Inqilab Logo

শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮, ২০ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

ফের চলন্ত বাসে গণধর্ষণ

ঘটনাস্থল আশুলিয়া : আদালতে বাস চালকের স্বীকারোক্তি গ্রেফতার ৬ জনের মধ্যে ৫ জন রিমান্ডে

সেলিম আহমেদ, সাভার থেকে | প্রকাশের সময় : ৩১ মে, ২০২১, ১২:০২ এএম

আশুলিয়ায় চলন্ত বাসে তরুণীকে গণধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার ৬ জনের মধ্যে ৫ জনকে তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। এর মধ্যে একজন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। গতকাল বিকেলে ঢাকার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শাহাজাদী তাহমিদার আদালতে রিমান্ড শুনানি শেষে আসামি ৫ জনকে ৩ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।

এর আগে ঢাকার সাভারের আশুলিয়ায় চলন্ত বাসে গণধর্ষণের শিকার হন এক তরুণী। এ ঘটনায় জড়িত ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত শুক্রবার দিবাগত রাতে সিএন্ডবি-আশুলিয়া সড়কের আশুলিয়া গরুর হাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। রাতেই ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে- ঢাকার তুরাগ থানার গুলবাগ ইন্দ্রপুর ভাসমান গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে আরিয়ান, কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানার তারাগুনা এলাকার মৃত আতিয়ারের ছেলে সাজু, বগুড়া জেলার ধুনট থানার খাটিয়ামারি এলাকার সুলতান মিয়ার ছেলে সুমন মিয়া, নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানার ধামঘর এলাকার জহুর উদ্দিনের ছেলে মনোয়ার, বগুড়া জেলার ধুনট থানার খাটিয়ামারি এলাকার তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে সোহাগ ও বগুড়া জেলার ধুপচাচিয়া থানার জিয়ানগর গ্রামের সামছুলের ছেলে সাইফুল ইসলাম। তারা সবাই তুরাগ থানার কামারপারা ভাসমান এলাকায় ভাড়া থেকে আব্দুল্লাহপুর-বাইপাইল-নবীনগর মহাসড়কে চলাচলরত পরিবহনের শ্রমিক।

আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জিয়াউল ইসলাম জানান, ২২ বছর বয়সী পোশাককর্মী তরুণী মানিকগঞ্জে বোনের বাসা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে নারায়ণগঞ্জের উদ্দেশে বাসে উঠলে রাত ৮টার দিকে আশুলিয়ার নবীনগর বাসস্ট্যান্ডে তাকে নামিয়ে দেয়। তখন বাসের জন্য অপেক্ষা করলে পূর্ব পরিচিত নাজমুল নামের একজনের সাথে দেখা হয়।

রাত ৯টার দিকে নিউগ্রাম বাংলা মিনিবাসের চালক সুমন, হেলপার আসামি মনোয়ার ও সুপারভাইজার সাইফুল ইসলাম এসে টঙ্গী স্টেশন রোডের কথা বলে ৩৫ টাকা ভাড়া চায়। পরে তারা মিনিবাসে উঠলে গন্তব্যে যাওয়ার আগেই অন্য যাত্রীদের নামিয়ে দিয়ে তরুণীকে জোরপূর্বক বাসে করে নিয়ে আবারও নবীনগরে ফিরে আসার সময় বাসের জানালা-দরজা আটকিয়ে তাকে দলবদ্ধ ধর্ষণ করে বাসের চালক, হেলপারসহ ৬ জন। তখন তরুণীর সাথে থাকা ব্যক্তির চিৎকারে টহল পুলিশ বাসটি থামিয়ে তাকে উদ্ধার করে। গ্রেফতার করা হয় ৬ জনকে। জব্দ করা হয়েছে বাসটি।

আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আব্দুর রশিদ বলেন, তরুণীকে শারীরিক পরীক্ষার জন্য হাসপাতালের পাঠানো হয়েছে। গতকাল দুপুরে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগে ওই তরুণীর মেডিকেল পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। ঢাকা জেলা কোর্ট পরিদর্শক মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, আশুলিয়া থেকে গণধর্ষণের মামলায় গ্রেফতার ৬ আসামিকে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে পাঠায় পুলিশ। এদের মধ্যে চালক সুমন নামের আসামি ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়। শুনানি শেষে অপর ৫ আসামির প্রত্যেককে ৩ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।



 

Show all comments
  • Mustak Ahmmed Shanto ৩০ মে, ২০২১, ২:৪৫ এএম says : 0
    দেশে খুব কম সংখ্যকই ভালো মানুষ আছে, বাকি সব জানোয়ার হয়ে গেছে ৷ এসব ঘটনার কোন বিচার হয় না বলেই বার বার ঘটছে। দোষীদের তাৎক্ষনিক প্রকাশ্যে দৃষ্টান্ত মুলক কঠিন শাস্তি দাবী করছি । ২৪ ঘন্টার মধ্যে ধর্ষক দের ক্রসফায়ার দেওয়ার নিয়ম চালু হোক দেখবেন সব ঠিক ৷
    Total Reply(0) Reply
  • Tanvir Hasnat ৩০ মে, ২০২১, ২:৪৫ এএম says : 0
    পরিবারের বাইরে মেয়েরা কোথাও নিরাপদ নয়।একা একটা মেয়েকে পেলেই যেন ধর্ষন করতে হবে এমন একটা কালচার তৈরি হয়ে গেছে।খুব শীঘ্রই ধর্ষণকারীদের জনসম্মুখে ক্রসফায়ারের আইন করতে হবে।এছাড়াও ধর্মীয় শিক্ষার প্রচার ও প্রসার করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Muhammad Hefajur Rashid ৩০ মে, ২০২১, ২:৪৫ এএম says : 0
    · চারদিকে আধুনিকতার ছোঁয়ায় মানবিক বিপর্যয় বৃদ্ধি পাচ্ছে, এছাড়াও দেশের আইনের শাসন না থাকায় তারা আরো বেশি বেপরোয়া হচ্ছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Mahamudul Haque Metwo ৩০ মে, ২০২১, ২:৪৬ এএম says : 0
    এত এত আন্দোলন করি। কেউ আমাদের কথা শুনে না। দিন শেষে ধর্ষক জিতে যায়। ধর্ষিতা সমাজ থেকে বিতাড়িত হয়। অবশেষে আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়। আপনারা একজন ধর্ষণ কারী কে প্রকাশ্যে ফাঁসি তে ঝুলিয়ে দিন। না হয় জনগণের সামনে গুলি করে মারুন। কিন্তু তা করেন না আপনারা। না করার কারনও আমরা সবাই জানি।
    Total Reply(0) Reply
  • ইসমাইল মোহাম্মদ সুবাস ৩০ মে, ২০২১, ২:৪৬ এএম says : 0
    আদিকাল থেকেই পরিবার সমাজ ও রাষ্ট্রের বাঁকে বাঁকে,দু-পেয়ে মানুষ সদৃশ কিছু অমানুষ রাতদিন ঘুরে বেড়ায়।যেহেতু আমাদের দেশে ইসলামী শরীয়া আইন উপেক্ষিত সেহেতু, নারীকেও সতর্ক হয়ে চলা উচিৎ।
    Total Reply(0) Reply
  • Ahsan Atick ৩০ মে, ২০২১, ২:৪৭ এএম says : 0
    সত্যকথা! লকডাউনে পরিবহন শ্রমিকদের জন্য খারাপ লাগতো ওদের কোন আয় নেই বলে, আসলে ওরা মানুষের মধ্যে পরেনা। ওদের জন্য সারাজীবন লকডাউন ই ভালো হোক আমাদের কষ্ট।
    Total Reply(0) Reply
  • Akhter Hossain Akhter ৩০ মে, ২০২১, ২:৪৭ এএম says : 0
    দুঃখজনক। লজ্জাজনক। রাত্রিকালীন যানবাহন চলাচলের রুট পারমিট দিয়ে নিরাপত্তা দিতে না পারাটা প্রকারন্তরে সরকারের ব্যর্থতা। বিশেষ করে একই ধরনের ঘটনার পুনঃ পুনরাবৃত্তি। এই পাশবিক ঘটনায় দোষীদের পাশাপাশি টহল পুলিশ যথাযথ ভাবে দায়িত্ব পালনরত ছিল কি না সেটাও খতিয়ে দেখতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Zahangir Khan ৩০ মে, ২০২১, ৯:৩৯ এএম says : 0
    Young people are like a small number of people, most of the time do not know. Thoughts are not seen The guilty students who have expressed guilty opinions have been called to disaster. It is all right to show the position of the rapist's crossfire within 24 hours.
    Total Reply(0) Reply
  • tariqul ৩০ মে, ২০২১, ১:৪০ পিএম says : 0
    cut all the bastered penis in front of people and then brush fire till death .
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ+দুলাল+মিয়া ৩০ মে, ২০২১, ৩:৫৫ এএম says : 0
    যখন দেশে রাষ্ট্র পতি পদ্ধতি ছিল ,মানসম্মান ইজ্জত আদব কায়দা বড় ছোট বিচার আচার পততেক কাজের মূল্যায়ন ছিলো,ঐ সময় দেশে আইনের শাসন ছিল,এখন শাসন চলতেছে সংসদীয় পদ্ধতির শাসন দলীয় শাসন দলীয় ভাবে হুকুম দলীয় ভাবে সব কিছু দলীয় ভাবে বিচার ,সংসদের সংসদ সদস্যদের ক্ষমতা তারা যাই করবে তাই হবে,যতদিন এই সংসদীয় পদ্ধতি থাকবে,দেশের মানুষ এই ভাবে দুঃখ দশায় মরবে দলীয় ভাবে সব হবে দলীয় ছাড়া কিছু নয়,এখনও সময় আছে দেশ এবং দেশের জনগনকে দেশের সম্পদ কে রক্ষা করুন রাষ্ট্র পতি পদ্ধতি চালু করেন দেখবেন সবাই সবার অধিকার পাবেন না হয় এই ভাবে মরতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Aftab ৩০ মে, ২০২১, ৪:৫৫ এএম says : 0
    দায়িত্বশীলদের উদ্দেশ্যে বলছি. আপনাদের মধ্যে যদি মানবতাবোধ থেকে থাকে কোন অজুহাত না দেখিয়ে খুব তাড়াতাড়ি ইতর দেরকে সর্বোচ্চ শাস্তি দিন.
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ+দুলাল+মিয়া ৩০ মে, ২০২১, ৫:১৯ এএম says : 0
    এখন নিচে মাথা দিয়ে লাভ কি? মা বোন কি তোদের ছিল না?
    Total Reply(0) Reply
  • Dadhack ৩০ মে, ২০২১, ৬:৩১ পিএম says : 0
    Our Beloved country is ruled by kafir law as such majority people become worse then Iblees. In 1972 a comic magazine published a cartoon that Iblees is no where is found in Bangladesh.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গণধর্ষণ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ