Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ১০ আষাঢ় ১৪২৮, ১২ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

ভারতের ইংল্যান্ড সফর, শ্রীলঙ্কায় আলাদা দল

আক্রান্ত হলেই বাদ কোহলিরা!

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ মে, ২০২১, ১২:০২ এএম

দীর্ঘ সফর অপেক্ষা করছে কোহলিদের সামনে। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল খেলতে জুন মাসের দুই তারিখে ইংল্যান্ডে রওনা দেবে ভারত। এরপর স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজও আছে। সব মিলিয়ে কয়েক মাসের জন্য ইংল্যান্ডে থাকতে হবে কোহলিদের। এত দীর্ঘ সময় পরিবার ছাড়া থাকা যায়?
বিসিসিআই বোঝে সেটা। বোঝে বলেই ক্রিকেটারদের সফরসঙ্গী হিসেবে যেন পরিবারের সদস্যরা থাকতে পারেন, সে অনুমতি দিয়েছেন বোর্ডকর্তারা। ক্রিকেটারদের মনের অবস্থা বুঝে এ ব্যাপারে বিসিসিআই ‘কোমল’ হলেও, ‘কঠোর’ হচ্ছে আরেকটা ক্ষেত্রে। ভারতের ক্রিকেট বোর্ড সাফ জানিয়ে দিয়েছে, ইংল্যান্ডের প্লেনে ওঠার আগে দলের কেউ যদি কোভিড পজিটিভ হন, তাঁকে ছাড়াই রওনা দেবে বাকি দল। করোনার কারণে আইপিএল বন্ধ হয়ে গেছে, টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালেও দলের ওপর করোনার থাবা পড়ুক, কোনোভাবেই চায় না বিসিসিআই। তাই এত বাড়তি সতর্কতা।
২ জুন ইংল্যান্ডের উদ্দেশে প্লেনে ওঠার আগে আট দিনের কঠোর কোয়ারেন্টিন পালন করতে হবে কোহলিদের। সেই আট দিনে যদি কোনোভাবে কোভিড পজিটিভ এসে যায় কারোর, ব্যস! ইংল্যান্ডে আর নেওয়া হবে না তাঁকে। এ কারণে মুম্বাইয়ে আসার আগে এখন নিজ নিজ বাড়িতে খেলোয়াড়দের আলাদা থাকতে বলেছে বিসিসিআই। উটকো ঝামেলা বাড়িয়ে কী লাভ!
ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বিসিসিআইয়ের এক স‚ত্র জানিয়েছে, মুম্বাইয়ে কোয়ারেন্টিন পালন করতে গিয়ে কেউ করোনায় আক্রান্ত হলে ইংল্যান্ড সফর থেকে বাদ দেওয়া হবে তাঁকে। ব্যাপারটা ক্রিকেটারদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। তার জন্য বোর্ড আলাদাভাবে কোনো রকম ব্যক্তিগত বিমানের ব্যবস্থা করবে না।
ইংল্যান্ডে রওনা দেওয়ার আগে ক্রিকেটার ও তাঁদের পরিবারের প্রত্যেককে অন্তত দুটি করে নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতে হবে। না হলে তাঁদের ইংল্যান্ডে নিয়ে যাওয়া হবে না বলে জানিয়েছে সেই স‚ত্র। বিসিসিআই নিশ্চিত করতে চায়, ইংল্যান্ডের জৈব সুরক্ষা বলয়ে ঢোকার আগে কেউ যেন করোনাক্রান্ত না হন। যে কারণে চাইলে নিজ নিজ বাসা থেকে মুম্বাইতে আসতে প্লেন কিংবা গাড়ির সাহায্য নিতে পারেন ক্রিকেটাররা, এমনটাই জানিয়েছে বিসিসিআই।
আগামী ১৮ জুন থেকে শুরু হচ্ছে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল। ভারত লড়বে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। খেলা হবে সাউদাম্পটনের রোজ বোলে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ টেস্টের সিরিজ শুরু ৪ আগাস্ট।
এবর পর জুলাই মাসে আবার শ্রীলঙ্কায় আছে টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে সিরিজ। দুই সিরিজই খেলবে ভারত। তবে দল হবে একদম আলাদা। ভারতের ক্রিকেট বোর্ড-বিসিসিআই প্রধান সৌরভ গাঙ্গুলি আগের দিনই নিশ্চিত করেন, জুলাই মাসের শ্রীলঙ্কা সফর। তাতে তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির স‚চি আছে। প্রাথমিক স‚চি অনুযায়ী শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ওয়ানডে হবে ১৩, ১৬ ও ১৯ জুলাই। টি-টোয়েন্টির স‚চি ২২, ২৪ ও ২৭ জুলাই। কিন্তু তখন আবার ইংল্যান্ডে কোহলিরা থাকবেন টেস্টের ব্যস্ততায়।
জুলাই মাসে টেস্ট দলের খেলা না থাকলেও প্রস্তুতি ম্যাচ এবং কড়া কোয়ারেন্টিন নীতির কারণে তখন ইংল্যান্ড ছাড়া সম্ভব হবে না কোহলিদের। অর্থাৎ একই খেলোয়াড়ের দুটি সিরিজে থাকা একদমই অসম্ভব। করোনা বাস্তবতায় ২৭ জুলাই শ্রীলঙ্কায় শেষ টি-টোয়েন্টি খেলে ৪ আগস্ট নটিংহামে গিয়ে প্রথম টেস্টে ধরার পরিস্থিতি নেই। এই কারণে লাল ও সাদা বলের সম্প‚র্ণ ভিন্ন দুই স্কোয়াডের কথা ভেবে রেখেছে ভারত। পর্যাপ্ত ক্রিকেটার থাকায় এটা বড় কোন চিন্তারও কারণ না তাদের জন্য।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ক্রিকেট


আরও
আরও পড়ুন