Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ০২ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

মসজিদুল হারামে ২৭ রমজান রাতে ২ লাখ বোতল জমজম পানি বিতরণ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ মে, ২০২১, ১২:০১ এএম

স্বাভাবিক অবস্থায় মক্কা ও মদীনার পবিত্র দুই হারাম শরীফে কয়েক কদমের মধ্যেই জমজম পানির ব্যবস্থা থাকত। একই সঙ্গে থরে থরে সাজানো থাকত ওয়ান টাইম গ্লাস। মুসল্লিদের যতই ভিড় হোক না কেন পান করার জন্য জমজমের পানি পাননি একথা কোন শত্রুও বলতে পারবে না। তবে করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে সংক্রমণ রোধে নানা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে পানি পানে নিয়ন্ত্রণ। কেই ইচ্ছা করলেই আর আগের মতো জার থেকে পানি নিয়ে পান করতে পারছেন না। তবে পবিত্র মসজিদ বিষয়ক জেনারেল প্রেসিডেন্সি মুসল্লিদের জন্য পর্যাপ্ত পানির ব্যবস্থা রেখেছেন। কর্মীরা পানির বোতল নিয়ে প্রস্তুত। চাহিবা মাত্র সরবরাহ করা হচ্ছে বোতলজাত পানি। এবার ২৬ রমজান দিবাগত রাত তথা সম্ভাব্য কদরের রাতে মক্কায় মসজিদুল হারামে ওমরাহ পালনকারী ও মুসল্লিদের জন্য দুই লাখেরও বেশি জমজমের পানির বোতল বিতরণ করেন কর্মীরা। জমজম প্রশাসনের পরিচালক আহমদ বিন শানবার আল-নাদাবী বলেছেন যে, জমজম পানির বোতল গ্র্যান্ড মসজিদ এবং এর আঙ্গিনায় এক হাজারেরও বেশি কর্মীর মাধ্যমে বিতরণ করা হয়েছে। ১৯০টি ব্যাক ব্যাগ এবং ১০ লিটারের ক্ষমতাসম্পন্ন ৩৭৫ সিলিন্ডার ব্যাগে প্রতিদিন মোট ৩৭ হাজার ৫০০ লিটার জমজম পানি বিতরণ করা হয়।

তাওয়াফ অঞ্চলসহ মাতাফের অন্যান্য অঞ্চলে জমজমের পানি বিতরণের জন্য প্রশাসন ১০০টি মোবাইল গাড়ি বরাদ্দ করে, যেখানে মোট ৮০ লিটার ঠান্ডা ও স্বাভাবিক পানির ক্ষমতার পাশাপাশি সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসাবে স্থায়ী জীবাণুমুক্তকরণের ব্যবস্থা করা হয়। আল-নদভী বলেন, প্রশাসন প্রতিটি তলায় নামাজের জায়গাগুলোর মধ্যে সিলিন্ডার ব্যাগ বিতরণের ব্যবস্থা করে এবং জানাজার জন্য সংরক্ষিত জায়গাগুলোর জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি সরবরাহ করে।
তিনি বলেন, ব্যাগ, বোতলধারক, সিলিন্ডার ব্যাগ এবং পানির বোতল বিতরণের জন্য জীবাণুমুক্তকরণকে বিবেচনায় নিয়ে মাতাফ এলাকায় ওমরাহ আদায়কারীদের মাঝে পানি বন্টন মাগরিবের নামাজের আগে শুরু হয় এবং ফজরের নামাজ অবধি অব্যাহত থাকে। সূত্র : এসপিএ।



 

Show all comments
  • Mohammad Abdul Halim ১১ মে, ২০২১, ১:৪৩ এএম says : 0
    সুবহানআল্লাহ। আলহামদুলিল্লাহ। অত্যন্ত মহৎ একটা কাজ।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Abdul Halim ১১ মে, ২০২১, ১:৪৩ এএম says : 0
    সুবহানআল্লাহ। আলহামদুলিল্লাহ। অত্যন্ত মহৎ একটা কাজ।
    Total Reply(0) Reply
  • শওকত আকবর ১১ মে, ২০২১, ৮:০৬ এএম says : 0
    জমজম পানী আমাদের দেশের হ্বজে যাওয়া হাজীসাহেবরা নিয়ে আসেন।আমরা ঐপানী বিভিন্ন রোগের জন্য খালেস নিয়তে পান করে থাকি।আল্লাহর রহমতে আরগ্য লাভ করি।আল্লাহুম্মা আমিন।আমিন আমিন।।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ