Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৮ আষাঢ় ১৪২৮, ১০ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

রাতের আঁধারে আমতলী ইউএনও অফিসের গাছ উধাও

বরগুনা জেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১৭ মে, ২০২১, ১২:০০ এএম

বরগুনার আমতলী উপজেলা পরিষদের ভেতরে ৪০ বছর বয়সী একটি মূল্যবান মেহগনি গাছ রাতের আধারে উধাও হয়ে গেছে। এ ঘটনায় এলাকার মানুষের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। দ্রুত এ ঘটনার সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি করেছেন সাধারণ মানুষ। ইউএনও অফিসের গাছ কেটে নেয়ায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় ইউএনও মো. আসাদুজ্জামান গতকাল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন। গতকাল সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, গাছটির গোড়ার গর্ত মাটি দিয়ে ভরা। আশপাশে গাছের ডাল-পালা ও পাতা পড়ে আছে। জানা গেছে, ১৯৮২ সালে আমতলী উপজেলায় রুপান্তরিত হয়। ওই সময়ে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বিভিন্ন প্রজাতির কয়েকশ’ গাছ রোপন করা হয়। ওই গাছগুলো বৃহৎ গাছে পরিণত হয়েছে। এর মধ্যে উপজেলা পরিষদ মূল ফটকের ভেতরে ছিল বৃহৎ একটি মেহগনি গাছ। ওই গাছের ছায়ায় প্রতিদিন উপজেলা পরিষদে আসা শত শত মানুষ আশ্রয় নিতো। বৃহস্পতিবার ঈদুল ফিতর উপলক্ষে অফিস বন্ধ হয়ে যায়। ওই সুযোগে একদল দুর্বৃত্ত রাতের আধারে গাছটি কেটে নিয়ে গেছে।

গাছটির ডাল পালা ও পাতা পড়ে আছে। আমতলী থানার ওসি মো. শাহ আলম হাওলাদার বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আসাদুজ্জামান বলেন, রাতের আধারে গাছ কেটে নেয়ার বিষয়ে থানায় ডায়েরি করেছি। পুলিশ তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। ঘটনার সাথে জড়িতদের কোন ছাড় দেয়া হবে না।
আমতলী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ গোলাম ছরোয়ার ফোরকান বলেন, বন্ধের মধ্যে দুর্বৃত্তরা উপজেলা পরিষদের মূল ফটকের ভেতরের একটি মূল্যবান মেহগনি গাছ কেটে নিয়ে গেছে। এতে পরিষদের সৌন্দর্য্য নষ্ট হয়েছে। তিনি আরো বলেন, ইউএনওকে এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। যারা এ ঘটনার সাথে জড়িত তাদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গাছ উধাও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ