Inqilab Logo

শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২১ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

মাগুরায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন, শ্রমিক সংকট ধান কাটতে কৃষকরা সমস্যায়

মাগুরা থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩ মে, ২০২১, ১২:১৬ পিএম | আপডেট : ১:২৩ পিএম, ৩ মে, ২০২১

জেলার মাঠে মাঠে এখন বোরো ধান বাতাসে দোল খাচ্ছে ।মাঠে মাঠে ইতিমধ্যে সোনালী ধান পাকতে শুরু করেছে । ইতিমধ্যে কৃষকরা ধান কাটতে শুরু করেছে । কৃষি বিভাগ বলছে , আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় চলতি মৌসুমে জেলায় এবার বোরো ধানের বাম্পার ফলনের আশা করা হচ্ছে। কোন প্রাকৃতিক দূযোগ না থাকায় জেলার কৃষকরা ৬০ শতাংশ ধান কেটে ফেলেছে । এবার জেলায় মোট বোরো ধানের চাষ হয়েছে ৩৯ হাজার ৮২১ হেক্টর জমিতে । তার মধ্যে মাগুরা সদর উপজেলায় ১৮ হাজার ৮৭৫ হেক্টর,শ্রীপুর উপজেলায় ১ হাজার ৪২০ হেক্টর,শালিখা উপজেলায় ১৩ হাজার ৭০৬ হেক্টর ও মহম্মদপুর উপজেলায় ৫ হাজার ৮২০ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের চাষ হয়েছে । এবার উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১ লক্ষ৭৯ হাজার ৫৯৩ মেট্রিকটন ।

এদিকে ,বোরো ধানের বাম্পার ফলন হলেও ধান কাটা শ্রমিকের অভাব থাকায় জেলার কৃষকরা সময় মতো ধান কাটতে বিড়ম্বনার সম্মুখিন হচ্ছে। করোনা মহামারি ও বার বার লকডাউনের কারণে কাজের সন্ধানে শ্রমজীবি মানুষ বের হতে না পারায় কৃষকরা শ্রমিক পাচ্ছে না । ফলে অনেক কৃষকের জমির ধান পুরোপুরি কেটে ঘরে উঠাতে অনেক সময় লাগছে ।
সরজমিন মাগুরা সদরের মঘী গ্রামের উত্তর পাড়া মাঠে গিয়ে দেখা যায় ,মাঠে মাঠে বোরো ধান বাতাসে দোল খাচ্ছে । মাঠের অধিকাংশ ধান পেকে যাওয়ায় কৃষকরা ধান কাটা শুরু করেছেন । ইতিমধ্যে কৃষকরা ধান কেটে মাঠে ফেলে রেখেছেন । অনেক কৃষক জানান,এবার ধান কাটা শ্রমির অভাবে তারা যথাসময়ে ধান কাটতে পারছেন না । ধান কাটা শ্রমিক না পাওয়ার ফলে তাদের কাজ ব্যাহত হচ্ছে । যেখানে ৩-৪ দিনের মধ্যে ধান কাটা সম্পন্ন হয় । সেখানে একটি ধানের ফসল কাটতে ১-২ সপ্তাহ লাগছে । তারা আরো জানান,দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা ধান কাটা শ্রমিক এবার করোনা মহামারি ও দেশে বার লকডাউনের ফলে শ্রমিক না আসাতে এ কাজ ব্যাহত হচ্ছে ।
কৃষক আনাস মোল্যা জানান, চলতি মৌসুমে ২৮ শতক জমিতে সে বোরা ধান চায করেছে । আশা করছে এবার ১৫-১৬ মন ধান পাবে। ধান ইতি মধ্যে পাকা শুরু করেছে । কিন্তু ধান কাটার শ্রমিক না পাওয়াতে নিজে নিজে কাজ করছে কৃষকরা । তার সাথে সাথে কাজ করছে তার ৮ বছর বয়সী ছেলে বায়জিদ ।
মাগুরা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক সুশান্ত কুমার প্রামানিক জানান, আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় এবার জেলায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে । বোরো ধানের আবাদের জন্য জেলার কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে বীজ ও সার প্রদান করা হয়েছে । এ চাষে সহযোগিতা করতে কৃষি বিভাগ থেকে জেলার কৃষকদের যথাযথ পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে । কোন দূযোগ ছাড়াই ইতিমধ্যে ৬০ শতাংশ ধান কৃষকের ঘরে উঠে গেছে । বাকি ৪০ শতাংশ ধান কিছুটা পেকেছে । আশা করা হচ্ছে জেলার কৃষকরা পুরোপুরি ধান ঘরে তুলতে পারবে । তবে বেশ কিছু দিন আগে হিট শটে জেলার প্রায় ৩০৩ হেক্টর জমির ধান আক্রান্ত হয়েছে । অতিরিক্ত গরম বাতাস যেসব ধান গাছে লেগেছে সে ধান গুলো চিটায় পরিণত হয়েছে । এ হিট শটে সদরের মঘি,জগদল ও ছোনপুর এলাকার কিছু ধান আক্রান্ত হয়েছে । বাকি সব এলাকায় ধানের ফলন ভালো হয়েছে ।



 

Show all comments
  • Dadhack ৩ মে, ২০২১, ২:১০ পিএম says : 0
    If our country rule by the Quranic law then we would have manufacture Harvesting Machine or any other machinery which needed for farming.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ