Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৩ জুন ২০২১, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ০১ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

ফাইনালের মহড়ায় জিতল চেলসি

বায়ার্নের শিরোপা উৎসব, অপেক্ষা বাড়ল সিটির

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ মে, ২০২১, ১২:০০ এএম

‘ভাগ্যিস ম্যাচটা লিগেরই ছিল’-কথাটা ভাবতেই পারেন ম্যানচেস্টার সিটি কোচ পেপ গার্দিওলা। দুই চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালিস্টের দেখা হলো লিগে, সে ম্যাচটায় শেষ দিকের গোলে হারার পর এমন ভাবনা না আসাটাই বরং বেশি আশ্চর্যের। সেই ‘পোশাকি মহড়ায়’ থমাস টুখেলের চেলসির কাছে গতপরশু ২-১ গোলের এই হার লিগ নিশ্চিত করার অপেক্ষাটাও বাড়িয়ে দিয়েছে সিটির।

আগামী ২৯ মে তুরস্কের ইস্তানবুলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে মুখোমুখি হওয়ার কথা দুই দলের। তার আগেই মুখোমুখি দুই দল, যেখানে সিটির জন্য ছিল শিরোপা নিশ্চিতের হাতছানিও। এমন এক ম্যাচে ফাইনালের ছাপ দেখাটাই স্বাভাবিক।

তবে তাতে এদিন পানি ঢালেন গার্দিওলা। প্রথম একাদশে এদিন ৯টা পরিবর্তন আনেন তিনি। তবে স্প্যানিশ কোচকে চিনে থাকলে বিষয়টাকে চোখ সওয়াই মনে হওয়ার কথা যে কারো। এরপর সিটি যেমন খেলেছে, তাও বেশ পরিচিতই। বলের দখলে এগিয়ে থেকেও অবশ্য গোলের সুযোগ তৈরি করতে পারেনি গার্দিওলার শিষ্যরা। বরং প্রতি আক্রমণে চেলসিই ত্রাস ছড়িয়েছে সিটি শিবিরে, ৩২ মিনিটে টিমো ভেরনারের কল্যাণে একবার লক্ষ্যভেদ করলেও অফসাইডে কাটা পড়ে তা।

এর মিনিট তিনেক পর ম্যাচে প্রথমবারের মতো প্রতিপক্ষ গোলমুখে শট নেয় সিটি। প্রথম গোলের অপেক্ষাও খুব একটা করতে হয়নি দলটিকে। ৪৪ মিনিটে গ্যাব্রিয়েল জেসুসের ক্রস সার্জিও আগুয়েরো প্রথমবার নিয়ন্ত্রণে নিতে পারেননি, সুযোগে রাহিম স্টার্লিংই শট করে গোল এনে দেন লিগের শীর্ষে থাকা দলটিকে।

বিরতির আগে আবারও সুযোগ সিটির সামনে। জেসুস ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টি যায় দলটির পক্ষে। শট নিতে আসা আগুয়েরোর ‘পানেনকা’ চেষ্টা ব্যর্থ হয়। ফলে ১-০ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় সিটি। চেলসি সমতায় ফেরে ৬৩তম মিনিটে। চেজার অ্যাজপিলিকুয়েতার পাসে মরক্কান মিডফিল্ডার হেকিম জিয়েখের নিচু শট জড়ায় সিটির জালে। ম্যাচের অন্তিম সময়ে ভেরনারের পাস থেকে গোল করে চেলসির জয় নিশ্চিত করেন মার্কোস আলনসো। এর আগে অবশ্য ৭৯ আর ৮১ মিনিটে দু’বার লক্ষ্যভেদ করেছিল চেলসি, সেগুলোও অফসাইডে কাটা পরে। তবে তাতে কী, জয়টা তো পাওয়া হয়েই গেছে চেলসির! একই দিনে লিগের আরেক ম্যাচে ২-০ গোলে জিতেছে লিভারপুল। সাদিও মানে স্বাগতিকদের এগিয়ে নেওয়ার পর ব্যবধান বাড়ান থিয়াগো আলকান্তারা।

এর ফলে ৩৫ ম্যাচে ৬৪ পয়েন্ট নিয়ে তিনে উঠে এসেছে ব্লুজরা। অন্যদিকে সমান ম্যাচে ৮০ পয়েন্ট নিয়ে সিটির অপেক্ষা বাড়ল অন্তত এক দিনের জন্য। ইউনাইটেড হারলেই অবশ্য লিগ নিশ্চিত হয়ে যাবে দলটির। সমান ম্যাচ থেকে রেড ডেভিলদের সংগ্রহ ৬৭ পয়েন্ট।
অন্যদিকে জার্মান বুন্দেসলিগার টানা নবম শিরোপা জিতে নিয়েছে বায়ার্ন মিউনিখ। শনিবার দিবাগত রাতে বরুসিয়া মোশেনগ্লাডবাখের বিপক্ষে মাঠে নামার আগের তাদের শিরোপা জয় নিশ্চিত হয়। কারণ, দিনের অপর ম্যাচে লাইপজিগ ৩-২ গোলে হারায় শিরোপা প্রত্যাশী বরুসিয়া ডর্টমুন্ডকে। তাতে ২ ম্যাচ হাতে রেখেই শিরোপা জয় নিশ্চিত হয় বাভারিয়ানদের। এটা বায়ার্নের ৩০তম লিগ শিরোপা।

এরপর মাঠে নেমে মোশেনগ্লাডবাখের বিপক্ষে রীতিমতো গোল উৎসব করেছে তারা। রবার্ত লেভানদোভস্কির হ্যাটট্রিকে জয় পেয়েছে ৬-০ গোলে। লেভানদোভস্কি ম্যাচের ২, ৩৪ ও ৬৫ মিনিটে গোল তিনটি করেন। এ ছাড়া থমাস মুলার ২৩ মিনিটে, কিংসলে কোমান ৪৪ মিনিটে ও লিরয় সানে ৮৫ মিনিটে গোল করেন।

এই ম্যাচে হ্যাটট্রিক করে চলতি মৌসুমে বুন্দেসলিগায় লেভানদোভস্কির গোলসংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৯। আর মাত্র ১টি গোল করলেই ৪৯ বছর ধরে অক্ষত থাকা গার্ড মুলারের ৪০ গোলের রেকর্ড ছুঁয়ে ফেলবেন। মুলার ১৯৭১-৭২ মৌসুমে বুন্দেসলিগায় সর্বোচ্চ ৪০ গোল করেছিলেন। এরপর গেল ৪৯ বছরেও সেই রেকর্ড কেউ ছুঁতে পারেনি। এই জয়ে ৩২ ম্যাচ থেকে বায়ার্নের সংগ্রহ বেড়ে হয়েছে ৭৪। আর দ্বিতীয় স্থানে থাকা লাইপজিগের সংগ্রহ ৬৪। শেষ শেষ ২ ম্যাচ জিতলেও আর বায়ার্নকে ধরতে পারছে না তারা।

শিরোপা লড়াইয়ে এগিয়ে যেতে গতপরশু লা লিগায় অ্যাটলেটিকোর বিপক্ষে জয় পেতে হত বার্সেলোনার। তবে নিঃষ্প্রান ড্রতেই শেষ হয়েছে খেলা। এই ড্রয়ে অ্যাটলেটিকো ৭৭ পয়েন্ট নিয়ে আছে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে। বার্সেলোনা আপাতত দুইয়ে উঠে এসেছে ৭৫ পয়েন্ট নিয়ে। তবে গতকাল রাতে নিজেদের ম্যাচে সেভিয়াকে হারালেই বার্সেলোনা ও অ্যাটলেটিকোর বিপক্ষে হেড টু হেডে এগিয়ে থেকে শীর্ষে উঠে আসবে জিনেদিন জিদানের রিয়াল। সে ম্যাচের ফল পাঠক ইতিমধ্যে জেনে গেছেন। তাই এই ড্রয়ে চ‚ড়ান্ত লাভটা যে রিয়ালেরই হয়েছে তা বলাই বাহুল্য।


এক নজরে ফল
লিভারপুল ২-০ সাউথহ্যাম্পটন
ম্যানচেস্টার সিটি ১ -২ চেলসি
লিডস ইউনাইটেড ৩-১ টটেনহ্যাম
লেস্টার সিটি ২-৪ নিউক্যাসল
বরুশিয়া ডর্টমুন্ড ৩-২ লাইপজিগ
বায়ার্ন মিউনিখ ৬-০ মোশেনগ্লাডবাখ
বার্সেলোনা ০-০ অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ
দল ম্যাচ জয় হার ড্র পয়েন্ট
ম্যানসিটি ৩৫ ২৫ ৫ ৫ ৮০
ম্যানইউ ৩৩ ১৯ ৪ ১০ ৬৭
চেলসি ৩৫ ১৮ ৭ ১০ ৬৪
লেস্টার ৩৫ ১৯ ১০ ৬ ৬৩
ওয়েস্টহ্যাম ৩৪ ১৭ ১০ ৭ ৫৮

স্প্যানিশ লা লিগা
দল ম্যাচ জয় হার ড্র পয়েন্ট
অ্যাট.মাদ্রিদ ৩৫ ২৩ ৪ ৮ ৭৭
বার্সেলোনা ৩৫ ২৩ ৬ ৬ ৭৫
রিয়াল মাদ্রিদ ৩৪ ২২ ৪ ৮ ৭৪
সেভিয়া ৩৪ ২২ ৮ ৪ ৭০
সোসিয়াদাদ ৩৫ ১৫ ৯ ১১ ৫৬



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চেলসি

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ