Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ০৫ আষাঢ় ১৪২৮, ০৭ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

আবিদের ডাবলে চূড়ায় পাকিস্তান

একজন রাহীর অভাব টের পেল জিম্বাবুয়ে

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ মে, ২০২১, ১২:০৩ এএম

হারারেতে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে পাকিস্তান ইনিংস ঘোষণার আগে স্কোরবোর্ডে তোলে ৫১০ রান। প্রথম দিন শেষেই আভাস মিলছিল বড় সংগ্রহের। তবে এতটা বড় হয়তো আশা করেনি পাকিস্তানিরাই। ৪ উইকেটে ২৬৮ রানে প্রথম দিন শেষ করার পর গতকাল সাজিদ খান (২০), মোহাম্মদ রিজওয়ান (২১) ও হাসান আলি (০) যখন বিদায় নেয় তখন ৭ উইকেট হারিয়ে সফরকারিদের সংগ্রহ ছিল ৩৪১ রান। তারপর কি হলো? সে ঘটনা সবারই জানা। পাকিস্তানি ওপেনার আবিদ আলির হার না মানা ২১৫ রানের বদৌলতে সফরকারিরা পেয়ে যায় বিশাল সংগ্রহ।

তাতে জিম্বাবুয়ে একটা আক্ষেপ করতেই পারে। তাদের দলে বেøসিং মুজারাবানি, রিচার্ড নাগাভারা, লুক জংগে, ডোনাল্ড তিরিপানো, তেন্ডাই চিসোরো ও মিল্টন সুম্বারা থাকলেও ছিলেন না একজন আবু জায়েদ রাহী। না ভুল পড়ছেন না। তিনি বাংলাদেশী তরুণ ডানহাতি পেসার। কিভাবে? আসুন একটু পরিসংখ্যানের পাতা ওলট পালট করে দেখি। এখন পর্যন্ত পাকিস্তানি ওপেনার আবিদ আলি খেলেছেন ১২টি টেস্ট। তাতে ১৯ ইনিংস ব্যাটিংয়ের সুযোগ পেয়েছে তিনি। প্রতিপক্ষ হিসেবে ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ এবং জিম্বাবুয়েকে পেয়েছেন।
যদি এই পাকিস্তানিকে প্রশ্ন করা যেত টেস্ট ক্রিকেটে তার আক্ষেপের জায়গা কোনটি। নিশ্চয়ই চোখ বন্ধ করেই তিনি উত্তর দিতেন বাংলাদেশের নাম। কারন টাইগারদের বিপক্ষে একটি মাত্র টেস্টে খেলার সুযোগ হয়েছিল তার। আর রাওয়ালপিন্ডির সেই ম্যাচে রাহীর বলে লিটন দাসের তালুবন্দী হয়ে ফিরতে হয় তাকে। রানের খাতা খোলার সুযোগটিই যে দেননি রাহী। আর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিনিই কিনা রান পাহাড়ে পৌঁছে দিলেন পাকিস্তানকে। গতকাল আবিদের ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির দিনে ঢাকা পড়ে গেছে নুমান আলির ওয়ানডে স্টাইলে খেলা বীরোচিত ৯৭ রানের ইনিংস।
অন্যদিকে দুনিয়ার তাবত বোলিং আক্রমণের বিপক্ষে যার ব্যাট দারুণ সফল, সেই বাবর আজম বিস্ময়করভাবে ব্যর্থ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে। প্রথম টেস্টে পাকিস্তান অধিনায়ক আউট হন প্রথম বলেই, যা তার টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম ‘গোল্ডেন ডাক।’ দ্বিতীয় টেস্টে আউট হন ২ রানেই। জিম্বাবুয়ে সিরিজে বাবর আজমের ব্যর্থতার কারণ অনুসন্ধানে শোয়েব আখতার যেমন উদাহরণ টানলেন কোভিড পরিস্থিতি দিয়ে, ‘এই সময়টায় বসে থাকতে হয়, মনোযোগ দিয়ে খেলা দেখতে হয়, বেশি কথাও বলা যায় না। মূলত তাই বলা যায়, কোয়ারেন্টিনের ভেতর কোয়ারেন্টিনে থাকতে হচ্ছে। এই সিরিজে বাবরের অন্তত ৩০০-৪০০ রান করা উচিত ছিল।’
পাকিস্তানের রান পাহাড়ে শুরুতেই পিষ্ট স্বাগতিকরা। দ্বিতীয় দিন শেষে ৪ উইকেটে ৫২ রান তুলেছে জিম্বাবুয়ে। এখনও দলটি পিছিয়ে আছে ৪৫৮ রানে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তান


আরও
আরও পড়ুন