেন পূর্ণমতি এম এ উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের ৩ বারের সাবেক সভাপতি এবং উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন। তিনি গত কয়েক দিন ধরে ব্যক্তি উদ্যোগে কয়েক লক্ষ টাকা বাজেট করে সড়কের খানাখন্দে ইট ফেলে সংস্কার চালিয়ে যাচ্ছেন।

এসড়ক দিয়ে যাত্রীবাহী সিএনজি অটোরিকশা, পণ্যবাহী বিভিন্ন যানবাহন চলাচল করছে মারাত্মক ঝুঁকি নিয়ে। দীর্ঘ ৫ বছরের অধিক সময় ধরে এ সড়কটি দিয়ে আশেপাশের ৬-৭ গ্রামের লোকজন ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। প্রতিদিনই সিএনজি অটোরিকশা সড়কের খানা খন্দে বিভিন্ন যানবাহন পতিত হয়ে বহু লোকজন আহত হয়েছে। বিশিষ্ট সমাজ সেবক, দড়িয়ার পাড় ঈদগাহ কবরস্থানের সংস্কার কমিটির আহবায়ক এই প্রতিবেদককে জানান, তাই আমি এ উদ্যোগ নিয়েছি।

স্থানীয় সদর ইউপি যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবুল হাসেম জানান, জেলার বুড়িচং উপজেলার পূর্নমতি ডিসি রোড হতে জগতপুর -আছাদনগর পর্যন্ত প্রায় ৩ কিঃ মিঃ কাঁচা রাস্তা কোরিয়ান কোম্পানি ২০১১-২০১২ সনে সম্পূর্ণ পাকা সড়ক করে দেন। কিন্তু ৪-৫ বছর অতিবাহিত হওয়ায় সড়কটি ধীরে ধীরে সড়কের মাঝে ও পাশে ছোট বড় ভাঙ্গাচুরার সৃষ্টি হয়। পুরো ৩ কিঃ মিঃ সড়ক জুড়ে দেখা মারাত্মক ঝুঁকি। এতে করে ৪-৫ গ্রামের হাজার হাজার যাত্রীর দেখা দেয় ঝুঁকি। ঝুঁকি নিবারণে ইঞ্জিনিয়ার জয়নাল আবেদীনের উদ্যোগ প্রশংসনীয়।

জগতপুর গ্রামের মোঃ মনির হোসেন ভূইয়া জানান, জগতপুর গ্রামের মৃত আছমত আলীর ছেলে মোঃ জজু মিয়া, মৃত্যু আব্দুল বারেকের ছেলে ফেরদৌস, কাউসার সহ আরো অনেকে এসড়কে মারাত্মকভাবে আহত হন। আবুল হোসাইন বিএসসি (মাষ্টার) বলেন, এ সড়কের এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে যে কোন অসুস্থ রোগী কে এসড়ক দিয়ে চলাচল করালে ভীষণ অসুস্থ হয়ে পড়ে। এক কথায় এসড়কটি সীমাহীন দুর্ভোগের কারণ। মানুষের এই দুঃখ দুর্দশার দেখে উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য, পূর্নমতি গ্রামের সমাজ সেবক ইঞ্জিনিয়ার আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন ৩ কিঃ মিটার সড়কটিতে ইটের কংক্রিট ফেলে গর্ত সমূহ ভরাট করা শুরু করেছেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও সমাজ সেবক ইঞ্জিনিয়ার আলহাজ্ব জয়নাল আবেদীন বলেন, গত ৫-৬ বছর ধরে সড়কটি ধীরে ধীরে ক্ষতি সাধিত হয়ে মারাত্মক হুমকির মুখে পড়েছে। মানুষের চলাচলে বিঘ্নিত হচ্ছে দেখে নিজের কাছে খুব খারাপ লাগে। মানুষের যাতে চলাফেরায় কষ্ট না হয় সেজন্য আমি স্বউদ্যোগে চেষ্টা করে যাচ্ছি। যত টাকা লাগে আমি পুরো সংস্কার কাজ করবো। আমি চাই এ এলাকার জনগণের চলাচলে কোন সমস্যা যেন না হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ