Inqilab Logo

রোববার, ১৪ আগস্ট ২০২২, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৫ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

হারের বৃত্তে মরিনহোর ম্যানইউ

প্রকাশের সময় : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : জøাতান ইব্রাহিমোভিচ, পল পগবা, ওয়েন রুনি, মারোয়ানি ফেলাইনি, মার্কাস রাশফোর্ড, অ্যান্থনি মার্শিয়াল কে ছিলেন না হোসে মরিনহোর একাদশে? কিন্তু কিছুতেই কিছু হল না! ওয়াটফোর্ডের বিপক্ষে হার এড়ানো গেল না কোনভাবেই। ইতিয়েন কাপুর গোলে পিছিয়ে পড়ার পর মার্কাস রাশফোর্ডের গোলে নতুনভাবে স্বপ্ন বুনেছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। কিন্তু হুয়ান কামিলোর শটে রেডদের স্বপ্ন ধ্বসে যায়। শেষ সময়ে সফরকারীরা যখন সমতায় ফিরতে মরিয়া ঠিক তখন উল্টো ট্রয় ডিনির স্পট কিকে ব্যবধান ৩-১ করে নেয় ওয়াটফোর্ড। ৩০ বছর পর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে জয় পেল ওয়াটফোর্ড।
সবকিছু ঠিকমতই চলছিল। লিগে টানা তিন ম্যাচ জয়ের পর ম্যানচেস্টার ডার্বিতে গার্দিওলার কাছে হারটাই পথ পাল্টে দিল ম্যানইউর। সেই পথে হেটেই ইউরোপা লিগে নিতে হয় পুচকে ফিয়েনর্ডের কাছে হারতে হয়। এবার একই পথে দেখা হলো গেল মৌসুমে কোনমতে অবনমন এড়ানো ওয়াটফোর্ডের সাথে। এক সপ্তাহের মধ্যে যা মরিনহোকে উপহার দিল তৃতীয় হারের তিক্ত স্বাদ।
গতকাল ম্যাচের ৩৪তম মিনিটে স্বাগতিকদের উল্লাসের উপলক্ষ এনে দেন ফরাসি মিডফিল্ডার ইতিয়েন কাপু। সমতায় ফেরার জন্য সম্ভব্য সবকিছু করেও ওয়াটফোর্ডের রক্ষণের গোলকধাঁধা ভাঙ্গা সম্ভব হচ্ছিল না ওল্ড ট্রাফোর্ডের দলের। পগবা-ইব্রারা ভাগ্যের ফেরে গোল পাননি একাধঅকবার। অবশেষে ৬২তম মিনিটে ইব্রা-রাশফোর্ডের নৈপূণ্যে কিছুটা স্বস্তি ফেরে সফরকারী শিবিরে। কিন্তু তা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। নির্ধারিত সময়ের সাত মিনিট আগে আর্জেন্টিনা মিডফিল্ডার রবার্তো পেরেইরার পাস থেকে দলকে আবার এগিয়ে নেন ওয়াটফোর্ডের কলম্বিয়ান ডিফেন্ডার কামিলো। শেষ সময়ে যখন এক পয়েন্টের আশায় মরিয়া পগবা-রুনিরা, সেসময় নিজেদের ডি বক্সে প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়কে ফাউল করে বসে বেলজিয়ান মিডফিল্ডার ফেলাইনি। সেই সুযোগে পেনাল্টির গোলে ওয়াটফোর্ডের জয়টা পোক্ত করেন ইংলিশ ফরোয়ার্ড ডিনি। প্রথম মেয়াদে চেলসিতে থাকাকালীন ২০০৬ সালে টানা তিন ম্যাচ হেরেছিলেন মরিনহো।
‘এই তিন পয়েন্ট খুবই গুরুত্বপূর্ণ যা আমার ছেলেদের সামনে এগিয়ে যেতে অনেক আত্মবিশ্বাস যোগাবে’ ম্যাচ শেষে বলেন ওয়াটফোর্ড কোচ মাজ্জারি। আর মোরিনহো? এই ম্যাচে তিনটি সমস্যা খুঁজে পেয়েছেন ‘স্পেশাল ওয়ান। প্রথমটি দলীয় সংহতি। পরের দুটি রেফারি ও ভাগ্য। ম্যাচ শেষে রেফারির উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আমি তাদের ভুল নিয়ন্ত্রণ করতে পারি না।’
৫ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার ৬ নম্বরে ম্যানইউ। সমান সংখ্যক ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে ৮ নম্বরে ওয়াটফোর্ড। ৫ ম্যাচ থেকে পূর্ণ ১৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে পেপ গার্দিওলার ম্যানসিটি।
ঘরের মাঠে জয় পেয়েছে ক্রিস্টাল প্যালেস ও সাউদাম্পটনও। স্টোক সিটির বিপক্ষে ক্রিস্টাল প্যালেস জিতেছে ৪-১ গোলে। সাউদাম্পটনের জয়টা ১-০ ব্যবধানের।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হারের বৃত্তে মরিনহোর ম্যানইউ

আরও পড়ুন