Inqilab Logo

বৃহস্পিতবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ০৩ ভাদ্র ১৪২৯, ১৯ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

বার্সাকে ভয় পাচ্ছে না গারিতানো

প্রকাশের সময় : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : মৌসুমে একবারই মাঠে দেখা গেছে ‘এমএসএন’ ত্রয়ীকে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গ্রæপ পর্বের প্রথম ম্যাচে সেদিন বিধ্বংসী বার্সেলোনাকেই দেখেছিল ফুটবল বিশ্ব। আসরে নিজেদের রেকর্ড ৭-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল সেল্টিককে। লিওনেল মেসি করেছিলেন হ্যাটট্রিক, লুইস সুয়ারেজ দুটি ও নেইমার করেন একটি করে গোল। সাকুল্যে পাঁচ পাঁচটি গোলে আবদান ছিল নেইমারের। তবে লা লিগায় এখন পর্যন্ত একসাথে নামা হয়নি মেসি-সুয়ারেজ-নেইমারের। আজ লেগানেসের মাঠে আসতে পারে সেই ক্ষণ।
লেগানেসের মাঠ এস্তাদিও বুতার্কুয়েও প্রস্তুত প্রথমবারের মত বার্সাকে স্বাগত জানাতে। তবে লা লিগায় নিজেদের শেষ ম্যাচে ন্যু ক্যাম্পে নবাগত আলাভেজের কাছে ২-১ গোলে হারের তিক্ত স্বাদ নিয়েই প্রতিপক্ষের মাঠে যাচ্ছে লুইস এনরিকের দল। গেল এপ্রিলের পর ঘরের মাঠে যা ছিল তাদের প্রথম হার। সেই সুযোগে লিগ টেবিলের শীর্ষে উঠে গেছে রিয়াল মাদ্রিদ। ৩ ম্যাচে পূর্ণ ৯ পয়েন্ট তাদের, ৭ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে সেভিয়া। সমান ম্যাচে ৬ পয়েন্ট বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বার্সার। শেষ ম্যাচের সেই হার ভাবিয়ে তুলেছে কাতালান দলটিকে। বিশেষ করে ঘরের মাঠে দুই গোল খাওয়া স্পষ্ট রক্ষণ দুর্বলতার প্রমাণ বহন করে। সেদিন শুরুর একাদশে ছিলেন কেবল নেইমার। পরে বদলি হিসেবে খেলেন মেসি ও সুয়ারেজ। তবে আজ শুরুর একাদশেই দেখা যেতে পারে তিন তারকাকেই। সেক্ষেত্রে সেল্টিক ম্যাচের আলাভেজের কাছে হারের তোপ সেল্টিকের মত লেগানেসেও ওপরও পড়তে পারে।
লেগানেস কোচ আসিয়ার গারিতানো অবশ্য বার্সার মত দলের কাছে হার নিয়ে ভাবছেন না। এমনকি ‘ভয়ও পচ্ছেন না’ তিনি, ‘বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের ওপর আমার পূর্ণ শ্রদ্ধা আছে, তবে হার নিয়ে আমি ভাবছি না। বড় ব্যবধানের হার ভাবনায় নেই। পরিকল্পনাটা হারের চেয়ে বরং জয়ের কাছাকাছি।’ তবে কঠিন এই কাজে শুধু মেসি নয়, বার্সার প্রতিটা খেলোয়াড়ই বড় বাধা হিসেবে দেখছেন গারিতানো, ‘আমাদেরকে শুধু মেসির দিকে নজর দিলে চলবে না। বার্সেলোনায় সমস্যা শুধু মেসি নয়, দলের সবাই।’
মাত্র তিন বছর হল লেগানেসের দায়ীত্ব¡ নিয়েছেন ৪৬ বছর বয়সী গারিতানো। তার হাত ধরেই দলটি গেলবার দ্বিতীয় বিভাগে মৌসুম শেষ করে দুই নম্বরে থেকে। তারই পুরষ্কার স্বরুপ ক্লাবটির ৮৮ বছরের ইতিহাসে এবারই প্রথম লা লিগায় সুযোগ পাওয়া। প্রথম ম্যাচেই সেল্টা ভিগোর মাঠ থেকে ১-০ গোলের জয় ও পরের ম্যাচে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের সাথে গোলশূণ্য ড্র করে উড়ন্ত সুচনাও করে দলটি। তৃতীয় ম্যাচেও স্পোর্টিং গিজনের বিপক্ষে লড়াই করেই হেরেছে (২-১) তারা। গারিতানোর ফুটবল দর্শনটাও গেল মৌসুমের প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন কোচ রেনিয়েরির মত, ‘সব ধরনের টেকটিক্যাল কাজে আসল ব্যপারটা হল এই বিশ্বাস রাখা যেÑ তুমিও পারবে। সমর্থকদেরও বলব, আমাদের সবাইকে বিশ্বাস করতে হবে, এটা সম্ভব।’
এদিকে গারিতানোর ছেলে কিন্তু পাড় বার্সা সমর্থক। আপাতত তাই ছেলেকে বাগে আনাটাই হবে পিতার সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্চ। তবে এ নিয়ে আগামী এক সপ্তাহে ছেলের সাথে কোন কথাই বলবেন না বলে জানিয়েছেন গারিতানো!



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বার্সাকে ভয় পাচ্ছে না গারিতানো
আরও পড়ুন