Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ১০ আষাঢ় ১৪২৮, ১২ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

ভারতীয় ধনী-তারকারা করোনা থেকে বাঁচতে পালাচ্ছেন মালদ্বীপ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ মে, ২০২১, ৯:৩৬ পিএম

ভারতে যাদের এইচএনআই বা ‘হাই নেটওয়র্থ ইন্ডিভিজুয়াল’ বলা হয়, তারা এক্সোটিক বিচ লোকেশনে সচরাচর কোনও ছুটি কাটাতে হলে মরিশাস, সেশেলস, ক্যারিবিয়ান বা পলিনেশিয়ার কোনও দ্বীপকেই বেছে নেন। কিন্তু করোনার সেকেন্ড ওয়েভে দুনিয়ার বিভিন্ন দেশে ভারতীয়দের জন্য দরজা একে একে বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর হালে তাদের কাছে তুমুল জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ঘরের কাছের মালদ্বীপ।

এমনকি অনেকে সারা জীবনের সঞ্চয় একত্র করেও চার্টার্ড ফ্লাইটে মালদ্বীপে পাড়ি দিচ্ছেন বলে জানা যাচ্ছে। মালদ্বীপে করোনার বিধিনিষেধ কিছুটা শিথিল হওয়ার পর থেকেই গত কয়েক মাস ধরে সেখানে বলিউড তারকাদের আনাগোনা বাড়ছিল। আলিয়া ভাট-রণবীর কাপুর থেকে শুরু করে টাইগার শ্রফ-দিশা পাটনি, সারা আলি খান, জাহ্নবী কাপুর, কিয়ারা আডভানি, সোনাক্ষী সিনহা, তাপসী পান্নুরা একের পর এক মালদ্বীপের সৈকত থেকে ইনস্টাগ্রামে নিজেদের ছবি পোস্ট করছিলেন ... কেউ কেউ তো এমনও বলছিলেন যে, মালদ্বীপই হয়ে উঠেছে বলিউডের ‘নতুন গোয়া’!

জানা যাচ্ছে, শুধু শিল্পপতি বা তারকারাই নন, ভারতের যারা উচ্চবিত্ত শ্রেণির চাকরিজীবী, তাদের অনেকেও নিজেদের অন্য সময়ের বাজেট ছাপিয়ে গিয়ে ফ্লাইট ভাড়া করে মালদ্বীপে যাচ্ছেন। ভারতের নামী প্রাইভেট জেট চার্টার কোম্পানি ‘জেটসেটগো’-র সিইও কনিকা টেকরিওয়াল বলছেন, মালদ্বীপে তাদের চার্টার ফ্লাইটের সংখ্যা গত কয়েক সপ্তাহের মধ্যে ৯০০ শতাংশ বেড়েছে। এর মধ্যে সত্তর বা আশি শতাংশ বুকিং আসছে উচ্চবিত্ত বা উচ্চ মধ্যবিত্ত শ্রেণি থেকেই।

ভারতে এই মুহূর্তে কোভিড রোগীদের বেড পেলেও তার জন্য দৈনিক খরচ অন্তত আড়াই হাজার ডলার বা তারও বেশি। পরিবারের একাধিক সদস্যর কোভিড হলে খরচও যথারীতি আরও অনেক বেশি! সেই জায়গায় মালদ্বীপে একটা আট-আসনের জেট ভাড়া করা সম্ভব আঠারো থেকে বিশ হাজার ডলারের মধ্যেই। ফলে দুটো পরিবার মিলে যদি সেই খরচটা ভাগ করে নিতে পারে, দেশে হাসপাতালের বিলের চেয়ে অনেক কম খরচে তারা নিশ্চিন্তে মালদ্বীপ ঘুরে আসতে পারে’- বলছিলেন কনিকা টেকরিওয়াল।

ঠিক এই কারণেই হঠাৎ করে যেন ভারত থেকে মালদ্বীপে চার্টার্ড ফ্লাইটে যাওয়ার হিড়িক পড়েছে। এখন আর শুধু বলিউড তারকারাও নন, দিল্লি-বোম্বে-ব্যাঙ্গালোরের মতো মেট্রো শহরের উচ্চ মধ্যবিত্তরাও তাতে নাম লেখাচ্ছেন। বলিউড তারকারা কিছুদিন আগেও যেভাবে প্রায় সারি দিয়ে ‘মালদ্বীপ’ যাচ্ছিলেন ও সোশ্যাল মিডিয়াতে বিচ-সেলফি বা পুল-সেলফি পোস্ট করছিলেন, তার তীব্র সমালোচনাও হয়েছিল। নওয়াজুদ্দিন সিদ্দিকির মতো তারকা পর্যন্ত প্রকাশ্যে বলেছিলেন, ‘লোকে যখন মহামারিতে মারা যাচ্ছে, গরিব মানুষ খেতে পাচ্ছে না, তখন মালদ্বীপে গিয়ে এভাবে পয়সার গরম দেখানো বন্ধ হোক। কুছ তো শরম করো!’



 

Show all comments
  • Dadhack ১২ মে, ২০২১, ১০:১২ পিএম says : 0
    No body can escape death, death will reach you wherever you go. Death is the absolute truth.
    Total Reply(0) Reply
  • Md Monir Bhuiyan ১২ মে, ২০২১, ১০:৫৭ পিএম says : 0
    তোমরা পৃথিবীর যেখানেই থাক না কেন মৃত্যু তোমাদেরকে পাকড়াও করবেই যদিও তোমরা সুউচ্চ দুর্গে অবস্থান কর। হে নবী আপনি বলে দিন, (মৃত্যু ) যার থেকে তোমারা পলায়ন করছো সে অবশ্যই তোমাদের সাথে সাক্ষাৎ করবে। আল্লাহ তাআলার কথা কি মিথ্যা হতে পারে! Question does not arise.
    Total Reply(0) Reply
  • Nur Uddin ১৩ মে, ২০২১, ৬:০২ এএম says : 0
    Absolutely no question.Everything will do happen in its predestined time.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মালদ্বীপ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ