Inqilab Logo

রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৮ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

ঈদের পর কিছু মানুষের মুখোশ খুলে দেবো : শামীম ওসমান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ এপ্রিল, ২০২১, ৭:১০ পিএম

নারায়ণগঞ্জ-৪ সংসদীয় আসনের এমপি শামীম ওসমান বলেছেন, ‌ঈদুল ফিতর আসন্ন। ঈদের পরই আমি কিছু মানুষের মুখোশ উন্মোচন করব। রোজার মাস চলছে, কবে মরে যাই তাও জানি না। আল্লাহ যদি ঈদের পরে সবাইকে সুস্থ রাখেন, তাহলে নারায়ণগঞ্জের ব্যাপারে কিছু সত্য কথা বলব, কিছু সত্য জিনিস তুলে ধরব এবং কিছু মানুষের মুখোশ খুলব। তার পরে দেখা যাক, আল্লাহ কয়দিন বাঁচাইয়া রাখল।

শুক্রবার জুমার নামাজ ও দোয়ার পর বড় ভাই সাবেক এমপি নাসিম ওসমানের কবর জিয়ারত শেষে সাংবাদিকদের প্রেস ব্রিফিংয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, জীবনে যেমন এসেছি সরবে, তেমন চলে যাবো নীরবে। একইভাবে রাজনীতিতে আসছি সরবে, দরকার পরলে চলে যাব নীরবে। কিন্তু যাওয়ার আগে অনেকের মুখোশ উন্মোচন করে দিয়ে যাব।

জুমার নামাজের আগে নারায়ণগঞ্জ শহরের মাসদাইর কবরস্থান মসজিদে বড় ভাই সাবেক সাংসদ নাসিম ওসমানের সপ্তম মৃত্যুবার্ষিকীতে উপস্থিত মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে কথা বলেন তিনি। মসজিদে শামীম ওসমান বলেন, ‌‘আমার চালচলন, আচার-আচরণে কেউ যদি কষ্ট পেয়ে থাকেন তাহলে আমাকে ক্ষমা করবেন। রাজনীতি করি, তাই অনেক সময় অনেক কথা বলতে হয়। অনেকে হয়ত কষ্ট পেয়ে যান। মরে গেলে আমার জন্য হয়ত জীবিতরা ক্ষমা চাইতে পারবে। তাই বেঁচে থাকতে আপনাদের সকলের কাছে আমার ইচ্ছাকৃত বা অনিচ্ছাকৃত যেকোনো ভুল বা কাউকে কষ্ট দিয়ে থাকলে আল্লাহর ওয়াস্তে ক্ষমা করে দেবেন। আমি সব সময় ক্ষমা চাই। আল্লাহ বলছেন, তুমি ক্ষমা চাও, আমি ক্ষমা চাইলে খুশি হই।’

তিনি বলেন, ‘করোনা আসছে আমাদের শিক্ষা দিতে। আল্লাহ বান্দাদের বোঝাতে চাচ্ছেন, কে আসলে প্রকৃত ক্ষমতাবান। দুনিয়ার বাহাদুরিতে কোনো বাহাদুরি নেই। মরে গেলে আপনার-আমার পরিচয় লাশ। অহংকার মাটির সাথে মিশে যাবে। কত মানুষ-ই তো ক্ষমতাবান ছিল। আজ তো তারা নেই। তারপরে আমাদের শিক্ষা হয় না। অহংকার করি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শামীম ওসমান


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ