Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট ২০২২, ০১ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

মর্গ্যানের সমালোচনায় ভন, নাসের

প্রকাশের সময় : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : অনেক আলোচনা, সমালোচনার পরও বাংলাদেশ সফরে দলের সঙ্গী হতে আপত্তি জানিয়ে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক এউইন মর্গ্যান। তাতেই কি সব শেষ হয়ে যায়? যায় না। তাকে ঘিরে বইছে সমালোচনার ঝড়। সামাজিত যোগাযোগমাধ্যমে ভক্ত, ক্রিকেটবোদ্ধাতো বটেই, তাকে নিয়ে সমালোচনায় মেতেছেন তার দেশেরই সাবেকরা। সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে না পারলে তিনি কেমন অধিনায়ক? নিজে যে কাজ করতে পারছে না, সতীর্থদের সেটা কিভাবে বলতে পারেন একজন নেতা? ওয়েন মর্গ্যানের কাছে প্রশ্নগুলো মাইকেল ভন, নাসের হুসেইনদের। সাবেক দুই ইংল্যান্ড অধিনায়কের মতে, বাংলাদেশ সফরে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে অনেক বড় ভুল করেছেন মর্গ্যান।
বাংলাদেশ সফরে ওয়ানডে ইংল্যান্ডকে নেতৃত্ব দেবেন মর্গ্যানের নিয়মিত ডেপুটি জস বাটলার। অধিনায়ক বলেই মর্গ্যানের সিদ্ধান্ত নিয়ে হইচই হচ্ছে অনেক। ডেইলি টেলিগ্রাফে লেখা নিজের কলামে সাবেক অধিনায়ক ভন বলেছেন, নেতৃত্ব ব্যাপারটির সঙ্গেই আপোস করেছেন মর্গ্যান, ‘একজন ভালো নেতার বৈশিষ্ট্য হলো, কখনোই সতীর্থদের এমন কিছু করতে না বলা, যা নিজে করবে না। এই কারণেই মর্গ্যান অনেক বড় ভুল করেছে। সংবাদমাধ্যমে সতীর্থরা ওকে সমর্থন দেবে কিন্তু ওদের মনের কোনে ঠিকই থাকবে যে দলের কঠিন সময়ে অধিনায়কে পাওয়া যায়নি। অধিনায়ক হিসেবে সতীর্থদের সবসময়ই বলতে হয়, ‘মাঠে লড়াইটা হবে কঠিন, সব কিছু নিজের মত করে করা যাবে না’, বলতে হয় আরেকটু বাড়তি চেষ্টা করার মত দৃঢ় হতে। আমি বুঝতে পারছি না, ভবিষ্যতে সে (মর্গ্যান) কিভাবে সতীর্থদের চোখে চোখ রেখে তাকাবে এবং এসব করতে বলবে!’
ডেইলি মেইল-এ লেখা আরেক সাবেক ইংলিম অধিনায়ক নাসের হুসেইনের কলামের মুল সুরও একইরকম, ‘পরেরবার যখন মর্গ্যান সতীর্থদের কাছে বাড়তি কিছু চাইবে, তখন ছেলেদের কেউ হয়ত তার দিকে তাকিয়ে বলবে, ‘আমরা যখন ঝুঁকি নিয়ে ও অস্বস্তির সঙ্গে বাংলাদেশে গিয়েছিলাম, তুমি আমাদের সঙ্গে ছিলে না। আমরা যখন ট্যাংক ও স্নাইপার পরিবেষ্টিত ছিলাম এবং হোটেলের বাইরে যেতে পারছিলাম না, তুমি তখন কোথায় ছিলে? এই সিদ্ধান্তে দলে তার কর্তৃত্ব অবশ্যই কমবে। ক্রিকেটাররা হোটেলরুমে গুটিয়ে থাকবে এবং বদ্ধ মানসিকতায় থাকবে। ব্যাপারটি খুবই অস্বস্তিকর। কিন্তু মূল কথা হলো, দল যেখানে যাচ্ছে। ইসিবি যদি সফর নিরাপদ মনে করে, অধিনায়কেরও উচিত সেখানে থাকা।’ আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশে আসবে ইংল্যান্ডের ওয়ানডে দল।
তবে তেমনটা মানতে ‘নারাজ’ দলের অধিনায়কত্বের দায়িত্ব পাওয়া জস বাটলার। বাংলাদেশ সফরে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরও নিয়মিত ওয়ানডে অধিনায়ক মর্গ্যান ইংল্যান্ড দলের অংশই আছেন বলে মনে করেন বাটলার। এই সিদ্ধান্ত দলে কোনো প্রকার বিভক্তি তৈরি করবে না বলেও দাবি করেছেন বাংলাদেশ সফরে ওয়ানডে দলের দায়িত্ব পাওয়া এই উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। মর্গ্যানের সিদ্ধান্ত নিয়ে বাটলার বিবিসিকে বলেন, ‘এটা নিশ্চিত করেই ড্রেসিং রুমে বিভাজন তৈরি করবে না। আমাদের সবার বন্ধন দৃঢ় এবং আমরা এভাবেই থাকব। এই দলে প্রত্যেকেই খুব ভালো বন্ধু এবং এটা এরকমই রাখতে চাই আমরা। পরের গ্রীষ্মে এখানে (ইংল্যান্ডের মাটিতে) চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আর দুই বছর পরের বিশ্বকাপকে সামনে রেখে কাজ করছি আমরা। এই ড্রেসিং রুমের খেলোয়াড়রা এক সঙ্গে সেই ট্রফি জিততে চায়। এটাই সবার লক্ষ্য।’
সফর শেষে দেশে ফিরে হাসিমুখে মর্গ্যানকে নেতৃত্ব ফিরিয়ে দেবেন বলে জানান বাটলার, ‘ওয়েন মর্গ্যানই ওয়ানডে দলের অধিনায়ক আছেন। আমি আশা করি, তাকে যখন দলে পাওয়া যাবে তখন সে আবার নেতৃত্বে ফিরবে। তার নেতৃত্বে আমরা অসাধারণ উন্নতি করেছি। আমার চোখে সে-ই দলের অধিনায়ক।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মর্গ্যানের সমালোচনায় ভন
আরও পড়ুন