Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট ২০২২, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯, ১২ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

তবুও দুশ্চিন্তায় বাউজা

প্রকাশের সময় : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : খারাপ ফর্মের কারণে যে বাদ পড়েছিলেন তা বলা যাবে না। কারণটা হয়তো কিছুটা ইঙ্গিতবহ। আর্জেন্টিনার টানা তিন ফাইনাল ব্যার্থতার আসল খলনায়ক তো তিনিই। এ কারণেই হয়তো কোচ এদগার্দো বাউজা বিশ্বকাপ বাছাইয়ের সর্বশেষ দুই ম্যাচে তাকে রাখেননি। তবে, কারণ যাই হোক ফর্ম দিয়েই আবার দলে ফিরেছেন আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার গঞ্জালো হিগুয়েইন। আগামী মাসে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের দুই ম্যাচে হিগুয়েইনের সাথে দলে ফিরেছেন সার্জিও আগুয়েরোও।
গেল দলবদলের বাজারে হিগুয়েইনকে নিয়ে কম আলোচনা-সমালোচনা হয়নি। গেল মৌসুমে সেরি আ’তে নাপোলির হয়ে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড গড়েন। সেখান থেকে প্রায় ৯ কোটি ইউরো দিয়ে তাকে দলে নেয় জুভেন্টাস। কিছুদিন খেলার বাইরে থাকায় কিছুটা মুটিয়েও যান সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ স্ট্রাইকার। এজন্য জুভেন্টাস সমর্থকদের কাছে ‘মোটু’র গঞ্জনাও সইতে হয়েছে তাকে। কিন্তু মাঠে নেমেই দিয়েছেন এর জবাব। ক্লাবের হয়ে প্রথম চার শটেই তিন গোল করে বুঝিয়ে দিয়েছেন তাকে চড়া দামে কিনে কোনো ভুল করেনি জুভেন্টাস। এমন স্ট্রাইকারকে কোনো কোচই বা দলের বাইরে রাখতে চায়। আগামী মাসে পেরু ও প্যারাগুয়ের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে তাই তাকে ডেকে পাঠিয়েছেন আর্জেন্টিনার নতুন কোচ। বাউজা নিজেই কথা বলেছেন হিগুয়েইনের সঙ্গে। ‘আমি হিগুয়েইনের সঙ্গে কথা বলেছি, সবকিছু ঠিকমতোই হয়েছে। ও খুবই উৎসাহী, মাঠে ফিরতে ওর তর সইছে না,’ বলেন বাউজা।
আগুয়েরো দলের বাইরে ছিলেন অবশ্য পেশির চোটের কারণে। নিজ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটির হয়ে খেলছেন দুর্দান্ত। শেষ ৫ ম্যাচে করেছেন ৯ গোল। এছাড়া লাল কার্ডের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে দলে ফিরেছেন হিগুয়েইনের ক্লাব সতীর্থ পাওলো দিবালাও। তবে চোটের কারণে ফিরতে পারেননি হ্যাভিয়ের পাস্তোরে। ওদিকে ইন্টার মিলান স্ট্রাইকার মাউরো ইকার্দি আবারো উপেক্ষিত থেকে গেছেন। এছাড়া লিওনেল মেসি ও অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া তো দলে আছেনই।
আক্রমণে সেরা সব তারকার পাশাপাশি মাঝমাঠে ডি মারিয়া ও মাচেরানোকে নিয়ে শক্তিশালী দলই পাচ্ছেন বাউজা। রক্ষণেও আছেন নিকোলাস ওটোমেন্ডি , রামিরো ফনেস মোরি ও মার্কোস রোহোর মত তারকারা। এরপরও বাউজাকে অস্বস্তিতে থাকতে হবে অন্য কারণে। যে কারণে দলে বাড়তি কিছু খেলোয়াড়ও যোগ করতে চান তিনি। কারণটা বাউজার মুখেই শুনি, ‘হলুদ কার্ড পাওয়া খেলোয়াড়দের সংখ্যার কথা বিবেচনা করেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’
রক্ষণের প্রধান দুই ভরসা ওটোমেন্ডি ও ফুনেস মোরি দুজনেই নিষেধাজ্ঞা থেকে মাত্র একটি হলুদ কার্ড দূরে। গোলরক্ষক মার্কোস রোহো, মাঝমাঠের জুটি মাচেরানো ও ডিমারিয়ারও একই দশা। তবে মাঠের খেলায় কোন পরিবর্তন আনতে চান না বাউজা, ‘আমি মনে করি না আমাদের ট্যাকটিকস খুব একটা পাল্টাবে। পরিকল্পনা হচ্ছে আক্রমণে চারজন খেলোয়াড় রাখা।’ আগামী ৬ অক্টোবর (বাংলাদেশ সময় ৭ অক্টোবর সকাল) পেরুর মাঠে খেলতে নামবে আর্জেন্টিনা। পাঁচ দিন পর নিজেদের মাঠে তাদের প্রতিপক্ষ প্যারাগুয়ে। লাতিন আমেরিকা অঞ্চল থেকে ১০ দলের মধ্যে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার তৃতীয় অবস্থানে আর্জেন্টিনা। একই পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে এগিয়ে দুইয়ে ব্রাজিল। এক পয়েন্ট বেশি নিয়ে শীর্ষে উরুগুয়ে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তবুও দুশ্চিন্তায় বাউজা

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ