Inqilab Logo

শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩ আশ্বিন ১৪২৮, ১০ সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

কমলনগরে খালুসহ তিনজন মিলে কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগ

কমলনগর (লক্ষ্মীপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৮ মে, ২০২১, ৮:১০ পিএম

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে আপন খালু ও চাচাতো ভাইসহ তিনজন মিলে এক কিশোরীকে (১৬) গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। বুধবার গভীর রাতে উপজেলার চরলরেন্স ইউনিয়নের শহীদনগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় কিশোরীর মা বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলার অভিযুক্তরা হচ্ছেন-একই বাড়ির হোসেন ভান্ডারির ছেলে কিশোরীর চাচাতো ভাই রাজু প্রকাশ গাজী (৩২), একই এলাকার আনার উল্যাহর ছেলে কিশোরীর আপন খালু রমজান আলী (৩৫) এবং প্রতিবেশী আব্দুল আলীর ছেলে মো. ইউছুফ (৩০)। নির্যাতনে অসুস্থ হয়ে পড়া ওই কিশোরী লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মামলার এজাহার ও ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, বুধবার রাত তিনটার দিকে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ওই কিশোরী ঘর থেকে বের হয়। ওই সময় পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা রাজু, রমজান ও ইউছুফ মুখ চেপে কিশোরীকে বাড়ির পিছনে পুকুর পাড়ে নিয়ে যায়। একপর্যায়ে কিশোরীকে মুখ বেঁধে পালাক্রমে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায় তারা। পরে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখান থেকে তাকে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় নির্যাতনের শিকার ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে তিনজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে কমলনগর থানায় মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছেন।

কিশোরীর মা ও মামলার বাদী জানান, বসতবাড়ির জমি নিয়ে একই বাড়ির আনার উল্যাহদের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে তাদের বিরোধ চলে আসছে। এনিয়ে সম্প্রতি সালিশি বৈঠকও হয়েছিল। এ বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের লোকজন স্বামী-সন্তানসহ তাকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি-ধমকিও দিয়ে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় আনার উল্যাহর ছেলে রাজুর নেতৃত্বে তার মেয়ের সর্বনাশ করা হয়েছে। ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন তিনি।

কমলনগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাখন লাল রায় জানান, শুক্রবার নির্যাতনের শিকার কিশোরীর ডাক্তারি পরীক্ষা করানো হয়েছে। আসামিদের ধরতে পুলিশ তৎপর রয়েছেন।



 

Show all comments
  • Dadhack ২৮ মে, ২০২১, ৯:৪৪ পিএম says : 0
    If our country by the Law of Allah then nobody dare to commit this heinous crime. The enemy of Allah is ruling our country as such our beloved country have been destroyed, no peace, security, not human dignity, no morality.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: লক্ষ্মীপুর


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ