Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

কোটালীপাড়ায় পৃথক পৃথক সংঘর্ষে মহিলাসহ দুই পক্ষের আহত- ২০

কোটালীপাড়া (গোপালগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২২ মে, ২০২১, ২:৩৬ পিএম

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় পৃথক পৃথক সংঘর্ষে মহিলাসহ কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। স্হানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে কোটালীপাড়া স্বাস্থ্য কম্পেলেক্স ও গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার রাতে উপজেলার হিরন ইউনিয়নের বর্ষাপাড়া গ্রামে গ্রুপিংয়ের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় আসাদুল শিকদার (৫৬) ও হাবিবুর মোল্লা ( ১৮) আহত হয়ে কোটালীপাড়া স্বাস্হকমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েয়েন। এর আগে উপজেলার কুশলা ইউনিয়নের লাখিরপাড় গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে ঘটনা ঘটে। এসময় মহিলা সহ কমপক্ষে ১৭ জন আহত হয়। স্হানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে কোটালীপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে বেলায়েত হাওলাদার(৩৫), দেলোয়ার হাওলাদার (৪৫), তারিক হাওলাদার ( ১৭), খায়রুন বেগম (৪০), হাসিনা বেগম ( ৪৫), সাফিয়া বেগম (৩৬),ইব্রাহিম হাওলাদার (১৫), রাবেয়া বেগম ( ৭০), কে কোটালীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। অপরদিকে লায়েক হাওলাদার (৫২), ফায়েক হাওলাদার (৪৩), লিটন হাওলাদার (৪০), হাচিবুর হাওলাদার (১৮), ফরিদা বেগম (৪০) খাদিজা বেগম (৩৫), আসমানী খানম (১৬)কে গুরুতর অবস্হায় জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে উপজেলার শুয়াগ্রাম ইউনিয়নের ডুমুরিয়া গ্রামে আব্দুল গনী হাওলাদারের ছেলে মিরাজুল হাওলাদার ( ২৪) প্রতিপক্ষের হামলায় আহত হয়ে কোটালীপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। স্হানীয়রা জানায় লাখিরপাড় গ্রামের বেলায়েত হাওলাদারের সাথে দীর্ঘদিন ধরে একই গ্রামের লায়েক হাওলাদারের জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এরই সুত্রে ধরে গতকাল শুক্রবার বিকেলে বেলায়েত হাওলাদার তার জমিতে খেড়ের পালা দিতে গেলে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে উভয় পক্ষের মহিলাসহ কমপক্ষে ১৭ জন আহত হয়।বেলায়েত হাওলাদার বলেন, আমার ক্রয়কৃত জায়গায় কাজ করতে গেলে লায়েক হাওলাদার লোকজন নিয়ে বাঁধা দিয়ে আমাদের মারধর করে। এঘটনায় বর্ষাপাড়া গ্রামের আহত আসাদুল শিকদারের ভাই রেয়াজুল শিকদার বাদী কোটালীপাড়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

কোটালীপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মো: আমিনুল ইসলাম বলেন, বর্ষাপাড়ার ঘটনায় আহত আসাদুল শিকদারের পক্ষ থেকে একটি অভিযোগ হয়েছে, লাখিরপাড়ার ঘটনা স্হানীয় ভাবে আপোষ মিমাংসা করার কথা বলেছে, এলাকার পরিবেশ বর্তমানে শান্ত রয়েছে। সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে সব সংঘর্ষের ঘটনার বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ