Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ০২ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

নেগেটিভ হলে আজই অনুশীলনে তামিমরা

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১০ মে, ২০২১, ১২:০৩ এএম

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) আবেদনের প্রেক্ষিতে শিথিল করা হচ্ছে শ্রীলঙ্কা ফেরত ক্রিকেটারদের কোয়ারেন্টিন নীতিমালা। একটি নমুনা পরীক্ষায় নেগেটিভ এলে তারা অনুশীলনে যোগ দিতে পারবেন। গণমাধ্যমকে এমনটিই জানিয়েছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন।
গত ৪ মে শ্রীলঙ্কা সফর শেষ করে দেশে ফিরে টেস্ট দল। এই দলের অনেক সদস্য আছেন ওয়ানডে দলেও, যারা এই মাসে লঙ্কানদের বিপক্ষে ঘরের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজ খেলবেন। সরকারী নিয়ম অনুযায়ী বিদেশ ফেরতদের ক্ষেত্রে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিন বাধ্যতাম‚লক। তবে শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশ দল ছিল জৈব সুরক্ষা বলয়ে। তাই করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সুযোগ নেই বললেই চলে। বিসিবি শুরুতে জানিয়েছিল, ৩ দিন হোম কোয়ারেন্টিন করেই অনুশীলনে যোগ দিতে পারবেন তামিম ইকবালরা। তবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনের শর্তই জুড়ে দিয়েছিল।
২৩ মে থেকে শুরু হবে ওয়ানডে সিরিজ। তার আগে পর্যাপ্ত প্রস্তুতির জন্য প্রয়োজন যথেষ্ট অনুশীলন। কোয়ারেন্টিন দীর্ঘ হলে সেই অনুশীলনের সুযোগ কমে যায়। বিসিবি তাই বারবার যোগাযোগ করেছে মন্ত্রণালয়ের সাথে। বিসিবির প্রধান নির্বাহী জানিয়েছেন, বিসিবির অনুরোধে ওয়ানডে স্কোয়াডে থাকা ক্রিকেটারদের জন্য কোয়ারেন্টিন শর্ত শিথিল করেছে মন্ত্রণালয়। বিসিবির প্রধান নির্বাহী বলেন, ‘আমরা আশা করছি, শ্রীলঙ্কা থেকে যারা এসেছেন তারা আজকালের মধ্যেই একটা টেস্টে নেগেটিভ হওয়ার পর তারা জাতীয় দলের সাথে যোগ দেবেন। (কোয়ারেন্টিনের দিন কমেছে কি না) আমাদেরকে সেভাবেই বলা হয়েছে, খেলোয়াড়রা একটি পরীক্ষার নেগেটিভ সনদ পেলে জাতীয় দলের ক্যাম্পে যোগ দিতে পারবেন। জাতীয় দলের যারা আছেন তাদের প্র্যাকটিসের আওতায় নিয়ে আসা ম‚ল চ্যালেঞ্জ। আমরা আজকেই (গতকাল) একটা সবুজ সংকেত পেয়েছি। একটি টেস্টের ফলাফল নেগেটিভ সাপেক্ষে জাতীয় দলের অনুশীলনে যোগ দিতে পারবেন। আমরা আশা করছি খুব শীঘ্রই তারা অংশগ্রহণ করবেন।’
টেস্ট স্কোয়াডে ছিলেন না কিন্তু ওয়ানডের প্রাথমিক স্কোয়াডে আছেন, এমন ক্রিকেটাররা মিরপুরে অনেকদিন ধরেই করছেন শ্রীলঙ্কা সিরিজের অনুশীলন। ঈদের আগে তাদের সর্বশেষ অনুশীলন ছিল ৯ মে। তবে তামিমরা অনুমতি পেলে ঈদের আগে আরও ২ দিন অনুশীলন হতে পারে।
ক্রিকেটারদের ক্ষেত্রে কোভিড প্রটোকল শিথিল করা হচ্ছে বলে অনেকেই বিষয়টির সমালোচনা করছেন। তবে ক্রিকেটাররা বাইরের জগত থেকে অনেকটা বিচ্ছিন্ন থেকেই সফর সম্পন্ন করেন। তাতে সংক্রমণের ঝুঁকি খুবই কম। এসব বিষয় বিবেচনায় ক্রীড়া ক্ষেত্রে যে আলাদা প্রটোকল অনুসরণ করা হচ্ছে, তা-ই মনে করিয়ে দিলেন সুজন, ‘একটা জিনিসে কিন্তু একটু দ্বিধা আছে সবার। এসব বিষয়ে কোনো কোনো ক্ষেত্রে অনেকে ভুলভাবে ব্যাখ্যা করছে। বিশ্বজুড়ে ক্রিকেটে এখন আলাদা একটা প্রটোকল আছে। এগুলো কিন্তু সাধারণ মানুষের জন্য প্রযোজ্য নয়।’ বিসিবির প্রধান নির্বাহী বিষয়টিকে ব্যাখ্যা করলেন এভাবে, ‘খেলোয়াড়রা সাধারণ যাত্রীদের মতই আসছেন একটি নেগেটিভ সনদ নিয়ে। এরপর সাধারণ যাত্রীদের ১৪ দিনের ভেতরে আর নমুনা পরীক্ষা করাতে হয় না। খেলোয়াড়রা সরকারী প্রটোকল মেনে কোয়ারেন্টিন করছেন, কোয়ারেন্টিনের সময়ও কয়েকটি টেস্ট করাতে হচ্ছে। সেগুলোতে নেগেটিভ হলে একমাত্র খেলায় অংশ নিতে পারে। এই প্রটোকল শুধু বাংলাদেশে তা কিন্তু নয়।’
তবে এর মধ্যে সিরিজ পেছানোর শঙ্কাও তৈরি হয়েছে। আগামী ২৩ মে’র পরিবর্তে ২৭ মে থেকে সিরিজ শুরু হতে পারে বলে গুঞ্জন উঠেছে দেশের ক্রিকেট অঙ্গনে। আনুষ্ঠানিকভাবে সিরিজ পেছানোর কোনো ঘোষণা বা সিদ্ধান্ত এখনও না এলেও জানা গেছে, সিরিজের জন্য পরিপূর্ণ প্রস্তুতি নিতে কিছুটা বেশি সময় লেগে যাবে। ম‚লত বাধ সেধেছে প্রোডাকশন টিম। ভারতীয় কর্মীদের নিয়ে গড়া এই দলটি ঢাকায় এলে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে আগে পালন করতে হবে পূর্ণ কোয়ারেন্টিন। তার আগে কাজে নেমে পড়ার সুযোগ নেই।
রিয়েল ইমপ্যাক্ট নামের এই প্রোডাকশন দল দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশের ক্রিকেটে স¤প্রচারের কাজের সাথে যুক্ত। এই দলের অধিকাংশই ভারতীয়। শ্রীলঙ্কা সিরিজের জন্য বাংলাদেশ সফরে এলে তাদের থাকতে হবে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে। কারণ সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী ভারত ফেরতদের জন্য ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন বাধ্যতাম‚লক।
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ভারত ফেরতদের ক্ষেত্রে ‘জিরো টলারেন্স নীতি’ অনুসরণ করায় কোভিড প্রটোকল শিথিলের কোনো সুযোগ বা সম্ভাবনাও নেই। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি) তাই বাধ্য হয়ে মানতে হচ্ছে বিষয়টি। তাই পরিকল্পনায় রাখতে হচ্ছে সিরিজ কিঞ্চিৎ পিছিয়ে দেওয়ার বিষয়টিও। অবশ্য বিসিবি যদি বিকল্প কোনো ব্যবস্থা রাখতে পারে, অর্থাৎ অন্য কোনো প্রোডাকশন টিমকে সিরিজ সম্প্রচারের দায়িত্ব দেয় তাহলে সিরিজ না পেছালেও নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সবকিছু প্রস্তুত করার সুযোগ রয়েছে। তবে রিয়েল ইমপ্যাক্টকে দায়িত্ব দিলে ২৭ মে প্রথম ওয়ানডে মাঠে গড়াতে বলে জানা গেছে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন বলেন, ‘এটা অবশ্যই একটা চ্যালেঞ্জ। তারপরও আপনারা জানেন এক্ষেত্রে সরকারের নির্দিষ্ট প্রটোকল আছে। আমরা চেষ্টা করছিৃ এছাড়া অন্য যে অপশন আছে সেগুলোও দেখছি। বিশ্বের অন্যান্য জায়গায় যেসব ইভেন্ট হচ্ছে, সেসব জায়গা থেকে প্রয়োজনে ক্রু এনে খেলা চালাব।’ যদিও তার দাবি, সিরিজের স‚চি পরিবর্তনের সম্ভাবনা আপাতত নেই, ‘সিরিজ রিশিডিউলের সম্ভাবনা এই মুহূর্তে দেখছি না। কিছুটা চ্যালেঞ্জ আছেই। তবে এই বিষয়টি যেন এড়ানো যায় সেভাবে কাজ করছি।’
ঘোষিত সূচি অনুযায়ী, আগামী ১৬ মে বাংলাদেশে আসবে লঙ্কানরা। বাংলাদেশে এসে ৩ দিন কোয়ারেন্টিন শেষে অনুশীলনে নামবেন কুশল পেরেরা, কুশল মেন্ডিসরা। আগামী ২৩, ২৫ ও ২৭ মে সিরিজের তিনটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অনুশীলনে তামিমরা
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ