Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ০২ আষাঢ় ১৪২৮, ০৪ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

টিকার মেধাস্বত্ব ছাড় দিতে জার্মানির আপত্তি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ মে, ২০২১, ৭:৫২ পিএম

কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের মেধাস্বত্ত্বে ছাড় দিতে আপত্তি জানিয়েছে জার্মানি। গতকাল বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে দেশটির সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘টিকার ডোজের সংখ্যা বাড়ানোর জন্য মেধাস্বত্ব ছাড়ের প্রয়োজন নেই। মেধাস্বত্ত্বের সংরক্ষণ নতুন কিছু সৃষ্টির একটি উৎস এবং এমনটাই থাকা উচিত।’

করোনা টিকা আবিষ্কারের পর বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তা উৎপাদনের অনুমোদন দেওয়ার জন্য ছয় মাস আগে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা বরাবর আবেদন করেছিল ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা। কিন্তু এ ব্যাপারে এ দুটি রাষ্ট্রের প্রয়োজন ছিল যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ ডব্লিউটিওর সদস্যরাষ্ট্রগুলোর সম্মতি ও সুপারিশ।

সেই সুপারিশের জন্য ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকাসহ বিশ্বের প্রায় ৬০ দেশ যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে অনুরোধ করেছিলেন; কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প এ বিষয়ে কোনো প্রকার সুপারিশ করতে তীব্র আপত্তি জানান।

তবে তার উত্তরসূরি প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ২০২০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারে বলেছিলেন, তিনি ক্ষমতায় গেলে টিকা উৎপাদনে মেধাস্বত্ব ছাড়ে যতখানি সম্ভব বিশ্বের উন্নয়নশীল দেশগুলোকে সহযোগিতা করবেন। পরে বিপুল চাপের মুখে রোনাভাইরাসের টিকার মেধাস্বত্ত্ব ছাড়ে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার উদ্যোগের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। গত বুধবার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন যুগান্তকারী এ সিদ্ধান্ত নেন।

জার্মানির এ অবস্থানের আগে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) বলেছিল, তারা কোভিড টিকার মেধাস্বত্ত্ব উন্মুক্ত করে দেওয়ার প্রস্তাব নিয়ে আলোচনায় রাজি। জোটের একাধিক সদস্য রাষ্ট্র প্রস্তাবটিতে পূর্ণ সমর্থনও দিয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

মেধাস্বত্ত উন্মুক্ত হলে টিকার উৎপাদন ব্যাপকভাবে বাড়বে ও দরিদ্র দেশগুলোকে সুলভ মূল্যে জীবন রক্ষাকারী ভ্যাকসিন সরবরাহ করা যাবে বলে দাবি সমর্থকদের।

অন্যদিকে প্রস্তাবটির বিরোধীরা বলছে, মেধাস্বত্ত্বে ছাড় দিলেও কাঙ্ক্ষিত ফল পাওয়া যাবে না। তাদের মতে, ভ্যাকসিন উৎপাদনের ক্ষেত্রে বাধা হচ্ছে উৎপাদন সক্ষমতা ও এর মান ধরে রাখা, মেধাস্বত্ত্ব নয়।


ওষুধ নির্মাতা কোম্পানিগুলোর এ আপত্তির সঙ্গে গলা মিলিয়েছে জার্মানিও। উৎপাদন বাড়াতে টিকা নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের অংশীদারদের সঙ্গে কাজ করছে বলেও জানিয়েছে দেশটি।


ইইউ’র সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক শক্তি জার্মানির কোম্পানি বায়োএনটেকের বানানো কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন বিশ্বজুড়ে বহুল ব্যবহৃত টিকাগুলোর মধ্যে অন্যতম। সূত্র : রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জার্মানি


আরও
আরও পড়ুন