Inqilab Logo

বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

গাজায় বিজয়োল্লাস

ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যে যুদ্ধবিরতি কার্যকর গাজা পুনর্র্নির্মাণে আর্থিক সহায়তা দেয়ার পরিকল্পনা যুক্তরাষ্ট্রের

মুহাম্মদ সানাউল্লাহ/ ইশতিয়াক মাহমুদ | প্রকাশের সময় : ২৩ মে, ২০২১, ১২:০১ এএম

১১ দিন পর যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছে ইসরাইল ও গাজা নিয়ন্ত্রণকারী গোষ্ঠী হামাস। দু’সপ্তাহ ধরে গাজা ভূখণ্ডে চলা অশান্তির ইতি পড়েছে। ইসরাইলের মন্ত্রিসভার নিরাপত্তা বিষয়ক বৈঠকে সংঘর্ষবিরতির সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলি। যুদ্ধবিরতির পরে এখন যুক্তরাষ্ট্র অবরুদ্ধ গাজা শহর পুনর্র্নির্মাণে সহায়তা করতে চাইছে। পুনরায় যাতে হামলা শুরু না করা হয় এজন্য হামাসকে চাপ দিতে ও বিনিময়ে আর্থিক সহায়তার প্রতিশ্রুতি দেয়ার পরিকল্পনা করছে বাইডেনের প্রশাসন।

ইসরাইলের জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রিসভা কমিটির বিবৃতিতে বলা হয়েছে, মিসরের প্রস্তাবে তারা যুদ্ধবিরতিতে সম্মত। এই যুদ্ধবিরতি হবে পারিস্পরিক ও নিঃশর্ত। যুদ্ধবিরতির জন্য ইসরাইলের উপর ক্রমশ চাপ বাড়ছিল। এছাড়া জো বাইডেন যুদ্ধবিরতিতে যাওয়ার জন্য ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে বেশ কয়েকবার ফোনও করেছেন। যুদ্ধবিরতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানিয়েছে, ইসরাইল সামরিক অভিযান বন্ধ করে যুদ্ধবিরতিতে রাজি বলে মিসরকে জানায়। রাতে প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু তার জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রিসভা কমিটির সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকে তারা যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হয়। যুদ্ধবিরতি ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কার্যকর হবে। অর্থাৎ গতকাল থেকেই যুদ্ধবিরতি কার্যকর হয়।

যদিও হামাসের এক নেতা যুদ্ধবিরতি কার্যকর হওয়ার পর যুদ্ধ জয়ের কথা ঘোষণা করেছেন। যুদ্ধবিরতিকে নিজেদের বিজয় বলে দাবি করেছে হামাসের ওই নেতা। গতকাল গাজা সিটিতে হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতিতে তিনি দাবি করেছেন, ইসরাইলের বিরুদ্ধে যুদ্ধে তারা জয় পেয়েছেন। গাজা উপত্যকায় ইসলামপন্থী আন্দোলনের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ নেতা খলিল আল-হাইয়া বলেন, ‘এটি বিজয়ের উচ্ছ্বাস।’ ইসরাইলের বিমান হামলায় ধ্বংস হওয়া বাড়িগুলি পুনরায় তৈরি করে দেয়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন তিনি। ইসরাইল ও গাজার মধ্যে শান্তি ফেরাতে বড় ভূমিকা নিয়েছে মিসর। গাজার দ্বিতীয় শক্তিধর ইসলামপন্থী সশস্ত্র গোষ্ঠীও এগিয়ে আসে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সবপক্ষ একমত হয়।

এর পরে হোয়াইট হাউসে দেয়া সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, ‘আমার বিশ্বাস ফিলিস্তিনি ও ইসরাইলি নাগরিকরা সমান নিরাপত্তা পাওয়ার যোগ্য। সেইসঙ্গে তাদের সমান স্বাধীনতা, সমৃদ্ধি ও গণতন্ত্রেই অধিকারও আছে। আমার প্রশাসন সেই লক্ষ্যে নিরবে কাজ করে চলেছে।’ এক টুইটে তিনি বলেন, ‘সহিংসতার ফলে শিশুসহ অনেক বেসামরিক নাগরিকের মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটেছে। তাদের সকলের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জ্ঞাপন করছি যারা তাদের প্রিয়জন হারিয়েছেন এবং আহতদের সুস্থতা কামনা করছি।’ তিনি বলেন, ‘আমরা জাতিসংঘসহ অন্য আন্তর্জাতিক অংশীদারদের সঙ্গে গাজার জনগণের জন্য দ্রুত মানবিক সহায়তা প্রদান এবং গাজা পুনর্র্নির্মাণ চেষ্টায় আন্তর্জাতিক সহায়তা জোরদারে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’

বাইডেন প্রশাসনের এক সিনিয়র কর্মকর্তা বলেছেন, গাজায় স্বাস্থ্য ও শিক্ষা পরিষেবা পুনরুদ্ধার এবং পুনর্র্নির্মাণের অন্যান্য বিষয় অন্তর্ভুক্ত করার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র পরিকল্পনা করছে। এই কাজে যুক্তরাষ্ট্রকে সম্ভবত কয়েকশ’ কোটি ডলার খরচ করতে হবে। তিনি আরও বলেন, ‘গাজা পুনর্র্নির্মাণ - সম্ভবত জাতিসংঘের মাধ্যমে সমন্বিত হবে। এজন্য ইসরাইল ও ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের সাথে কূটনৈতিক বাধা নিরসনকে অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে।
গাজার স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের রিপোর্টে বলা হয়েছে, ১০ মে থেকে ইসরাইলি হামলায় ৬৫ জন শিশু-সহ ২৩২ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১ হাজার ৯০০ জন। হামাস দাবি করেছে, বিস্তীর্ণ অঞ্চল ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার মানুষের মাথা গোঁজার ঠাঁই নেই। পাল্টা ইসরাইল সেনা দাবি করেছে, হামাস ও অন্যান্য ইসলামপন্থী সশস্ত্র দলগুলি ইসরাইলের দিকে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার রকেট ছুঁড়েছে। তবে এর বেশিরভাগকেই ‘আয়রন ডোম’ এয়ার ডিফেন্স দিয়ে আটকানো গিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, রকেট হামলায় ইসরাইলে ২ শিশু, ১ সেনা-সহ ১২ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে একজন ভারতীয় ও ২ জন থাইল্যান্ডের নাগরিক। সূত্র : দ্য নিউইয়র্ক টাইমস, রয়টার্স।



 

Show all comments
  • শওকত আকবর ২২ মে, ২০২১, ১:০৯ এএম says : 0
    বিশ্ব নিয়ন্তা মহান আল্লাহ ১১টি বিনিদ্র রজনী কাটানোর পর যুদ্ধবিরতি ঘোষনা সত্যি ফিলিস্থিনিদের বিজয়।অন্যায় ভাবে ইসরাইলী হামলা গোটা বিশ্ব অবলোকন করেছে।এবং নিন্দার প্লাবন বয়ে গেছে। বিশ্বের শক্তিধর মার্কিন শাষক তার গতিপথ পাট্লে দিয়ে ইসরাইল কে অবস্থান থেকে সরে আসতে বলেন।
    Total Reply(0) Reply
  • S M Parvez Akther ২২ মে, ২০২১, ১:১২ এএম says : 0
    অতীতে ইসরাইল আরব যুদ্ধের ঠিক হারার মুহূর্তে যুদ্ধ বিরতি নিয়েছিলো ইসরাইল।এবারো যখন সমগ্র বিশ্বের মুসলমান রা এক হলো ঠিক সেই মুহূর্তে কৌশলে যুদ্ধ বিরতি নিলো ইসরাইল,তাদের ভয় মুসলিমরা এক হয়ে প্রতিরোধ করলে তাদের দখলদারিত্বে থাকা মুসলমানদের ভূমি হারাতে হবে। ইহুদিদের চক্রান্ত বুঝা অনেক কঠিন ব্যাপার এরা হচ্ছে সর্বযুগের বেইমান এই যুদ্ধ বিরতি এটা তাদের আরেকটা নীল নকশা।পূর্বেও তারা যুদ্ধ বিরতি নিয়ে অস্ত্র সংগ্রহ করেছিলো এবার কি করে তা দেখার বিষয়?
    Total Reply(0) Reply
  • Ruhul Amin ২২ মে, ২০২১, ১:১৭ এএম says : 0
    ইসরাইলের যুদ্ধ বিরতি একটা নাটক মাত্র। স্থায়ী সমাধান ছাড়া বিকল্প কোন পথ নেই।
    Total Reply(0) Reply
  • Zahidul Islam Khan ২২ মে, ২০২১, ১:১৮ এএম says : 0
    মুসলিমদের বিজয় আজ না হয় কাল আসবেই ইনশাল্লাহ. এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা
    Total Reply(0) Reply
  • M Morshed Rusho ২২ মে, ২০২১, ১:১৯ এএম says : 0
    This is good for world peace and specially for midle east.
    Total Reply(0) Reply
  • Md Najmul Kobir ২২ মে, ২০২১, ১:৩৭ এএম says : 0
    যুদ্ধবিরতি এটা কোন সমাধান না! অনেক চোখের পানি ফেলেছি ফিলিস্তিনের জন্য, যুদ্ধবিরতি কে আমরা স্বাগত জানাই, সেই সাথে জোর দাবি জানাচ্ছি ফিলিস্তিনিকে একটা স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করা হোক
    Total Reply(0) Reply
  • MD Rezaul Karim ২২ মে, ২০২১, ১:৩৭ এএম says : 0
    ১৯৪৮ সাল থেকে ফিলিস্তনিরা সংগ্রাম করছে। তাদের অস্ত্র ইট, পাথর আর হোমম্যাড কিছু আনগাইডেড রকেট। তাদের সাহস, মনোবল এর দিক বিবেচনা করলে তারাই জয়ী।
    Total Reply(0) Reply
  • এস এম মামুন হাসান ২২ মে, ২০২১, ১:৪২ এএম says : 0
    যুদ্ধ বিরতি মানেই যুদ্ধ শেষ নয়। এটা ইজরায়েলের ধোঁকাবাজি। শহীদের রক্তের বদলা ফিলিস্তিনিদের জন্মভূমি চূড়ান্তভাবে স্বাধীন না হওয়া পর্যন্ত, বিজয় উল্লাস করা আবেগ এবং হুজুগ ছাড়া কিছু নয়।
    Total Reply(0) Reply
  • Kazi S. Rahman ২২ মে, ২০২১, ১:৪৪ এএম says : 0
    অপরিকল্পিত যুদ্ধবিরতির সময়সীমা খুব বেশিক্ষণ স্থায়ী হবেনা, এটাই স্বাভাবিক। জাতিসংঘ, ওআইসি, বিশ্ব নেতারা যতক্ষণ বিষয়টিকে নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছে, রক্ত ঝরবে অবিরত।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফিলিস্তিন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ