Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯, ১০ মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী

পছন্দের তিনে সাকিব, উইকেটে মুশফিক

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২২ মে, ২০২১, ১২:০০ এএম

ঘরের মাঠে সবশেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজে ব্যাটিং অর্ডারের চারে নামিয়ে দেওয়া হয়েছিল সাকিব আল হাসানকে। যে তিন নম্বর পজিশন তার সবচেয়ে পছন্দের এবং যেখানে তিনি সবচেয়ে ধারাবাহিক, সেই জায়গাতে খেলেছিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। কিন্তু উইন্ডিজের বিপক্ষে হতাশ করেছিলেন দারুণ সম্ভাবনাময় এই ব্যাটসম্যান। তিন ম্যাচের সিরিজে তিনি খেলেছিলেন যথাক্রমে ১, ১৭ ও ২০ রানের ইনিংস। এমন বিবর্ণ পারফরম্যান্সের জেরে নিউজিল্যান্ড সফরের সীমিত ওভারের সিরিজের স্কোয়াডে থাকলেও কোনো ওয়ানডেতে খেলা হয়নি তার।
ভীষণ গুরুত্বপ‚র্ণ তিন নম্বর পজিশনে কিউইদের মাটিতে বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্ট খেলিয়েছিল সৌম্য সরকারকে। কারণ, ওই সফর থেকে ছুটি নিয়েছিলেন সাকিব। কিন্তু ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে আগের সিরিজে সাতে খেলার জন্য বিবেচিত হওয়া সৌম্য উপরে সুযোগ পেয়েও বন্দি ছিলেন ব্যর্থতার বৃত্তে। তার ব্যাট থেকে এসেছিল যথাক্রমে ০, ৩২ ও ১ রান। তবে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আসন্ন তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম দুটির জন্য ঘোষিত ১৫ সদস্যের বাংলাদেশ দলে সৌম্য টিকে গেলেও নেই শান্ত। অবধারিতভাবে ফিরেছেন আইপিএল খেলে আসা তারকা অলরাউন্ডার সাকিব। আর তাকেই তিন নম্বর পজিশনে ফিরিয়ে আনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল।
গতকাল ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এই বাঁহাতি ওপেনার বলেছেন, ‘সাকিব তিন নম্বরে ব্যাট করবে।’ প্রিয় পজিশনে ফেরা সাকিবকে ঘিরে তার প্রত্যাশা অনেক, ‘প্রত্যাশা অবশ্যই বেশি থাকবে। তবে মনে রাখতে হবে, সাকিব বিশ্বকাপে যা করেছে, সেটা ব্যতিক্রমী। আমি তো চাইব, প্রতি ম্যাচেই অমন হোক, সেও চাইবে। তবে এটা তো প্রতি ম্যাচে সম্ভব না। একটা ছেলে ৮-৯ ম্যাচে ৬০০ রান করে ফেলেছে, এটা তো আসলে সচরাচর দেখি না।... দুশ্চিন্তার ব্যাপার নেই। আমি নিশ্চিত, সে ভালো করবে।’
সবশেষ ২০১৯ ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে তিন নম্বরে অবিস্মরণীয় পারফরম্যান্স দেখিয়ে রেকর্ডের পাতায় ঠাঁই নেন সাকিব। ৮ ম্যাচে ৮৬.৫৭ গড়ে তিনি করেন ৬০৬ রান। পাঁচটি হাফসেঞ্চুরির সঙ্গে তার সেঞ্চুরি ছিল দুটি। কেবল একটি ম্যাচেই তিনি পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংস খেলতে পারেননি। পরিসংখ্যান বিবেচনায় বাংলাদেশের ইতিহাসে এই পজিশনে সবচেয়ে সফল সাকিব। সবমিলিয়ে ২৩ ম্যাচে ৫৮.৮৫ গড়ে তিনি করেছেন ১১৭৭ রান। তিন নম্বরে তার স্ট্রাইক রেটও অন্যান্য পজিশনের চেয়ে বেশি, ৮৮.৭৬।
এদিকে, ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ পরিস্থিতিতে উইকেটের পেছনে মুশফিকুর রহিমের বড় ভুল করার ঘটনা আছে অনেকবার। নিউজিল্যান্ডে সর্বশেষ ওয়ানডে সিরিজেও তার ভুলে জেতার সম্ভাবনার মতো পরিস্থিতি থেকে সরে যায় বাংলাদেশ। তবে অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটারকে এক মুহূর্তের জন্যও উইকেট-কিপিং থেকে সরানোর কথা ভাবেন না তামিম। তার কিপিংয়ে দলের সবাই খুবই খুশি বলে জানালেন ওয়ানডে অধিনায়ক।
ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই কিপিংয়ে কখনই খুব সড়গড় দেখা যায়নি তাকে। তার স্টাম্পিং মিস, ক্যাচ মিসের ঘটনা ঘটে প্রায়শ। যখন গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ভুল হয়, তখন আলোচনার পারদ ওঠে তুঙ্গে। তরতাজা উদাহরণও আছে সামনে। তবে টেস্টে কিপিং করা লিটন দাস ওয়ানডেতেও নিয়মিত খেলছেন। কিপিং দক্ষতায় মুশফিকের থেকে তাকে এগিয়ে রাখা হয়। মোহাম্মদ মিঠুনও কিপার হিসেবে ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলেন।
কিপিংয়ে মুশফিকের বিকল্প তাই আছেই। তবে অধিনায়ক জানালেন, বদলের প্রশ্নই আসে না। কারণ, মুশফিকের কিপিং নিয়ে তারা খুবই খুশি, ‘ওর কিপিং নিয়ে আমি খুবই খুশি। ক্যাচ মিস বা সুযোগ মিস- এগুলো খেলার অংশ। সত্যি কথা বলতে, আমি জানি, সে কতটা কঠোর পরিশ্রম করে। আর আমাদের টিম ম্যানেজমেন্ট বা সবার একটা মুহূর্তের জন্যও মনে হয় না যে, মুশফিক কিপিং করবে না। সে অবশ্যই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে শুধু না, পুরো সিরিজেই কিপিং করবে।’
গত এক যুগের বেশি সময় ধরে কিপিং করা মুশফিকের ভুল নয়, ইতিবাচক দিক দেখতেও বললেন তামিম, ‘ক্যাচ মিসের কথা বলছেন, কিন্তু সে কিছু দুর্দান্ত কাজও করেছে। ১৩-১৪ বছর ধরে একজন কিপার ক্যাচ ফেলতে পারে। আবার এই সময়ে সে কিছু অবিশ্বাস্য ক্যাচও ধরেছে। আমার মুশফিকের ওপর পূর্ণ আস্থা আছে এবং সে কিপিং করবে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উইকেটে মুশফিক
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ