Inqilab Logo

সোমবার, ০২ আগস্ট ২০২১, ১৮ শ্রাবণ ১৪২৮, ২২ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

লালপুরে “ইমো” ব্যবহারকারীদের ইমো হ্যাক করে টাকা হাতিয়ে নিতো তারা

লালপুর (নাটোর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৬ মে, ২০২১, ৮:২২ পিএম

নাটোরের লালপুরে একটি চক্র দীর্ঘদিন যাবৎ ইলেকট্রনিক ডিভাইস ও ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবহার করে প্রবাসীসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তের “ইমো” ব্যবহারকারীদের ইমো হ্যাক করে এবং পরবর্তীতে ভিকটিমের পরিচিতজনদের নিকট হতে প্রতারণাপূর্বক মোবাইল ফিন্যান্সিং সার্ভিসের মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে আসছিলো।

মঙ্গলবার (২৫ মে) সন্ধ্যা ৭ টার দিকে এই প্রতারক চক্রকে আটক করতে এবার গোয়েন্দা তথ্যের ভিক্তিতে নাটোর জেলার লালপুর থানাধীন মোহরকয়া গ্রাম এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে র‌্যাব-৫, সিপিসি-২, নাটোর ক্যাম্পের একটি অপারেশন দল।

এসময় মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ ও ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবহার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম “ইমো” হ্যাকিং করে প্রতারণাপূর্বক অর্থ হাতিয়ে নেওয়া চক্রের ১৬ জন কে আটক করে র‌্যাব।

র‌্যাব জানায়,‘অভিযানের প্রথমে ১টি ল্যাপটপ, ৬টি মোবাইল, সিম কার্ড, ২টি রাউটারসহ উপজেলার মোহরকায় এলাকার এয়ারুল হকের ছেলে পাপ্পু আলী (১৯), বজলুর রহমানের ছেলে আজিম আলী সম্রাট (১৯), আলাউদ্দিনের ছেলে অন্তর উদ্দিন বিল্লু (১৮), সোহরাব আলীর ছেলে স্বাধীন (১৮), লোকমান হোসেনের ছেলে সজীব আলী (১৮) কে আটক করে।
পরবর্তীতে তাদের দেয়া তথ্যমতে পৃথক একটি অভিযানে মোহরকয়া ভাঙ্গাপাড়া গ্রাম এলাকা থেকে একই চক্রের ১টি ট্যাবলেট কম্পিউটার সিমকার্ডসহ ২১ টি মোবাইল, ৬টি গ্যাসলাইট, ২ টি এ্যালুমনিয়াম ফয়েল পেপার রোলারও নগদ ১২০০ টাকাসহ আরো ১১জন কে আটক করা হয়।’

আটককৃতরা হলো- আজিজ মোল্লা ছেলে ফরিদ উদ্দিন (২৫), ইয়াসিন এর ছেলে রবিউল ইসলাম (২২), মনসুর রহমানের ছেলে মোহন সরকার (২২), নুর আলম সরকার এর ছেলে শাহপরান সরকার (২০), সাইফুর রহমান মজনু ছেলে আশিকুর রহমান বিন্টু (২২), আঃ রশিদ এর ছেলে মহিন (২১), ইনছার মন্ডল এর ছেলে শাহাবুল ইসলাম (৩৫), জহুরুল ইসলামের ছেলে রুবেল হোসেন (২৬), আতাহার মন্ডল এর ছেলে আলম হোসেন (৩৭), মৃত ওসমান আলীর ছেলে সিরাজুল ইসলাম (৩০), রবকত প্রামানিক এর ছেলে নাজিম আলী (৩০) কে আটক করে। এর মধ্যে ৯ জন আসামীকে অভিযান পরিচালনার সময় মাদক সেবনরত অবস্থায় পাওয়া যায়। তাদেরকে পরবর্তীতে লালপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাহাদেরকে ইয়াবা সেবনকারী বলে মতামত প্রদান করে।

র‌্যাব আরো জানায়, পরে গ্রেফতারকৃত ১৬ জন আসামী দীর্ঘদিন যাবৎ ইলেকট্রনিক ডিভাইস ও ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবহার করে প্রবাসীসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তের “ইমো” ব্যবহারকারীদের ইমো হ্যাক করে এবং পরবর্তীতে ভিকটিমের পরিচিতজনদের নিকট হতে প্রতারণাপূর্বক মোবাইল ফিন্যান্সিং সাভির্সের মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিতো বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাস্বাবাদে স্বীকার করেছে।

পরে গ্রেফতারকৃত ১৬ জন ইমো হ্যাকারদের বিরুদ্ধে লালপুর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এবং উক্ত ১৬ জনের মধ্যে মাদকসেবী ৯ জনের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮ এ পৃথক দুইটি মামলা রুজু করা হয়েছে বলে জানায় র‌্যাব।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নাটোর


আরও
আরও পড়ুন