Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৭ মে ২০২১, ০৩ জৈষ্ঠ্য ১৪২৮, ০৪ শাওয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

টিকা পেতে যুক্তরাষ্ট্রকে বাংলাদেশের চিঠি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৫ মে, ২০২১, ১২:১২ এএম

অগ্রিম টাকা নিয়েও ভারত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার উদ্ভাবিত সেরামের টিকা বাংলাদেশে রফতানি বন্ধ করে দিয়েছে। এখন সেরাম ইনস্টিটিউটে উৎপাদিত কোভিশিল্ড টিকা পেতে এবার যুক্তরাষ্ট্রের কাছে চিঠি দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। কোভিশিল্ডের ৬ কোটি ডোজ টিকা অবশিষ্ট রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে। ওই খবর জানার পরপরই এই চিঠি দেওয়া হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সুযোগ থাকলে ওই টিকা আমরা অনুদান হিসেবে চাই। আর তা না হলে আমরা টাকা দিয়েই কিনে নিতে চাই। সে কথা চিঠিতে আমরা জানিয়ে দিয়েছি।

আবদুল মোমেন বলেন, কয়েকদিন আগে আমরা জানতে পেরেছি সেরামের উৎপাদিত ৬০ মিলিয়ন (ছয় কোটি) ডোজ কোভিশিল্ড টিকা রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে। যে টিকাগুলো যুক্তরাষ্ট্র ব্যবহার করছে না। মূলত এটা জানার পরে আমরা ওয়াশিংটনকে চিঠি লিখেছি। এ ছাড়া ঢাকায় অবস্থিত যুক্তরাষ্ট্রের দ‚তাবাসকেও আমরা চিঠি দিয়ে টিকার বিষয়টি জানিয়েছি।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে আমরা যে চিঠি দিয়েছি, সেখানে দুইভাবে টিকার কথা বলা হয়েছে। প্রথমত, যুক্তরাষ্ট্র যদি আমাদের টিকাগুলো অনুদান হিসাবে দিতে চায় আমরা নেব। আর যদি তারা অনুদান হিসেবে দিতে না চায়, তাহলে আমরা কিনে নেব। যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে ওই টিকা পেতে আমরা আমাদের তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছি। এখন আমরা যুক্তরাষ্ট্রের উত্তরের অপেক্ষায় রয়েছি।

জানা গেছে, বাংলাদেশ শুধু যুক্তরাষ্ট্র নয়, ভারত থেকে করোনার টিকা আসা নিয়ে অনিশ্চয়তা ও দেশে টিকা কার্যক্রম চলমান রাখার জন্য পরিস্থিতি বিবেচনায় বিভিন্ন উৎস থেকে টিকা পাওয়ার জন্য তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে গত ২৭ এপ্রিল রাশিয়ার টিকা ‘স্পুটনিক-ভি’ জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর। তার ঠিক দুই দিন পর চীনা কোম্পানি সিনোফার্মের তৈরি করোনার টিকা জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার।

বিদেশ থেকে টিকা নিয়ে আসা প্রসঙ্গে গত ২৭ এপ্রিল ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তদরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান বলেন, মে থেকে জুলাই মাসের মধ্যে রাশিয়ার ৪০ লাখ টিকা দেশে চলে আসবে। যাতে এই ৪০ লাখ টিকা আসে, সেজন্য বাংলাদেশ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এই টিকা পাওয়ার পরের ধাপে আরো বেশি টিকা পাওয়ার জন্যও চেষ্টা চালছে।

উল্লেখ, গত সোমবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক সাংবাদিকদের বলেন, উপহার হিসেবে চীনের দেওয়া পাঁচ লাখ ডোজ করোনার টিকা ১০ মে’র মধ্যে বাংলাদেশে পৌঁছাতে পারে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় চীনের এই টিকা আনার ব্যবস্থা করছে।

এদিকে গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভার পর পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন আনার চুক্তি এক অর্থে ভেঙে গেছে। ভারতের সঙ্গে আমাদের ভ্যাকসিন সরবরাহের চুক্তি ছিল। সেটা এক অর্থে ভেঙে গেছে। চুক্তি থেকে আইনগতভাবে তাদের বেরুনোর কোনও পথ নেই। আইনগত- নৈতিক সকল দিক থেকেই আমাদের অবস্থান খুবই স্ট্রং।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ