Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮, ০২ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

দণ্ডিত আ স ম রবকে চিকিৎসার জন্য জার্মানিতে পাঠানো হয়েছিল : ফখরুল

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ মে, ২০২১, ৪:২৯ পিএম | আপডেট : ৪:৪১ পিএম, ১১ মে, ২০২১

সাজাপ্রাপ্ত আসামির বিদেশে যাওয়ার নজির আছে বলে জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। খালেদা জিয়াকে বিদেশে যেতে অনুমতি না দেওয়ার প্রসঙ্গে ফখরুল বলেন, সরকার বলছেন সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে বিদেশে যাওয়ার অনুমতির এমন নজির নেই। কিন্তু ১৯৭৯ সালে আমাদের প্রথম স্বাধীনতার পতাকা উত্তোলনকারী আ স ম আব্দুর রব জেলে ছিলেন। তখন জিয়াউর রহমান দায়িত্বে ছিলেন। পরে তাকে মুক্তি দিয়ে চিকিৎসার জন্য জার্মানিতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল। চিকিৎসার পর তিনি সুস্থ হয়ে দেশে এসেছিলেন।

মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন এসব কথা বলেন মির্জা ফখরুল। তিনি আরও বলেন, ২০০৮ সালে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমকেও তত্ত্বাবধায়ক সরকার সাজা মাফ করে দিয়ে বিদেশে চিকিৎসার জন্য পাঠায়। এমন আরও অনেক আছে, আমি নাম বলবো না। অত্যন্ত উচ্চপদস্থ প্রভাবশালী সরকারের কর্মকর্তাই বলব, তার দুই সহোদর ভাই আইনের এই ৪০১ ধারা অনুযায়ী মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। তাদেরকে মাফ করে দিয়ে দেশের বাইরে পাঠানো হয়েছে। কেনো খালেদা জিয়ার বিষয়ে খোঁড়া যুক্তি দিচ্ছেন। মির্জা ফখরুল আক্ষেপ করে সরকারের উদ্দেশে বলেন, সোজা বলে দেন যে আমরা তাকে (বিদেশে যেতে) অনুমতি দেবো না।

তিনি বলেন, শেখ মুজিবুর রহমানও এমন ছিলেন না। তিনিও তার প্রধান রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে চিকিৎসার সুবিধা দিয়েছেন, ছেড়ে দিয়েছেন। এমনকি তাদেরকে ব্যক্তিগতভাবেও সাহায্য করেছেন। কিন্তু আপনাদের (বর্তমান সরকারের) যোগ্যতা নেই। থাকলে অনেক আগেই খালেদা জিয়াকে ছেড়ে দিতেন। তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ক্রিটিক্যাল থাকায় চিকিৎসকের পরামর্শে দেশের বাইরে নেওয়ার আবেদন করা হয়েছিল। বেগম জিয়াকে দেশের বাইরে চিকিৎসার সুযোগ না দিয়ে সরকার খারাপ দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছে। তিনি বলেন, বেগম জিয়া দেশের বাইরে গিয়ে রাজনীতি করবেন, দেশে ফিরবেন না-এটা একটি ভ্রান্ত ধারণা।

করোনা আক্রান্ত খালেদা জিয়া রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাকে বিদেশ নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা দিতে সরকারের কাছে আবেদন করেছিল পরিবার। সরকার সেই আবেদনে সাড়া দেয়নি। সরকার বলছে, দণ্ডিত আসামির বিদেশ যাওয়ার সুযোগ নেই।



 

Show all comments
  • মোঃ+দুলাল+মিয়া ১১ মে, ২০২১, ৬:০০ পিএম says : 0
    আসসালামুআলাইকুম অরাহমাতুললাহ অবারাকাতু,জনাব,রব ভাই আপনি 1991ইং সালে মতিঝিল পূরবাণী হোটেল এর সামনে বক্তৃতায় বলেছিলে,এই দেশ 500জনের হাতে দেশের সম্পদ চলে যাবে,গরিব আরো গরিব হয়ে যাবে,আজ সেই বক্তৃতার সত্যতা জনগণ উপলব্ধি করতেছে ,জনাব,রব ভাই আপনার কথা সত্যি জনগণ কে বোকা বানাইয়া ,সংবিধান বদলি করে রাষ্ট্র পতি পদ্ধতি বাতিল করেছে। এবং এই দেশের সব কিছু লুঠ পাঠ করে 500জন খাইতেছে। এখনও সময় আছে সংবিধান বদলি করে রাষ্ট্র পতি পদ্ধতি চালু করুন এবং করতে হবে অন্যথায় আরো ক্ষতি হবে,এমনেতেই সব কিছু দলীয় হয়ে গেছে,দেশে বর্তমানে কোনো বিচার বলতে নাই।সব কিছু দলীয়,জনাব রব ভাই আপনি আসলেই বহু জ্ঞানী আপনি ঐ সময় পতিবাদ করেছেন,কিন্তু জনগণ আপনার কথা শুনে নাই,আজ রাষ্ট্র পতি বাতিল করে সংসদীয় পদ্ধতি চালু করেছে সব কিছু দলীয় করণ হয়েছে,জনাব রব ভাই এখনও সময় আছে বসে থাকলে চলবে না ,জরুরি জনগণকে নিয়ে সংবিধান বদলি করে,রাষ্ট্রপতিপদ্ধতি চালু করতেই হবে,পয়োজনে জনগণ কে নিয়ে সংগ্রাম গড়ে তুলুন ,অন্যথায় সংসদীয় পদ্ধতি যদি চালু থাকে জনগণ সব কিছু থেকে বঞ্চিত হবে,আসসালামুআলাইকুম অরাহমাতুললাহ অবারাকাতু।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ