Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ০৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

পাকিস্তানে জুমার নামাজে আত্মঘাতী বোমা হামলা নিহত ২৫ আহত ৩০

প্রকাশের সময় : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম | আপডেট : ১২:৩৮ এএম, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

জামায়াতুল আহরারের দায় স্বীকার

ইনকিলাব ডেস্ক
পাকিস্তানের পেশোয়ারে একটি মসজিদে জুমার নামাজের সময় আত্মঘাতী বোমা হামলায় অন্তত ২৫ জন নিহত হয়েছেন। গতকাল পেশোয়ারের মোহমান্দ এজেন্সির আনবার তেহশিল মসজিদে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।
পাকিস্তানের সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে, গতকাল জুমার নামাজের সময় আত্মঘাতী বোমা হামলায় অন্তত ২৫ জন নিহত ও ৩০ জন আহত হয়েছেন। আত্মঘাতী হামলাকারী মসজিদের বারান্দায় বোমাটির বিস্ফোরণ ঘটায়। জামায়াতুল আহরার জেইউএ এ হামলার দায় স্বীকার করে জানিয়েছে, শান্তি কমিটির নামধারী সরকার সমর্থক একটি মিলিশিয়া গোষ্ঠীর সদস্যরা মুসল্লিদের মধ্যে থাকায় তারা মসজিদটিতে হামলা করেছে। নিহতদের লাশ ও আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।
এর আগে বৃহস্পতিবার একই এলাকায় গ্রেনেড হামলায় এক নারী নিহত হন। আর এ মাসের শুরুতে আদালত প্রাঙ্গণে বোমা হামলায় ১৪ জন নিহত ও ৫২ জন আহত হন।
জামায়াতুল আহরারের দায় স্বীকার
পাকিস্তান তালিবানের একটি গ্রুপের একজন মুখপাত্র ভয়েস অব আমেরিকার সাথে যোগাযোগ করে হামলার দায় স্বীকার করেছেন। জামায়াতুল আহরার জেইউএ জানায়, ‘শান্তি কমিটি’ নামের সরকার সমর্থক একটি মিলিশিয়া গোষ্ঠীর সদস্যরা মুসল্লিদের মধ্যে থাকায় তারা মসজিদটিতে হামলা চালিয়েছে।
গতমাসে যুক্তরাষ্ট্র জেইউএকে সন্ত্রাসী সংগঠনের তালিকাভুক্ত করে। কারণ, এই সংগঠনটি বেসামরিক নাগরিক, ধর্মীয় সংখ্যালঘু, সামরিক বাহিনীর সদস্য এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর দূর অতীতে অনেকগুলো হামলা চালিয়েছে এবং গত মার্চে পেশোয়ারে মার্কিন কন্স্যুলেটের দু’জন কর্মচারীকে হত্যার জন্য তাদেরকেই দায়ী করা হয়।
পাকিস্তানের কর্মকর্তারা অভিযোগ করে আসছেন, সন্ত্রাসী গ্রুপটি আফগান সীমান্তবর্তী এলাকায় তাদের তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে এবং তারা মদদ লাভ করছে পার্শ্ববর্তী দেশের গোয়েন্দা সংস্থার। তবে কাবুল এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে।
পাকিস্তান তালিবানের সাথে সম্পর্কযুক্ত সন্ত্রাসী গ্রুপ জেইউএ গত এক দশকে আত্মঘাতী বা অন্য ধরনের হামলা চালিয়ে পাকিস্তানে হাজার হাজার মানুষকে হত্যা করেছে। পাকিস্তানের সামরিকবাহিনী এবং আধা সামরিকবাহিনী আফগানিস্তানের সীমান্তবর্তী উপজাতি এলাকায় বড় ধরনের অভিযান পরিচালনা এবং সন্ত্রাসীবাহিনীকে নির্মূলের দাবি করে আসছে। কর্মকর্তারা জানান, উত্তর ওয়াজিরিস্তানের উপজাতি এলাকা এবং তার আশপাশে সামরিকবাহিনী পরিচালিত ‘যারবে আযব’ অভিযানে ৩ হাজার ৫শ’রও বেশি সন্ত্রাসী নিহত এবং ৪শ’ ৫০ জন সেনা সদস্য প্রাণ হারিয়েছেন।
সমালোচকরা বলছেন, সাম্প্রতিক হামলা প্রমাণ করে যে, সন্ত্রাসীরা এখনো বড় ধরনের হামলা পরিচালনায় সক্ষম। তারা মূলত বেসামরিক স্থাপনা, জনগণের পার্ক এবং হাসপাতালকে তাদের লক্ষ্যস্থল হিসেবে বেছে নিচ্ছে। Ñসূত্র : ডন, ট্রিবিউন এক্সপ্রেস, ভয়েস অব আমেরিক।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ