Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ০৭ আষাঢ় ১৪২৮, ০৯ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

ফতুল্লায় যৌতুকের দাবিতে নির্যাতন: ৯৯৯ কল দিয়ে রক্ষা পেলেন আহত গৃহবধূ

নারায়ণগঞ্জ থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৫ মে, ২০২১, ৩:১৭ পিএম

বাঁচলেন ওই গৃহবধূ ও তার ভাই বোন। এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করেছে।।
রবিবার সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার নিশ্চিন্তপুর এলাকায় রসুল শেখের বাড়িতে এ ঘটনায় সোমবার রাতে থানায় মামলা দায়ের করেছেন আহত গৃহবধূ আইরিন শেখ।
মামলায় তার স্বামী রসুল শেখ (৫২), দেবর আলী শেখ কালা (৪৮) ও অপু আহমেদ জয় (৩৫) নামের তিনজনকে এজাহার নামীয়সহ অজ্ঞাত আরো ছয়জনকে আসামী করা হয়েছে।

মামলায় উল্লেখ করা হয়, সদর উপজেলার ফতুল্লা থানাধীন পাগলা নিশ্চিন্তপুর এলাকার মৃত তরব আলী শেখের ছেলে রসুল শেখ ২৪ বছর পূর্বে একই এলাকার মৃত নজরুল ইসলামের মেয়ে আইরিন শেখকে (৪৪) বিয়ে করেন। তাদের সংসারে রায়হান শখ (২০) নামে এক ছেলে সন্তান রয়েছে। বাদির অভিযোগ, রসুল শেখ বিয়ের পর থেকেই ছয় লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে আসছেন। এর জন্য প্রায় সময় স্ত্রী আইরিনকে শারীরিক ও মানষিক নির্যাতন করে আসছেন। এ বিষয় নিয়ে একাধীকবার পারিবারিক ও সামাজিকভাবে আপোষ মিমাংসা হলেও যৌতুকের দাবিতে নির্যাতন অব্যাহত রয়েছে।

এরই জের ধরে গত রবিবার সকালে যৌতুকের দাবীতে আইরিনকে স্বামী রসুল শেখ ও তার ছাট ভাই এলাপাতাড়ি মারধর করে এবং গলায় শ্বাসরোধ করে হত্যার চষ্টা চালায়। এতে তারা ব্যর্থ হয় আইরিনের ডান পায়ের হাঁড় ভেঙ্গ দেয়। খবর পয় ওইদিন বিকেলে আহত আইরিনকে দেখতে তার বড় ভাই রেজাউল ইসলাম (৫২), রিয়াজুল ইসলাম (৪৬), জিয়াউল ইসলাম (৩৬), বড় বোন আফসারী খানম (৫৫) ওই বাড়িতে যান। এতে ক্ষিপ্ত হয় রসুল শেখ ও তার ছোট ভাইসহ আরো লোকজন নিয়ে আইরিনের বড় ভাই বোনদের উপর হামলা চালায়। তাদেরকে এলোপাতাড়ি মারধর করে আইরিনের বড় বোনের শ্লীলতাহানী করে। এ সময় ৯৯৯ এ কল পেয়ে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত আইরিন ও তার ভাই বোনদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠায়। তবে এর আগে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আইরিনের যৌতুকলোভী স্বামী রসুল শেখ ও তার ভাইসহ হামলায় জড়িতরা সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার (ইনচার্জ) ওসি রকিবুজ্জামান বলেন, যৌতুকের দাবিতে নির্যাতনের অভিযোগে মামলা গ্রহণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে আমরা গ্রেফতার করেছি। আসামীদের গ্রফতারে পুলিশের অভিযান চলছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আহত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ