Inqilab Logo

বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮, ২৪ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

স্থানীয় নেতাকে তালাক দিয়ে কেন্দ্রীয় নেতার সঙ্গে ছাত্রলীগ নেত্রীর পরকীয়া, বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ : থানায় মামলা

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ মে, ২০২১, ৯:১৩ এএম

ছাত্রলীগের স্থানীয় এক নেতার স্ত্রী আবার কেন্দ্রীয় এক নেতার প্রেমিকা আরেক ছাত্রলীগ নেত্রী সাথি। ২ জনের সঙ্গে সম্পর্ক রেখেই চলছিল সব কিছু। কিন্তু কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক মারুফের হোসাইনের (৩০) কথায় স্বামীকে তালাক দেন মাদারীপুর কলেজ শাখা ছাত্রলীগের উপ-সম্পাদক সাথি মাতুব্বর (২৪)। বৃহস্পতিবার (২০ মে) মাদারীপুর সদর মডেল থানায় মারুফের বিরুদ্ধে সাথির করা মামলায় এ তথ্য উঠে আসে।

জানা গেছে, দীর্ঘদিন মারুফের সঙ্গে বিবাহিত ওই ছাত্রলীগ নেত্রীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সম্পর্কের এক পর্যায়ে সাথিকে তার স্বামীকে তালাক দিতে বাধ্য করেন সাবেক এই ছাত্রলীগ নেতা। পরে বিয়ের জন্য চাপ দিলে সাথিকে মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে নিজ গ্রামের বাড়িতে ঢেকে নেন মারুফ। বাড়িতে যাওয়ার পর বিয়ে না করে তিনি সব সম্পর্ক ছিন্ন করতে বলেন। এ সময় তাকে নির্যাতনও করা হয়। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার মাদারীপুর সদর মডেল থানায় একটি মামলা করেছেন সাথি।

মামলার তথ্য মতে, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ফেসবুকে সাথি ও মারুফের পরিচয় হয়। এক বছর আগে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। কিছুদিন যেতে না যেতে সাথিকে বিয়ের প্রলোভনসহ নানা রকম প্রতিশ্রুতি দিয়ে তার স্বামীকে তালাক দিতে বাধ্য করে মারুফ। এমনকি বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মারুফ দিনের পর দিন সাথির সঙ্গে জোরপূর্বক শারীরিক সম্পর্ক করেন। পরবর্তীতে ছাত্রলীগ নেত্রী বিয়ের চাপ দিলে মারুফ তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেন। একপর্যায়ে মারুফ সাথির কাছে বিয়ের শর্ত হিসেবে ১০ লাখ টাকা দাবি করে। সম্পূর্ণ টাকা দিতে ব্যর্থ হলেও মারুফ বিভিন্ন অজুহাতে সাথির কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন।

সর্বশেষ গত শনিবার (১৬ মে) সকাল ৭টার দিকে সাথিকে বিয়ে করবে বলে নিজ গ্রামের বাড়িতে ঢেকে নেয় মারুফ। যাওয়ার পর তার সঙ্গে সব সম্পর্ক ছিন্ন করতে বলা হয়। কিন্তু বিষয়টি না মানলে নেওয়ায় মারুফ, তার ভাই আরিফ হাওলাদার (২৭) ও তার মা মেহেরুন্নেছা (৫৫) সাথিকে শারীরিক নির্যাতন করে।

মামলার তথ্য মতে, মারুফ ও তার ভাই সাথিকে গলা চেপে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা চালায়। হত্যার পর তারা সাথির লাশ পানির ট্যাংকিতে গুম করে রাখার পরিকল্পনা করে। সাথি তখন তাদের কাছে জীবন ভিক্ষা চান। সাথি যাতে কোনো আইনের আশ্রয় না নিতে পারে এ মর্মে তাদের কাছে ভিডিও বক্তব্য দিতে বলে এবং ৩০০ টাকার স্ট্যাম্প স্বাক্ষর করতে বলে মারুফ। সাথি জীবন বাঁচাতে ভিডিও বক্তব্য দেন এবং স্ট্যাম্প স্বাক্ষর করেন। এ সময় তারা সাথীর সঙ্গে থাকা ২০ হাজার টাকা ও গলার চেন, কানের দুল, হাতের আংটি ও মোবাইল ফোন রেখে দেয়।

এই ঘটনায় মাদারীপুর সদর মডেল থানায় মারুফ, তার ভাই এবং মা এই তিনজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন সাথী মাতুব্বর। মামলা নং ৩৩/২৬০।

মারুফের হোসাইন পেয়ারপুর ইউনিয়নের পূর্বপেয়ারপুর কুমারেরট্যাক ৮নং এলাকার মৃত কাদের হাওলাদারের ছেলে। সাথি মাতুব্বর কেন্দুয়া বাজিদপুর শ্রীনদী এলাকার মৃত জাফর মাতুব্বরের মেয়ে। তিনি (সাথী) ৫ বছরের একটি পুত্র সন্তানের জননী।

সাথি মাতুব্বর জানান মারুফ আমাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়েছে, বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়েছে। যার কারণে আমি আমার স্বামীকে তালাক দেই। বিয়ের আশ্বাস দিয়ে তার বাসায় নিয়ে আমাকে মেরে ফেলার চেষ্টা করেছে। আমি এর বিচার চাই এবং আমি আমার অধিকার চাই।

এ ব্যাপারে ছাত্রলীগ নেতা মারুফ হোসেন জানান, এটা রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র। সাথী মাতুব্বর এর আগে অনেক ছেলেদের সঙ্গে এমন প্রতারণা করেছে। স্বামী থাকার পরেও সে বিভিন্ন ছেলেদের সঙ্গে পরকীয়া করে। এজন্য তার স্বামী তাকে তালাক দিয়েছে। আমি তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেব।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম মিঞা জানান, এ বিষয়ে আমরা আইনগত পদক্ষেপ নিয়েছি। আসামিকে ধরতে চেষ্টা চলছে।



 

Show all comments
  • Maruf Hossain ২১ মে, ২০২১, ১১:৫৭ এএম says : 0
    ওয়য়াওও ট্রুউউউ লাভ
    Total Reply(0) Reply
  • Jaheed Hasan ২১ মে, ২০২১, ১১:৪০ এএম says : 0
    সকালবেলা ঘুম থেকে উঠেই বিনোদন।
    Total Reply(0) Reply
  • Razu Ahmed ২১ মে, ২০২১, ১১:৪০ এএম says : 0
    এইটা কোন ব্যাপার না..
    Total Reply(0) Reply
  • Mustain Billah ২১ মে, ২০২১, ১১:৪০ এএম says : 0
    কয়েক দিন পর কেন্দ্রীয় পর্যায়ের কাউকে তালাক দিয়ে আন্তর্জাতিক পর্যায়ের কাউকে গ্রহণ করবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Rahat Abdullah ২১ মে, ২০২১, ১১:৪১ এএম says : 0
    প্রমোশন কে না চায়?
    Total Reply(0) Reply
  • কামাল রাহী ২১ মে, ২০২১, ১১:৪২ এএম says : 0
    এখানে দুইজনই অপরাধী। শাস্তি দুইজনেরই হওয়া উচিত বলে আমি মনে করি।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মামলা


আরও
আরও পড়ুন