Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৮ আষাঢ় ১৪২৮, ১০ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

ইহুদীবাদী ইসরাইলের নৃশংসতা বন্ধ করতে হবে

বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতৃবৃন্দ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১১ মে, ২০২১, ৮:১০ পিএম

অবিলম্বে ফিলিস্তিনী জনগণের উপর পরিচালিত ইহুদীবাদী ইসরাইলী নৃশংসতা বন্ধ করতে হবে। গাজায় বিমান হামলা বন্ধ করতে হবে। আল-আকসা মসজিদকে মুসলমানদের ইবাদত বন্দেগীর জন্য উন্মুক্ত রাখতে হবে। ইহুদীবাদী ইসরাইলের অবৈধ দখলদারিত্ব থেকে ফিলিস্তিনকে মুক্ত করতে হবে। এ জন্য জাতিসঙ্ঘ, ওআইসিসহ বিশ্ব মুসলিম ও বিশ্ব সম্প্রদায়কে জরুরীভিত্তিতে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। পবিত্র আল-আকসা মসজিদে বারবার ইহুদীবাদী ইসরাইলী বাহিনীর বর্বরোচিত হামলা এবং গাজায় নির্বিচার বিমান হামলায় ২৪ জন ফিলিস্তিনীকে শহীদ ও শত শত আহত করার ঘটনার প্রতিবাদে বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতৃবৃন্দ পৃথক পৃথক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন।

খেলাফত মজলিস : পবিত্র আল-আকসা মসজিদে বারবার ইহুদীবাদী ইসরাইলী বাহিনীর বর্বরোচিত হামলা এবং গাজায় নির্বিচার বিমান হামলা করে অন্তত: ২৪ জন ফিলিস্তিনীকে শহীদ ও শত শত আহত করার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে ফিলিস্তিনীদের উপর ইসরাইলী নির্যাতন বন্ধ ও দখলদারিত্ব অবসানের দাবি জানিয়েছে খেলাফত মজলিস।

আজ এক বিবৃতিতে খেলাফত মজলিসের আমীর মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক বলেন, অবৈধ ইহুদীবাদী রাষ্ট্র ইসরাইলের পুলিশবাহিনী গত কয়েক দিন যাবৎ পবিত্র আল-আকসা মসজিদের মুসল্লিদের উপর গুলি, টিয়ারসেল, গ্রেনেড হামলা চালিয়ে শতশত মুসলমানকে আহত করেছে। ইসরাইল অবরুদ্ধ গাজায় নির্বিচার বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। এ পর্যন্ত অন্তত ২৪ জন ফিলিস্তিনী শহীদ হয়েছেন। রমজান মাসে আল-আকসা মসজিদে নামাজরত মুসল্লিদের উপর বর্বরোচিত হামলা ও ফিলিস্তিনী মুসলমানদের হত্যা করে বিশ্ব মুসলিমের হৃদয়ে আঘাত হেনেছে। ফিলিস্তিনদের উপর ইহুদীবাদী ইসরাইলের এ জুলুম নির্যাতন ও হত্যাকান্ড বিশ্বমুসলিম কোনভাবেই বরদাশত করবে না।

বিবৃতিতে বলেন, অবিলম্বে ফিলিস্তিনী জনগনের উপর পরিচালিত ইহুদীবাদী ইসরাইলী নৃশংসতা বন্ধ করতে হবে। গাজায় বিমান হামলা বন্ধ করতে হবে। আল-আকসা মসজিদকে মুসলমানদের ইবাদত বন্দেগীর জন্য উন্মুক্ত রাখতে হবে। ইহুদীবাদী ইসরাইলের অবৈধ দখলদারিত্ব থেকে ফিলিস্তিনকে মুক্ত করতে হবে। এ জন্য জাতিসঙ্ঘ, ওআইসিসহ বিশ্ব মুসলিম ও বিশ্ব সম্প্রদায়কে জরুরীভিত্তিতে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ : পবিত্র আল আকসা মসজিদে ইহুদিবাদী ইসরাইলের বর্বরোচিত হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ-এর মহাসচিব আল্লামা নুরুল ইসলাম।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, অভিশপ্ত ইহুদী জাতির অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের সন্ত্রাসী সেনারা গত কয়েকদিন যাবত মুসলমানদের প্রথম ক্বিবলা পবিত্র আল আকসা মসজিদ ও ফিলিস্তিনের সাধারণ জনগণের ওপর বর্বরোচিত হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। এই হামলায় নিষ্পাপ শিশুসহ অসংখ্য ফিলিস্তিনি শহীদ ও আহত হয়েছেন। আমরা ইসরাইলের এহেন সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

তিনি বলেন,মাহে রমজান মাসে মুসলিমরা পবিত্র আল আকসায় ইবাদতের জন্য সমবেত হন। আর এই সময়টাকেই সন্ত্রাসী ইহুদীরা হামলার জন্য বেছে নিয়েছে। তারা মসজিদুল আকসায় প্রবেশ করে মুসল্লিদের ওপর গুলি বর্ষণ করেছে। মসজিদের আঙ্গিনায় আগুণ ধরিয়ে দিয়েছে। মানবতার শত্রু ইহুদীদের এহেন কর্মকান্ডে পুরো মুসলিম জাতি চরমভাবে ক্ষুব্ধ।

তিনি বলেন, ইবাদতরত মুসলিমদের ওপর নির্বিচারে হামলা করে মসজিদের আকসাকে অপবিত্র করার পরেও জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো নির্বিকার হয়ে বসে আছে। তারা অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলীর সন্ত্রাসী কর্মকান্ডকে নীরবে সমর্থন দিচ্ছে। রাতের অন্ধকারে ঘুমন্ত ফিলিস্তিনি শিশুদের হত্যা করা হলেও বিশ্বের তথাকথিত মানবাধিকার সংস্থাগুলো চুপ রয়েছে।
ওআইসিসহ বিশ্বের সকল মুসলিম দেশ ও সংস্থাকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানিয়ে হেফাজত মহাসচিব বলেন, যে ওআইসি গঠন হয়েছিলো মসজিদুল আকসাকে রক্ষার জন্য সে ওআইসির কর্মকান্ড এখন প্রশ্নবিদ্ধ! এমন বর্বরোচিত হামলার ঘটনার পরেও ওআইসির পক্ষ থেকে আমরা কোনও কার্যকর ভূমিকা দেখতে পাইনি। যা অত্যন্ত লজ্জাজনক। মুসলিম বিশ্বের উচিৎ সন্ত্রাসবাদী অবৈধ ইহুদী রাষ্ট্র ইসরাইলের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রথম ক্বিবলা বাইতুল মোকাদ্দাসকে রক্ষা করা। আল আকসা রক্ষায় মুসলিম বিশ্বের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার কোনও বিকল্প নেই।

বাংলাদেশ লেবার পার্টি : ফিলিস্তিনে আল আকসা মসজিদে ইসরায়েলী বাহিনীর রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস নৈরাজ্য ও গণহত্যা বন্ধে আন্তর্জাতিক মানবতাবাদী রাষ্ট্র ও মানবাধিকার সংস্থার হস্তক্ষেপ কামনা করে আজ বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব লায়ন ফারুক রহমান ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার ফরিদ উদ্দিন বলেছেন, পবিত্র রমজান মাসে তারাবীহ নামাজ চলাকালে ইসরায়েলী বাহীনির বর্বোচিত ও নৃশংস হামলায় গোটা বিশ্ববাসী হতবাক হয়েছে। আমরা বাংলাদেশের জনগণের পক্ষ থেকে ইসরায়েলী রাষ্ট্রীয় আগ্রাসনের তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও মানবতা বিরোধী জঘন্য অপরাধ বন্ধের দাবি জানাই। ইসরায়েলী বাহীনির সন্ত্রাসীকর্মকান্ডে আরব লীগ এবং ওআইসির নীরব ভূমিকার ও জাতিসংঘের নীরবতার সমালোচনা করে নেতৃবৃন্দ বলেন, সময় এসেছে বিশ্ব মুসলিমকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার এবং মুসলমানদের অধিকার রক্ষা ও বায়তুল মুকাদ্দাস এবং জেরুজালেম মুক্ত করণে বিশ্বের মুসলিম রাষ্ট্রসমুহের স্বার্থ ও সংহতি রক্ষায় আলাদা মুসলিম জাতিসংঘ গঠন করতে হবে।

বাতিল প্রতিরোধ পরিষদ : বাতিল প্রতিরোধ পরিষদের সভাপতি হাজী জালাল উদ্দিন বকুল আজ এক বিবৃতিতে বলেন, ইহুদীবাদী ইসরাইল আল-আসকায় বর্বরোচিত হামলা চালিয়ে মুসলমানদের ধর্মীয় অধিকার ক্ষুণ্ণ করেছে। সন্ত্রাসী ইসরাইলী মুসলমানদের রক্ত নিয়ে হুলি খেলায় মেতে উঠেছে। বিশ্ব সন্ত্রাসী ইসলাইলের সাথে সকল প্রকাশ সম্পর্ক বয়কট করতে হবে। তিনি ফিলিস্তিনিদের জান-মাল ইজ্জত রক্ষায় মুসলিম উম্মাহকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহবান জানান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসরাইলের নৃশংসতা
আরও পড়ুন